শুক্রবার-১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং-২৭শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১:৫৪, English Version
যে কারণে দেশে ফেরার ঝুঁকি নেন খুনি মাজেদ করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক! ৯বছরের শিশুকে ধর্ষনে অভিযোগে রক্তাক্ত অবস্থায় থানায় মায়ের আহাজারি করোনা ভাইরাস এর কারনে পার্বতীপুরের কাচা বাজার কয়েকটি মাঠে বসার প্রস্তাব। সৈয়দপুরে এক যুবক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হাকিমপুরে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে আটা বিতরণ পবিত্র শবে বরাতে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা

লালমনিরহাটে সহকারী শিক্ষিকা অপহরণ ৩দিনেও উদ্ধার হয়নি

প্রকাশ: রবিবার, ৮ মার্চ, ২০২০ , ২:৪৭ অপরাহ্ণ , বিভাগ : রংপুর,সারাদেশ,

মো: লাভলু শেখ, লালমনিরহাট, সংবাদদাতা : লালমনিরহাটে খায়রুল আলম সবুজ পাটোয়ারী (৪০) নামে এক শিক্ষক একই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকাকে অপহরন করেছে। অপহৃতা শিক্ষিকার স্বামী মাহাবুব রহমান মিঠু বাদী হয়ে লালমনিরহাট সদর থানায় প্রধান শিক্ষক ও অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষকসহ ৪জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক খায়রুল আলম সবুজ পাটোয়ারী সদর উপজেলার পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নের খোরাগাছ গ্রামের আবুল কাশেম পাটোয়ারীর ছেলে। একই এলাকার উমাপতি হর নারায়ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। জানা গেছে, উপজেলার উমাপতি হর নারায়ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক খায়রুল আলম সবুজ পাটোয়ারী দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন ভাবে উত্ত্যাক্ত করে আসছেন তার সহকর্মী একই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা এক সন্তানের জননী রিনা বেগম (৩০) কে। বিষয়টি রিনা বেগম তার স্বামীকে অবগত করলে তাকে সতর্ক করা হয়। কিন্তু এতেও আচরন সংশোধন না করে গত ২৪ ফেব্রুয়ারী বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাঞ্জুমা আক্তারের সহায়তায় সহকারী শিক্ষিকা রিনা বেগমকে ফিন্নির সাথে চেতনানাশক ঔষধ খাওয়ান খায়রুল আলম সবুজ পাটোয়ারী। এতে অসুস্থ হলে তার স্বামী মাহাবুর রহমান মিঠু স্ত্রীকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে চিকিৎসা করান। গত বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যায় বিদ্যালয় থেকে ফিরে স্বামী বাজারে অবস্থান করার সুবাদে বাড়িতে একা ছিলেন শিক্ষিকা রিনা বেগম। এ সুযোগে লম্পট শিক্ষক খায়রুল আলম সবুজ পাটোয়ারী ওই বাড়িতে গিয়ে পুনরায় চেতনানাশক ঔষধ সেবন করিয়ে শিক্ষিকার বাড়ির স্বর্নালঙ্কার, নগদ পৌনে চার লাখ টাকা ও শিক্ষিকার যাবতীয় কাগজপত্রসহ রিনা বেগমকে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পারি জমিয়েছে। তবে অপহরণের ৩ দিন অতিবাহিত হলেও উদ্ধার হয়নি সহকারী শিক্ষিকা। লালমনিরহাট সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ইন্সপেক্টর তদন্ত) এরশাদুল হক বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত চলছে। তবে এখন পর্যন্ত উভয় শিক্ষকের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ