সোমবার-৬ই এপ্রিল, ২০২০ ইং-২৩শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৪:২৮, English Version
বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে এই দুর্যোগে জনগণের পাশে থাকার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর মাস্ক ছাড়া কেউই এ সময় বাইরে বের হবেন না                                          –স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মহীন হোটেল শ্রমিকদের পাশে আর.ডি.এস এর পরিচালক আলমগীর হোসেন দেশে করোনায় আরও ১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৮ ছুটি বাড়ল ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত অঘোষিত লক ডাউন চলছে তারি মধ্যে দিয়ে বাড়ি বাড়ি খাদ্য পৌছিয়ে দিলেন এমপি জেসী বাংলাদেশে যেসব ল্যাবে করোনা ভাইরাস শনাক্তকরণে কাজ চালু রয়েছে ও মোবাইল নম্বরসহ

বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় চেয়ারম্যান হচ্ছেন আব্দুল মতিন ভূঁইয়া

মো. হারুন অর রশিদ, নরসিংদী প্রতিনিধি:
নরসিংদী জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় চেয়ারম্যান হচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঁইয়া। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রিটানিং কর্মকর্তা প্রতিদ্বন্ধী একমাত্র প্রার্থী মাহবুব আলম শাহীনের মনোনয়নপত্র বাতিল করলে এই সম্ভাবনার সৃষ্টি হয়।
রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, দুই জন প্রার্থীর মধ্যে মাহবুব আলম শাহীন ঠিকাদার। এবং তিনি আয়কর রিটার্নের কাগজপত্র জমা দেননি। তাই নিয়ম অনুযায়ী তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে আগামী ৩ দিনের মধ্যে তিনি আপিল করতে পারবেন। অপর প্রার্থী আবদুল মতিন ভূঁইয়া এখন একক প্রার্থী।
তবে মাহবুব আলম শাহীন বলেন, মনোনয়নপত্রে আমি আয়কর সার্টিফিকেট জমা দিয়েছি। এবং প্রার্থী হওয়ার আগেই সোমবার সকালে আমি জেলা পরিষদে ঠিকাদারী লাইসেন্স জমা দিয়ে অব্যাহতি নিয়েছি। সুতরাং অন্যায় ভাবে আমার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে। আমি এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করবো।
তবে নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আপিলে শাহীনের মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। এখন বাকী শুধু আনুষ্ঠানিকতা।
ফলে আবদুল মতিন ভূঞার সমর্থকরা রিটানিং কর্মকর্তার ঘোষণার পর থেকেই বিজয় উল্লাস শুরু করেছেন। শহরের কান্দাপাড়ায় অবস্থিত আবদুল মতিন ভূঁইয়া বাড়িতে ছিল নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের ভীড়। সবাই ফুলেল শুভেচ্ছা ও মিষ্টিমুখ করিয়ে প্রবীণ নেতার বিজয় উদযাপন করছে।
এবারের নরসিংদী জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচন ছিল জেলা আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মর্যাদার লড়াই। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী লে. কর্ণেল (অব.) নজরুল ইসলাম হীরু মাঠে নেমেছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন ভূঞাকে নিয়ে। অপরদিকে রায়পুরার সাবেক মন্ত্রী সংসদ সদস্য রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু জোরালো তৎপরতা চালিয়েছেন প্রয়াত এ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামানের ছোট মেয়ে ডা. সায়মা আফরোজ ইভাকে নিয়ে। সঙ্গে ছিল স্বামী নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুর অকুন্ঠ সমর্থন। দুই পক্ষই সমান তালে কেন্দ্রীয় নেতা-কর্মীদের নিকট নিজেদের প্রার্থী সম্পর্কে লবিং তদবির করেছেন।
বিগত নির্বাচনে আবদুল মতিন ভূঞার দলীয় মনোনয়ন আনতে ব্যার্থ হন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নজরুল ইসলাম হীরু। এবারের মনোনয়নের সময় তিনি ছিলেন বিদেশে। তাই আবদুল মতিন ভূঞার দলীয় মনোনয়নে উদ্যোগী হন পলাশের সংসদ সদস্য কামরুল আশরাফ খাঁন পোটন । তিনি দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে ব্যাপক তৎপরতা চালান। এরই ফলশ্রুতিতে আবদুল মতিন ভূঞাকে দলীয় মনোনয়ন এনে দিয়ে স্থানীয় রাজনীতিতে নতুন চমক সৃষ্টি করেন এমপি পোটন। আর প্রথম বারের মতো জনপ্রতিনিধি হওয়ার দ্বারপ্রান্তে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা আবদুল মতিন ভূঞা।
আবদুল মতিন ভূঞা বলেন, আমি আজকের এই দিন ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। আগামী দিনে জেলা পরিষদকে একটি জনবান্ধব প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর করবো এটাই আমার অঙ্গীকার।

আপনার মতামত লিখুন

বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ