বৃহস্পতিবার-২১শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং-৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সন্ধ্যা ৭:৪৩, English Version
চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিশ্ব এন্টিবায়োটিক সচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালি পরিবহন ধর্মঘটে সৈয়দপুরসহ নীলফামারী জেলায় চরম জনদূর্ভোগ নাচোলের অন্যতম প্রয়াত নেতা আবু রেজা মোস্তাফা কামাল শামীম বাজার অস্থিতিশীলকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে -রমেশ চন্দ্র সেন গোবিন্দগঞ্জে আগ্নিকান্ডে ৩০০ দোকান পুড়ে ছাই পরিবহন ধর্মঘটের প্রভাব পড়েছে হিলি স্থলবন্দরে গোবিন্দগঞ্জে ট্রাকে ঝরল বৃদ্ধের প্রাণ

দেশে শক্তিশালী ‘ই-গভর্নমেন্ট সিস্টেম’ হচ্ছে: পলক

প্রকাশ: বুধবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৬ , ১২:৩০ অপরাহ্ণ , বিভাগ : তথ্য-প্রযুক্তি,

file-3

মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: সরকারি সেবা মানুষের দোর গোড়ায় পৌঁছে দিতে দেশে ই-গভর্নমেন্ট বাস্তবায়নে সব সরকারি দপ্তর নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সরকার তার সেবা মানুষের কাছে খুব দ্রুত ও সহজতম উপায়ে পৌঁছে দিতে যে ডিজিটাল বাংলাদেশ মাস্টারপ্ল্যান করেছিল তা এখন বাস্তবায়ন চলছে। যা হবে একটি শক্তিশালী ই-গভর্নমেন্ট সিস্টেম বলে বলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

আজ বুধবার রাজধানীর ফার্মগেটের কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য ই-গভর্নমেন্ট মাস্টারপ্ল্যান’ নামের দিনব্যাপী এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, এমন একটি কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে গেলে অবশ্যই প্রজাতন্ত্রের কর্মীদের দক্ষতা বাড়ানো প্রয়োজন। কারণ তাদের মাধ্যমেই এসব সেবা পাবে জনগণ। ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রণয়নে কোরিয়া সরকারের অভিজ্ঞতাকে কাজে  লাগাতে চায় বাংলাদেশ। তাই যৌথভাবে এমন আয়োজন করা হয়েছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, দেশের প্রথম ডিজিটাল দ্বীপ হিসেবে কোরিয়া সরকারের সহায়তায় মহেশখালীকে গড়ে তোলা হচ্ছে। এটি দেশের প্রথম কোনো দ্বীপ যেখান থেকে প্রযুক্তির দক্ষযজ্ঞ সম্পন্ন হবে। এটি অন্যান্য দেশের কাছে রোল মডেল হবে বলেও জানান তিনি। দিনব্যাপী কর্মশালা শেষে সম্মিলিত সুপারিশগুলো যাচাই-বাছাই করবে সরকারের সংশ্লিষ্টরা। পরে সেগুলো ই-গভর্নমেন্ট মাস্টারপ্ল্যানে যুক্ত করা হবে।
প্রসঙ্গত, ভিশন ২০২১  বাস্তবায়ন ও দেশে একটি জবাবাদিহিতামূলক ই-গভর্নমেন্ট বাস্তবায়নে কোরিয়ান সরকারের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে একটি পাইলট প্রকল্প বাস্তাবায়নের মাধ্যমে এগিয়ে যেতে চায় সরকার। এজন্য দেশীয় আর্থ-সামাজিক অবস্থা বিবেচনায় এনে এই ই-গভর্নমেন্ট বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।  এটি বাস্তবায়ন করতে সরকার ন্যাশনাল আর্কিটেকচার ফ্রেম ওয়ার্কের অধীনে ৫২টি মন্ত্রণালয় ও ৬৮টি অধিদপ্তর ও সংস্থা একযোগে কাজ করছে। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত কোরিয়ান দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন কোয়াক স্যাম-জু, কোরিয়ান ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন এজেন্সির কান্ট্রি ম্যানেজার জো ইয়ংগুয়ে। বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক এসএম আশরাফুল ইসলামের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব হারুনুর রশিদ, প্রকল্প পরিচালক মুহাম্মদ এনামুল কবিরসহ আরও অনেকে।

আপনার মতামত লিখুন

তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ