রবিবার-২৯শে মার্চ, ২০২০ ইং-১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১১:২১, English Version
উমাদিনী ত্রিপুরার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক ডোমার পৌর শহরে চলছে জীবাণু নাশক ছিটানো কার্যক্রম। লালপুরে দুস্থদের মাঝে নিজ উদ্যোগে খাবার সামগ্রী বিতরণ পার্বতীপুরে করোনা ঠেকাতে আদা, লং, কালিজিরার চা খাওয়ার গুজব! চাঁপাইনবাবগঞ্জে খেটে খাওয়া গরীব দুঃখি মানুষের মাঝে চাল বিতরণ শুরু ‘করোনা চিকিৎসায় ২৫০ ভেন্টিলেটর প্রস্তুত’ সংবাদপত্র সংক্রান্ত সকল ধরনের কাজ পরিচালনায় কোনো বাধা নেই

২০২৫ সালে আইটি শিল্প রপ্তানি  ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হবে ………..আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

প্রকাশ: রবিবার, ১৫ মার্চ, ২০২০ , ১০:৩১ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : তথ্য-প্রযুক্তি,

এমএন২৪.কম ডেস্ক : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন
২০২৫ সালে আইটি শিল্প রপ্তানি  ৫ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হবে। তিনি বলেন, এখন আইটি খাত বিলিয়ন ডলারের ইন্ডাস্ট্রি। ২০১৮ সালেই আমরা ১ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি বাজার পার করেছি। আগামী ৫ বছরে ৫ বিলিয়ন ডলারের বাজার হবে এ খাত।
প্রতিমন্ত্রী  রাতে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেড মিলনায়তনে কালের কণ্ঠ ও সিটিও ফোরাম আয়োজিত ‘দেশীয় কোর ব্যাংকিং সফটওয়্যার শিল্পের উন্নয়নে করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।
জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রযুক্তির কল্যাণে ব্যাংকিং সেবা বদলে গেছে।
এখন টুইটার, ভাইভার ও হোয়াটসঅ্যাপেও ব্যাংকিং কার্যক্রম হচ্ছে। পুরো ব্যাংকিং সেবা এখন হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। এখন দেশীয় আইটি উদ্যাক্তাদের আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে কাজ করার সময় এসেছে। যাতে কর্মক্ষেত্রে না গিয়েও কাজ চলে।
পলক বলেন, গত ১১ বছরে ৫৬ লাখ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী থেকে ১০ কোটিতে উন্নীত হয়েছে। শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্ব ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের সুস্পষ্ট নির্দেশনায় এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের মূল স্থপতি সজীব ওয়াজেদ জয়। তিনি বলেন, ইন্টারনেট যদি জনগণের কাছে পৌঁছে না দিতে পারতাম, তাহলে আইসিটি খাতের এতটা অর্জন সম্ভব হতো না।
জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আমরা দেশীয় সফটওয়্যার কোম্পানিকে সহযোগিতা করবো। এজন্য যা করা দরকার, সবই করা হবে। ২০২৪ সাল পর্যন্ত আইটি খাতের সকল ট্যাক্স মওকুফ করা হয়েছে। কেউ সফটওয়্যার বা হার্ডওয়ার রপ্তানি করলে রপ্তানি করলে তাদের ১০ শতাংশ প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে । আমরা এ খাতে মাত্র হাঁটা শুরু করেছি। অনেক দূর যেতে হবে। দেশি সফটওয়্যার ব্যবহারে কর্পোরেট ট্যাক্স যাতে কমিয়ে দেওয়া হয় এবং বিদেশি সফটওয়্যার ব্যবহারে যাতে ট্যাক্স বাড়িয়ে দেওয়া হয়, সেজন্য প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলে তিনি জানান।
গোলটেবিল আলোচনায় অন্যদের মধ্যে অংশ নেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. কায়কোবাদ, সীমান্ত ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোখলেসুর রহমান, সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি তপন কাম্তি সরকার, শাহজালাল ইসলামি ব্যাংকের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাঈন উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ ব্যাকের মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ ইসহাক মিয়া,
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বেসিসের পরিচালক ও ফ্লোরা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক  মোস্তফা রফিকুল ইসলাম।      পি আই ডি

আপনার মতামত লিখুন

তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ