সোমবার-১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং-৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৭:১৬, English Version
সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ মিয়ানমারের পেঁয়াজ টিসিবিতে বিক্রি শুরু, কেজি ৪৫ টাকা লালপুরে নিজের পাওয়ার ট্রলির চাপায় চালক নিহত! আরামকোর দাম দেড় লক্ষ কোটি ডলার ছাড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর গ্রান্ড দুবাই এয়ারশো ২০১৯-এ যোগদান পার্বতীপুরে গ্রামীণ অবকাঠামোর উন্নয়নে ৫৬ প্রকল্পের কাজ শুরু ৩ হাজার ২ জন অতিদরিদ্র নারী-পুরুষের কর্মসংস্থান চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর উপজেলার শিবগঞ্জ আদর্শ হাসপাতালে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ডা: মাহাফুজ জামান এমবিবিএস এমডি

এএসআই হুমায়ুন হত্যায় স্ত্রীসহ ২ জনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৩০ মে, ২০১৭ , ৭:৩৫ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : ঢাকা,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: রাজধানীর শাহ আলী থানার এএসআই হুমায়ুন কবির হত্যা মামলায় তার স্ত্রী রহিমা সুলতানা রুমিসহ ২ আসামির মৃত্যুদণ্ড ও একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবদুর রহমান সরদার রায় ঘোষণা করেন।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- হুমায়ুনের স্ত্রী রহিমা সুলতানা রুমি ও তার বন্ধু মিষ্টি। অপরদিকে যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত আসামি হলেন মোছা. রিয়া। তাকে যাবজ্জীবনের পাশাপাশি ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
মামলার রায় ঘোষণার সময় হুমায়ুনের স্ত্রী রুমিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়।
মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৪ ডিসেম্বর পারিবারিক কলহের জেরে মিরপুরের বাসায় রুমি তার স্বামী হুমায়ুনকে ইনজেকশনে বিষ প্রয়োগ করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। এ ঘটনায় নিহতের ভাই বজলুর রশিদ বাদী হয়ে মিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ২০১৪ সালের ২০ জুলাই মিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাইনুল ইসলাম তার স্ত্রী রুমিসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেন।
২০১৫ সালের ১৪ মে তাদের বিরুদ্ধে আদালত অভিযোগ গঠন করেন। এ মামলায় বিভিন্ন সময়ে সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে ৯ জনের। মামলার অপর দুই আসামি হলেন রুমির বন্ধু মিষ্টি ও রিয়া। তারা পলাতক রয়েছেন। আসামি রুমি ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনে নার্স হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
উল্লেখ্য, হুমায়ুন কবির ও রহিমা সুলতানা রুমি একে অপরকে ভালোবেসে ২০০৮ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলায়। বিয়ের পর থেকে পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে কলহ লেগেই ছিল।
আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ