মঙ্গলবার-১৫ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং-৩০শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১০:০৫
মেহেন্দীগঞ্জে বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচিত দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয় বরং তারাই হতে পারে দেশের উন্নয়নের সহায়ক ফুলবাড়ীতে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক ওরিয়েন্টেশেন সভা ॥ ঘুমন্ত তুহিনকে কোলে করে নিয়ে আসেন বাবা, খুন করেন চাচা বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির সাবেক ৭ এমডিসহ ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা লালপুরে মাচায় লাউ চাষ করে সফল হয়েছেন চাষী রনি কুষ্টিয়া চলে গেলেন আবরারের ছোট ভাই

সৈয়দপুরে গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ , ১০:১৩ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : রংপুর,সারাদেশ,

মো: জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ নীলফামারীর সৈয়দপুরে এক গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বামী কর্তৃক গলাটিপে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে গৃহবধুর পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে ১১ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৭টায় উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নের হাজারীহাট প্রজাপাড়ায়।

গৃহবধুর পরিবাবর সুত্রে জানা যায়, প্রজাপাড়ার ইলিয়াস আলীর ছেলে আতাউর রহমান (মুন্না) এর সাথে উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের শ্বাষকান্দর পাঠানপাড়ার আমিনুল ইসলামের মেয়ে আঞ্জুয়ারা বেগম লিজার প্রেমের সম্পর্কের মাধ্যমে অভিভাবকদের অনুমতি ছাড়াই ১ বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর মেয়ের পরিবার মেনে নিলেও স্বামীর পরিবার তথা শ্বশুড়-শ্বাশুড়ী তাদের বিয়ে মেনে না নেয়ায় প্রায়ই তাদের সাথে বিবাদের সৃষ্টি হতো। তাছাড়া স্বামী আতাউর রহমান পূর্বের একটি নারী ধর্ষণ সংক্রান্ত মামলায় আসামী হওয়ায় মামলার খরচ চালাতে আর্থিক অভাব অনটন দেখা দেয়। এজন্য আঞ্জুয়ারার কাছ থেকে তার চাকুরীর বেতনসহ অন্যান্য অর্থ হাতিয়ে নিতো স্বামী আতাউর। এনিয়ে প্রায়ই তাদের মধ্যে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। এর ফলে আঞ্জুয়ারা চাকুরী ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিলে আতাউর তাকে চাকুরীতে যাওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। এতে আঞ্জুয়ারা সম্মত না হওয়ায় বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে গত ১০ ডিসেম্বর রাতে আতাউর গলা টিপে হত্যা করে আঞ্জুয়ারাকে। হত্যার পর লাশ ঘরের তীরের সাথে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এদিকে এ বিষয়ে আতাউর রহমান জানায়, আমার স্ত্রী ১১ ডিসেম্বর সকালে কোন কারণ ছাড়াই হঠাৎ আত্মহত্যা করেছে। আমি নিজেই তাকে ঝুলন্ত অবস্থা থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসি। এখানে আসার পর দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, গৃহবধুর গলায় রশির দাগ পাওয়া গেলেও শরীরের অন্য কোথাও কোন আঘাতের চিহ্ন বা মারডাং করার জখম পাওয়া যায়নি।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শাহজাহন পাশা জানান, লাশ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নীলফামারী মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। হত্যা না আত্মহত্যা এ বিষয়ে এখনই কোন কিছু বলা যাবেনা। পোষ্ট মর্টেম রিপোর্ট পেলেই প্রকৃত বিষয় জানা যাবে এবং সে অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ