বৃহস্পতিবার-২১শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং-৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১:৫০, English Version
ক্রেডিট কার্ড: গ্রাহকরা কী করতে পারেন, কী পারেন না প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন ৬৪ জেলায় বিশাল রদবদল সরকার চলচ্চিত্রের স্বর্ণযুগ ফিরিয়ে আনতে চায়: হাছান মাহমুদ ইডেন টেস্টের প্রথম চার দিনের টিকিট শেষ : গাঙ্গুলী সরকার টেনিসকে যথাযথ গুরুত্ব দিচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী ইরানের বিক্ষোভে নিহত ১০৬ : অ্যামনেস্টি টিকাটুলির রাজধানী সুপার মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

কারাগার থেকে আদালতে স্যামসাং প্রধান

প্রকাশ: রবিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ , ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : তথ্য-প্রযুক্তি,

মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: ছোট একটি কক্ষে নেই কোনো আসবাব। সেই কক্ষে স্যুট-টাই পরেই একটি রাত কাটাতে হলো দক্ষিণ কোরিয়ার অন্যতম ব্যবসায়িক গ্রুপ স্যামসাং এর প্রধান জে ইয়ং লি কে। আর শনিবার দুপুরে স্যুট-টাই এবং দুহাতে হাতকড়া পরানো লি যখন আদালতে বেশকিছু প্রশ্নের সম্মুখীন হতে যাচ্ছেন, তখন দুপাশ থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তাকে ধরে রেখেছেন। আর সামনে আরও কিছু সদস্য পথ দেখিয়ে নিচ্ছেন।

গ্রেপ্তারের একদিন পরেই স্যামসাং প্রধান লি কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শনিবার আদালতে নেন নিরাপত্তা বাহিনী। এর আগে বুধবার লির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা হিসেবে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দেওয়া হবে কিনা তার রায় দিয়েছিলেন আদালত। এর পর শুক্রবার জে ইয়ং লিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর দুইটা ২০ মিনিটে জে ইয়ং লি কে আদালতে হাজির করা হয়। বিচার বিভাগের একটি ভ্যানে করেই তাকে আদালতে নেওয়া হয়। প্রসিকিউটারের মুখপাত্র গণমাধ্যমকে জানান, অভিযুক্ত লি কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই আদালতে নেওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদে নতুন আরও তথ্য পাওয়া যাবে এবং এর মাধ্যমে তদন্ত কাজ আরও সহজ হবে বলে বলেছেন।

তিনি জানিয়েছেন, একটি সংযুক্ত টয়লেটসহ ছোট কক্ষে থাকছেন লি। যেখানে ব্যবহারের মতো তেমন কোনো আসবাব নাই। ৪৮ বছর বয়ষ্ক জে ইয়ং লি ৬ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার পরিমাণ সম্পদের মালিক। বিশ্বের অন্যতম মোবাইল ফোন স্যামসাং, ফ্ল্যাট টিভি এবং চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং গ্রুপের প্রধান। এর আগে স্যামসাং প্রধান জে ইয়ংকে গ্রেপ্তার আবেদন করেছিলেন দক্ষিণ কেরিয়ার প্রসিকিউটর। সেখানে কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল,জে ইয়ং অর্থ আত্মসাৎ, ঘুষ ও দুর্নীতির সঙ্গে  জড়িত।

২০১৬ সালে দেশটির অভিসংশিত প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হেই এর আটক বন্ধু চো সুন সিলের একটি ফাউন্ডেশন ও কোম্পানিকে দুটি প্রতিষ্ঠানের একীভূতকরণে ন্যাশনাল পেনশন ফান্ডের সমর্থন পাওয়ার জন্য প্রায় ২৫ দশমিক ৪৬ বিলিয়ন ডলার ঘুষ দেয় স্যামসং।

দক্ষিণ কোরিয়ার অর্থনীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ দখল করে আছে স্যামসাং গ্রুপ। কেননা প্রতিষ্ঠানটির রাজস্বের দিক থেকে দেশটির জিডিপিতে অবস্থান পঞ্চম।

আপনার মতামত লিখুন

তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ