বুধবার-১লা এপ্রিল, ২০২০ ইং-১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৩:০৭, English Version
মশার গান আর শুনতে চাই না : মেয়রদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী কোভিড-১৯ (করোনা ভাইরাস) সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন গাইবান্ধায় শ্রমজীবী মানুষ গুলো ব্যাপকভাবে বিপাকে সাধারণ ছুটি ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ল চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে খাবার তুলে দিলেন লেনিন প্রামাণিক চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ পার্বতীপুরের পত্রিকা বিক্রেতাদের হাতে তুলেন দিলেন খাদ্য সামগ্রী- উপজেলা সমাজসেবা অফিসার

ছাতকের চাউলীর হাওর ফসল রক্ষা বাঁধের কাজ পরিদর্শনে ইউএনও

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১২ মার্চ, ২০২০ , ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : সারাদেশ,সিলেট,

ছাতক সংবাদদাতা :
ছাতকের সিংচাপইড় ইউনিয়নের চাউলীর হাওর প্রকল্পের ফলস রক্ষা বাঁধের ভাঙ্গা অংশ মেরামত কাজ পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম কবির। প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি কর্তৃক কাজের অনিয়ম ও দূর্নীতি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ প্রসঙ্গে পিআইসি-৩ ও পিআইসি-৪ এর বিরুদ্ধে সম্প্রতি পৃথক দুটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে গত মঙ্গলবার দুপুরে ফলস রক্ষা বাঁধের কাজ পরিদর্শনে যান ছাতক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ গোলাম কবির। দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত তিনি বেড়িবাঁধগুলোর কাজ পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনে তিনি ফিতা দিয়ে কাজের দৈর্ঘ্য ও প্রস্ত এবং বাঁধের উপর কতটুকু পরিমাণে মাটি পড়েছে কুদাল দিয়ে কুঁড়ে আলামত সংগ্রহ করেন। এসময় তিনি বাঁধের উপর পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘাঁস লাগানো, বাঁধ সংস্কারের পরামর্শ দিয়ে বাঁধের উপর সৃষ্ট ফাঁটলগুলোর কারণে যাতে কোন ধরণের ক্ষতি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য পিআইসির সভাপতি ও সদস্য সচিবসহ দায়িত্বশীলদের নির্দেশ প্রদান করেন। কৃষকরা ফসল তুলার আগ পর্যন্ত বাঁধের সকল ধরণের সংস্কার কাজ অব্যাহত থাকবে এবং সফল রক্ষা বাঁধে কোন ধরণের অনিয়ম হলে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা বলেও তিনি সতর্ক করেন।
জানা যায়, উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের চাউলীর হাওর ফসল রক্ষা বাঁধগুলো সংস্কারের জন্য দুটি পিআইসির মাধ্যমে ৩০লাখ ১৩হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রকল্পের ৪নং পিআইসির সভাপতি ইউপি সদস্য আবদুল জলিল ও সদস্য সচিব আজমান আলীর আওতায় আবদুল করিমের বাড়ি থেকে মুনাফ আলীর বাড়ির পশ্চিম পর্যন্ত ৮৪২ মিটার, প্রকল্পের ৩নং পিআইসির সভাপতি উপমেশ চন্দ্র সূত্রধর ও সদস্য সচিব নূর আলমের মাধ্যমে আসলমপুর গ্রামের পশ্চিমে চলিতা গাছের তলা থেকে ১৪৪ মিটার, সিরাজগঞ্জ বাজার খালের মুখে ১৪ মিটার এবং গহরপুরের খালের মুখে ৩০মিটার ফসল রক্ষা বাঁধ প্রকল্প বাস্তবায়নের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এসব ফসল রক্ষা বাঁধের কাজ এখন প্রায় শেষ পর্যায়ে। গত ৫ মার্চ ওই দুই প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি পিআইসি-৩ ও পিআইসি-৪ এর বিরুদ্ধে কাজের অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ এনে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ প্রসঙ্গে সৈদেরগাঁও গ্রামের কাজী এনামুলহকসহ প্রায় শতাধিক লোকের সাক্ষরিত একটি লিখিত অভিযোগ সিলেট বিভাগীয় কমিশনার বরাবরে প্রদান করা হয়। পরে গত ৯ মার্চ মিজানুর রহমান, সিমন মিয়া, কাজী এনামুল হক সাক্ষরিত পৃথক আরো একটি লিখিত অভিযোগ সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে দায়ের করা হলে অভিযোগটি যাচাই করে দেখার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয় হয়।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম কবির জানান, চাউলীর হাওরের আবদুল করিমের বাড়ি থেকে মুনাফ আলীর বাড়ির পশ্চিম পর্যন্ত ৪ নং প্রকল্প এবং আসলমপুর গ্রামের চলিতা গাছের তলা, সিরাজগঞ্জবাজার খালের মুখ ও গহরপুর গ্রামের খালের মুখ পর্যন্ত ৩নং প্রকল্পের হাওর ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের কাজ সন্তোষজনক।

আপনার মতামত লিখুন

সারাদেশ,সিলেট বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ