মঙ্গলবার-১৫ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং-৩০শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১০:১৯
মেহেন্দীগঞ্জে বিদ্রোহী প্রার্থী নির্বাচিত দৃষ্টি প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয় বরং তারাই হতে পারে দেশের উন্নয়নের সহায়ক ফুলবাড়ীতে বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ক ওরিয়েন্টেশেন সভা ॥ ঘুমন্ত তুহিনকে কোলে করে নিয়ে আসেন বাবা, খুন করেন চাচা বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির সাবেক ৭ এমডিসহ ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা লালপুরে মাচায় লাউ চাষ করে সফল হয়েছেন চাষী রনি কুষ্টিয়া চলে গেলেন আবরারের ছোট ভাই

লক্ষ্মীপুরে সাবেক সিভিল সার্জন জামিনে মুক্ত

প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৭ , ৬:২৫ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : চট্রগ্রাম,সারাদেশ,

মূক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  তুচ্ছ ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া লক্ষ্মীপুরে সাবেক সিভিল সার্জন ডা. সালাহ উদ্দিন শরিফ জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। আজ মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে মুক্তি পান তিনি।

ওই চিকিৎসকের পক্ষ থেকে আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে জামিন দেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মীর শওকত হোসেন। লক্ষ্মীপুর জেলা বিএমএ সভাপতি ডা. আশফাকুর রহমান মামুন ও জেলা কারাগারের জেলার শরীফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সদর হাসপাতালে সিভিল সার্জন কার্যালয়ে আলোচনা সভায় জেলা বিএমএ ও স্বাচিপ নেতারা মুক্তির দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা করেন। দুপুর ১২টার মধ্যে মুক্তি না দিলে কর্মবিরতিসহ কঠোর আন্দোলনের হুমকি দেন চিকিৎসক নেতারা। তবে সকাল থেকেই সদর হাসপাতালের চিকিৎসকরা জেলা আদালতপাড়ায় অবস্থান করায় চিকিৎসা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এ নিয়ে রোগীদের ভোগান্তি দেখা দেয়।

ওই আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএমএ সভাপতি ডা. আশফাকুর রহমান মামুন, স্বাচিপ সভাপতি ডা. জাকির হোসেন, ডা. নুরুল ইসলাম, ডা. শংকর কুমার বশাক, ডা. আলতাফ হোসেন, ডা. হামিদ হোসেন, ডা. মোরশেদ আলম ও ডা. আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

তবে জেলা প্রশাসনের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, কারাদণ্ডপ্রাপ্ত চিকিৎসকের পক্ষ থেকে আজ মঙ্গলবার আপিল করা হবে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই তাকে জামিন দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, সোমবার সকাল ৯টার দিকে শহরের জেলা প্রশাসকের বাসভবন এলাকার কাকলি শিশু অঙ্গনের (বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়) প্রবেশমুখে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শেখ মুর্শিদুল ইসলাম ও সাবেক সিভিল সার্জন ড. সালাহ উদ্দিন শরীফের মধ্যে বাকবিতণ্ডার পর হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

সালাহ উদ্দিনকে আটক করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নেওয়া হয়। সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পরে পুলিশ তাকে কারাগারে পাঠায়। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আদালত পরিচালনা করেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নুরুজ্জামান।

সূএ: কালের কণ্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

চট্রগ্রাম,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ