শনিবার-৪ঠা এপ্রিল, ২০২০ ইং-২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১১:১৮, English Version
নশিপুর ঘোষ পাড়া ওয়ার্ডের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গ্রাম পুলিশের সচেতনা অভিযান শিবগঞ্জ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ঠাকুরগাঁওয়ে সিগারেটের প্যাকেট খুলেই মিলল টিস্যু, প্রতারকের কারাদণ্ড রাজারহাটে ১জনের ৫০হাজার টাকা জরিমানা ফুলবাড়ীতে ডেকোরেটর শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ॥ গোদাগাড়ীতে গলায় ফাঁস দিয়ে এক নারীর আত্মহত্যা ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সাংবাদিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

বান্দরবানে আওয়ামী লীগ নেতা হত্যায় বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা

এমএন২৪.কম ডেস্ক : বান্দরবানে সশস্ত্র পাহাড়ি সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে আওয়ামী লীগ নেতা হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও প্রতিবাদ সভা করেছে জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন।  আজ রবিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় শহরের বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের কয়েকশত নেতাকর্মী বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন।  প্রতিবাদ সভায় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা বক্তব্যে বলেন, খুনি সন্তু লারমার নেতৃত্বদানকারী জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) এর সন্ত্রাসীরা আওয়ামী লীগে নেতৃত্বশূন্য করার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের হত্যা করার জন্য তালিকা প্রণয়ন করেছেন।  তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় রাজবিলা ইউনিয়নের জামছড়ি বাজারে হানা দিয়ে এলোপাতাড়ি গুলি করে রাজবিলা ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি বাচনু মারমাকে খুন করা হয়। গোলাগুলির শব্দে হার্ট অ্যাটাক করে মারা যায় আরো এক অসহায় বৃদ্ধ। এই ঘটনায় আওয়ামী লীগে ও যুবলীগের নেতাকর্মী আহত হয়েছে আরো ৫ জন।  প্রতিবাদ সভায় আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর অভিযোগ করে বলেন, পাহাড়ের সন্ত্রাসীদের মাত্রা দিন দিন ছাড়িয়ে যাচ্ছে। পাহাড়ের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।  এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, পাহাড়ের অস্ত্রধারী সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বান্দরবানের শান্তি সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য ও আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব শূন্য করার জন্য এসব হত্যাকা- চালিয়ে আসছে। প্রতিবাদ সভায় জেলা নেতৃবৃন্দরা প্রশাসন ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে আরো বলেন, আমরা আইন হাতে নিতে চাই না, সন্ত্রাসীদের’ খুঁজে বের করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে হবে আপনাদের। অন্যথায় আমরা আইন হাতে নিতে বাধ্য হব। উল্লেখ্য, পাহাড়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা দিন দিন বেপরোয়া হয়ে পড়েছে। তারা এ পর্যন্ত নিরহ লোকসহ হত্যা করেছে অন্তত ১০ জন নেতাকর্মীকে।  তরই ধারাবাহিকতায় গত শনিবার সন্ধ্যায় অস্ত্রসহ ৮ থেকে ১০ জনের একটি সশস্ত্র পাহাড়ী সন্ত্রাসী দল রাজবিলা ইউনিয়নের জামছড়ির মুখ পাড়ার বাজারে এসে কয়েকটি দোকানে এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই বাচনু মারমা মারা যায়। এঘটনায় আহত হয়েছে আরো ৫ জন। পরে ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে স্ট্রোক করে মারা যায় আরো একজন বৃদ্ধ। আহতদের সেনাবাহিনী ও পুলিশ উদ্ধার করে বান্দরবান সেনানিবাসে সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।  এ ঘটনায় প্রতিবাদে পরে বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন গতকাল শনিবার রাত ৮টায় বিক্ষোভ মিছিল করেন।  পরে আজ রবিবার সকাল ১১টায় বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেন জেলা আওয়ামী লীগ।

আপনার মতামত লিখুন

চট্রগ্রাম,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ