বুধবার-৮ই এপ্রিল, ২০২০ ইং-২৫শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৭:৫৫, English Version
ঠাকুরগাঁওয়ে অসহায় মানুষদের পাশে যুবলীগ নেতা আপেল প্রাথমিকসহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হচ্ছে ঈদ পর্যন্ত ঠাকুরগাঁওয়ে ঠেঙ্গামারা এনজিওর কিস্তি আদায়, ম্যানেজারসহ আটক ১৫ রাজারহাটে করোনা সন্দেহে তিন জনের নমূনা পরীক্ষাগারে প্রেরণ টেস্ট বাড়ানোর জোর তাগিদ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ফকিরহাটে অজ্ঞাত বৃদ্ধের মৃতদেহ উদ্ধার লালমনিরহাট এসিল্যান্ড অফিসের সহকারী কর্তৃক স্বামী ও স্ত্রীকে মারপিটসহ শ্লীলতাহানীর অভিযোগ

দুই মন্ত্রী যা বললেন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ নিয়ে

প্রকাশ: সোমবার, ৯ মার্চ, ২০২০ , ৪:৩৭ অপরাহ্ণ , বিভাগ : শিক্ষা,

এমএন২৪.কম ডেস্ক : দুই মন্ত্রী যা বললেন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ নিয়ে ।বাংলাদেশে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর ফাঁস হওয়ার পর থেকেই আতঙ্ক আর উদ্বেগ ভর করেছে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের মধ্যে। এর ফলে অভিভাবকরাও দাবি তুলেছেন দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার।

ইউনেস্কোর তথ্য অনুসারে, করোনা আতঙ্কে ৪ মার্চ পর্যন্ত তিন মহাদেশের ২২টি দেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। সংস্থাটি বলছে, ১৩টি দেশের সব স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নয়টি দেশ করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে স্থানীয়ভাবে স্কুল বন্ধ করেছে।

এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। আজ সোমবার রাজধানীর এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন শিক্ষা উপমন্ত্রী।

এসময় করোনা আতঙ্কে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার মতো কোনো পরিস্থিতিই তৈরি হয়নি। তবুও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মতো এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

অন্যদিকে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধে এখনই তারা কিছু ভাবছেন না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। তিনি বলেন, ‘আমরা সব ধরনের সতকর্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করব, তবে এখনই প্রাথমিক স্কুল বন্ধের কথা ভাবছি না।’

প্রসঙ্গত, রোববার (৮ মার্চ) বিকেলে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানায় রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

ওই ব্রিফিং আইইডিসিআর পরিচালক পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিন রোগী শনাক্ত হলেও এটা দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে না। কারণ আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি, রোগীকে দ্রুত শনাক্ত করে তাকে আইসোলেট করেছি।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশের স্কুল কলেজ বন্ধ করে দেয়ার মতো কোনো পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। এমনকি প্রত্যেকের মাস্ক পরে ঘুরে বেড়ানোরও কোনো দরকার নেই।’   সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল

জানা গেছে, বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দু’জন ইতালির দুটি শহর থেকে সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন। আর তাদের সঙ্গে থেকে তৃতীয়জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত সবাই একই পরিবারের সদস্য। তাদের বয়স বিশ থেকে পয়ত্রিশ বছরের মধ্যে।

গত বছরের ডিসেম্বর মাসে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে উৎপত্তি হয় করোনাভাইরাসের। পরে চীনের অন্যান্য প্রদেশ এবং বিশ্বের নানা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এর আগে ভারত ও পাকিস্তানেও করোনায় আক্রান্ত রোগীর খবর পাওয়া যায়। কিন্তু বাংলাদেশে রোগী শনাক্ত হওয়ার ঘটনা এই প্রথম।

আপনার মতামত লিখুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ