সোমবার-৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং-১৬ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৬:৪৫, English Version
উমাদিনী ত্রিপুরার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক ডোমার পৌর শহরে চলছে জীবাণু নাশক ছিটানো কার্যক্রম। লালপুরে দুস্থদের মাঝে নিজ উদ্যোগে খাবার সামগ্রী বিতরণ পার্বতীপুরে করোনা ঠেকাতে আদা, লং, কালিজিরার চা খাওয়ার গুজব! চাঁপাইনবাবগঞ্জে খেটে খাওয়া গরীব দুঃখি মানুষের মাঝে চাল বিতরণ শুরু ‘করোনা চিকিৎসায় ২৫০ ভেন্টিলেটর প্রস্তুত’ সংবাদপত্র সংক্রান্ত সকল ধরনের কাজ পরিচালনায় কোনো বাধা নেই

আগামীকাল থেকে ডোমারে মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা যাচাই শুরু

প্রকাশ: শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০১৭ , ১১:২৯ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : মুক্তিযুদ্ধ,রংপুর,
মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: আজ শনিবার নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ের কার্যক্রম শুরু শুরু হবে যা চলবে ৪ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত। মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিংয়ের মাধ্যমে প্রচার করে সকল মুক্তিযোদ্ধাকে প্রয়োজনীয় কাগজসহ উপজেলা মিলনায়তনে সকাল ১০ ঘটিকায় উপস্থিত থেকে যাচাই-বাছাই কমিটিকে সহযোগীতার আহবান জানিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্য সচিব সাবিহা সুলতানা জানান, আগামীকাল শনিবার থেকে শুরু হবে যাচাই-বাছাই কার্যক্রম। যাচাই-বাছাই কার্যক্রমে একাধিক ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে অভিযোগের পাশাপাশি দুইজন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার নামের বিরুদ্ধেও অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, কেন্দ্রিয় কমান্ড কাউন্সিল থেকেও তালিকা দেয়া হয়েছে। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ নূরন্নবী জানিয়েছেন আগামীকাল ডোমার উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই অনুষ্ঠিত হবে।

মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের কার্যক্রমকে ঘিরে ৯২জন ব্যাক্তি নতুনভাবে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্তের আবেদন করেছেন। এদিকে প্রায় ৯০ জন ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার নাম তালিকায় এসেছে বলে একাধিক মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অভিযোগ করেছেন। সাবেক কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা আমিনার রহমান, চিকনমাটি ধনীপাড়ার আব্দুস সোবহানের ছেলে মোঃ মোস্তাকিন, মটুকপুর গ্রামের সামসুল হকের ছেলে মোসলেম উদ্দিনসহ ৫১ জন ব্যক্তির নাম উল্লেখ করে অভিযোগ করেছেন মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির কাছে।
অভিযোগে তিনি জানিয়েছেন, এই সকল ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার নাম প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত না করার জন্য তিনি আবেদন জানিয়েছেন। অপরদিকে মুক্তিযোদ্ধা জুলফিকার আলী ও সাবেক কমান্ডার আমিনার রহমান মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির কাছে আব্দুল বারী ও মকবুল হোসেনের নাম শহীদ মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দেয়ার দাবী জানিয়েছেন।
অভিযোগে তিনি জানান, ওই দুই ব্যক্তি অসাদুপায়ের মাধ্যমে ২০০৩ সালের গেজেটে শহীদ মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করেন। পরবর্তীতে ২০০৫ ও ১০ সালের গেজেটে তাদের নাম বাদ দেয়া হয় সরকারী তালিকা থেকে। যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতি হিসেবে আছেন সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন সরকার, সদস্য সচিব হিসাবে রয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিহা সুলতানা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ নুরন্নবী, ইলিয়াস হোসেন ও সমশের আলী।
আপনার মতামত লিখুন

মুক্তিযুদ্ধ,রংপুর বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ