শুক্রবার-১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং-২৭শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১:২৬, English Version
যে কারণে দেশে ফেরার ঝুঁকি নেন খুনি মাজেদ করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক! ৯বছরের শিশুকে ধর্ষনে অভিযোগে রক্তাক্ত অবস্থায় থানায় মায়ের আহাজারি করোনা ভাইরাস এর কারনে পার্বতীপুরের কাচা বাজার কয়েকটি মাঠে বসার প্রস্তাব। সৈয়দপুরে এক যুবক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হাকিমপুরে অসহায় ও দরিদ্রদের মাঝে আটা বিতরণ পবিত্র শবে বরাতে প্রধানমন্ত্রীর বার্তা

রাজারহাটে বালু মহাল না থাকায় প্রায় ১০০প্রকল্পের অর্ধশতাধিক কোটি টাকার কাজ বন্ধ

প্রকাশ: বুধবার, ৪ মার্চ, ২০২০ , ৪:৩৩ অপরাহ্ণ , বিভাগ : রংপুর,সারাদেশ,

ইব্রাহিম আলম সবুজ,রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) সংবাদদাতা : দেশের বিভিন্ন স্থানে ড্রেজার মেশিন চালু থাকলেও রাজারহাট উপজেলার সকল ড্রেজার মেশিন বন্ধ থাকায় তীব্র বালু সংকটের কারনে অর্ধশতাধিক কোটি টাকার প্রায় ১০০প্রকল্পের উন্নয়ন কাজ বন্ধ রয়েছে। নির্ধারিত বালু মহাল না থাকায় বিপাকে পড়েছেন গৃহ-নির্মাণকারী ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো। উপজেলা প্রশাসন ৯টি স্থানে বালু মহাল স্থাপনের প্রস্তাবনা পাঠালেও তা এখনো কার্যকর হয়নি।
জানা গেছে,সরকারী নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে অর্ধশতাধিক ড্রেজার মেশিন দিয়ে ব্যবসায়ীরা যত্রতত্র বালু উত্তোলন ও বিক্রি করে আসছিল। রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাঃ যোবায়ের হোসেন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বেশকিছু ড্রেজার মেশিনের সরঞ্জামাদি পুড়িয়ে ধ্বংস করে দেন। এরপর মাসাধিককাল থেকে উপজেলার গ্রামগঞ্জে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ রয়েছে। ফলে পাশর্^বর্তী জেলা ও উপজেলা থেকে বালু আনায়নে পরিবহন ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় উপজেলার বিভিন্ন স্থানে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে।
উপজেলা এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা গেছে,বর্তমানে উপজেলা সদরের রাজারহাট ইউনিয়নে ১কোটি ৭২লক্ষ ৯০হাজার টাকায় ২২৫০মিটার,২কোটি ৪৪লক্ষ ৯১হাজার টাকায় ৩২৪৪ মিটার,ঘড়িয়ালডাঁঙ্গা ইউনিয়নে ৮৬লক্ষ ৮২হাজার টাকায় ১৩৭২ মিটার,৬৭লক্ষ ৩৮হাজার টাকায় ১০২৮মিটার,৮৬লক্ষ৮২হাজার টাকায় ১৩২৭মিটার, ছিনাই ইউনিয়নে ৬২লক্ষ ১৮হাজার টাকায় ১০০০মিটার,উমর মজিদ ইউনিয়নের রাজমাল্লীর হাটে ৬৫লক্ষ ২১হাজার টাকায় ১৪৬২মিটার,চাকিরপশার ইউনিয়নের মিলেরপাড় থেকে বিদ্যানন্দ পর্যন্ত ৭৪ লক্ষ ৭৭হাজার টাকায় ১০৬৮মিটার এবং বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের কালিরহাট থেকে বিজলীর বাজার পর্যন্ত ১কোটি ৬০লক্ষ টাকায় ১৫০০মিটার সহ উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আনুমানিক ৬০/৭০হাজার মিটার রাস্তায় আইআরআইডিপি,আরডিপি,জিওবি এবং পল্লী সড়ক ও কালভার্ট মেরামত কর্মসূচীর আওতায় বিভিন্ন প্রকল্পে অর্ধশতাধিক কোটি টাকার রাস্তা পাকা করন প্রকল্পের কাজ চলছে। তবে স্থানীয় পর্যায়ে বালু সরবরাহ না থাকায় অধিকাংশ রাস্তার কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গৃহ-নির্মাণকারী ব্যক্তিরা স্থানীয় বালু পাওয়া না যাওয়ায় চরম বিপাকে পরেছেন।
তবে বালুর সংকট নিরসনে উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের জুয়কুমোর,ঘড়িয়ালডাঁঙ্গা ইউনিয়নের বুড়িরহাটহাট ও সরিষাবাড়ি,চাকিরপশার ইউনিয়নের শিবের দাহ ও পাঠানহাট, বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের চতুরা ও কালিরহাট এবং নাজিমখান ইউনিয়নের সোমনারায়ন ও ঠুটাপাইকর নামক স্থানে পৃথক ৯টি স্থানে বালু মহাল স্থাপনের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাবনা প্রেরন করা হলেও কায়কর হয়নি। কবে নাগাদ হতে পারে তাও জানাতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
এদিকে যত্রতত্র বালু উত্তোলন বন্ধ হওয়ার পর তীব্র বালু সংকটের সুবাদে একটি দালালচক্র রাজারহাটের বিভিন্ন স্থানে ড্রেজার মেশিনগুলো পূনঃরায় চালু করে দেয়ার নামে জনৈক কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে প্রতি ড্রেজার মালিকের কাছে এক লক্ষ হারে টাকা দাবীর অভিযোগ উঠেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ড্রেজার মালিক এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।
উপজেলা এলজিইডি’র প্রকৌশলী আবু তাহের মোঃ সফি বালু সংকটের সত্যতা স্বীকার করে জানান,বালুর অভাবে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে প্রায় অর্ধশতাধিক কোটির টাকার উন্নয়ন কাজ বন্ধ রয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাঃ যোবায়ের হোসেন জানান,অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ থাকায় উন্নয়ন কাজ ব্যহত হওয়ার হতে পারে না,কারন এষ্টিমেটে বালুর খরচ ধরা থাকে। এছাড়া কেউ প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বন্ধ ড্রেজার চালুর জন্য টাকা দাবী করে থাকলে সেটি কোন প্রতারক চক্রের কাজ হতে পারে বলে জানান।
রাজারহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদ ইকবাল সোহরাওয়ার্দী বাপ্পী বালু উত্তোলন বন্ধ থাকায় উন্নয়ন কাজ বাঁধাগ্রস্থ হওয়ার সত্যতা স্বীকার করে জানান, প্রস্তাবিত বালু মহালগুলো অনুমোদন হয়ে আসলে সংকট নিরসন হবে এবং রাজারহাটবাসী উপকৃত হবে।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ