শুক্রবার-১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং-৩০শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৬:১১
অবহেলায় বিলুপ্তির পথে স্থাপত্যকলার অনন্য নিদর্শন কয়ারপাড়া জামে মসজিদ গাইবান্ধার পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল নিয়ে প্রবেশ, সাত শিক্ষার্থী বহিষ্কার গোবিন্দগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় এসিল্যান্ড নিহত হওয়ার ঘটনায় পিবিআইর তদন্তের নির্দেশ শিবগঞ্জে সড়ক পরিবহন আইন ও সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনামূলক লিফলেট বিতরণ লালমনিরহাটে নতুন সড়ক আইন প্রচারণায় পুলিশের লিফলেট বিতরণ হিলিতে এইচআইভি এইডস প্রতিরোধে জনসচেতনতামুলক সভা অনুষ্ঠিত ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিবাহের চেষ্টা, কাজী ও বরকে কারাদণ্ড

নতুন করে যা প্রমাণের, ক্যাম্পেই করতে হবে

প্রকাশ: রবিবার, ২ জুলাই, ২০১৭ , ৪:২০ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : খেলাধুলা,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: বেশ কয়েকটি সিরিজ শেষে আবার জাতীয় দলের বিবেচনায় আল-আমিন হোসেন। ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেটে দুর্দান্ত বোলিং  করে জায়গা করে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রাথমিক দলে। ক্যাম্পে ভালো করে জাতীয় দলে ফেরার লক্ষ্যের কথা কালের কণ্ঠ স্পোর্টসকে জানান এই পেসার

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে ১৪ ম্যাচে ২৯ শিকারে আছেন সর্বোচ্চ উইকেটধারীদের তালিকার ৩ নম্বরে। পরপরই ডাক পেলেন জাতীয় দলের ক্যাম্পে। ব্যাপারটি নিশ্চয়ই ভীষণ ভালো লাগার?

আল-আমিন হোসেন : আপনি যখন কোনো কাজের পুরস্কার হাতে হাতে পান, তাতে ভালো লাগাটা বেশি থাকে। এ জন্য আমি নির্বাচকদের ধন্যবাদ দিতে চাই। লিগে খুব কষ্ট করেছি। সেই কষ্ট বৃথা যায়নি।

প্রশ্ন : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পর থেকে আর জাতীয় দলের স্কোয়াডে নেই। এবার ফেরার ব্যাপারে আশাবাদী কতটা?

আল-আমিন : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে স্কোয়াডে থাকলেও একাদশে থাকা হয়নি। জাতীয় দলে সর্বশেষ ম্যাচ খেলি গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। এরপর যে ঢাকা লিগ হয়, সেখানেও কিন্তু ভালো করেছিলাম। ১৬ ম্যাচে ছিল ২৫ উইকেট। কিন্তু আফগানিস্তানের বিপক্ষে আমাকে ডাকা হয়নি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ডাকলেও খেলা হয়নি। এরপর তো বেশ কয়েকটি সিরিজ জাতীয় দলের বাইরে। এবার প্রাথমিক দলে সুযোগ যখন পেয়েছি, মূল দলে ফেরার ব্যাপারেও আশাবাদী।

প্রশ্ন : লিগ শুরুর আগে সামনে কোনো লক্ষ্য ছিল? সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি হওয়া বা এই জাতীয়?

আল-আমিন : আমি চেয়েছিলাম ১৬টি ম্যাচে গড়ে যেন দুটি করে উইকেট পাই। সব মিলিয়ে ৩০-৩২টি। কিন্তু প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবে প্রথম দুটো ম্যাচেই আমাকে একাদশে রাখা হয়নি। তখন মনে অনেক নেতিবাচক চিন্তা—ক্লাব দলেই সুযোগ পাই না তো জাতীয় দলে ফিরব কিভাবে? যাহোক, পরে একাদশে সুযোগ পেলাম। সেখানে ১৪ ম্যাচে ২৯ উইকেটের পারফরম্যান্সে আমি খুশি। নির্বাচকরা নিশ্চয়ই সন্তুষ্ট হয়েছেন, সেই কারণে আবার সুযোগ পেলাম।

প্রশ্ন : জাতীয় দলের মূল স্কোয়াডে ফেরার জন্য ক্যাম্প কতটা কাজে লাগবে?

আল-আমিন : আমি চেষ্টা করব ১০০ শতাংশ কাজে লাগাতে। কারণ আমাদের সামনে তো এখন কোনো খেলা নেই। নিজেকে নতুন করে যা প্রমাণের, ক্যাম্পেই করতে হবে। এখানে ফিটনেসের ব্যাপার রয়েছে, শৃঙ্খলার ব্যাপার রয়েছে। আমি সব দিক মেনে চলার চেষ্টা করব। ক্যাম্পে যদি বোলিং দিয়ে কোচ-নির্বাচকদের খুশি করতে পারি, তাহলে আবার সুযোগ হয়তো আসবে। আরেকটি ব্যাপার, বাংলাদেশের তো সামনে অনেক খেলা। আমি নিজেকে সব সময় প্রস্তুত রাখতে চাই। কখন সুযোগ আসে, বলা তো যায় না। সুযোগটা এলে যেন তা কাজে লাগাতে পারি, সেই চেষ্টা থাকবে।

আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ