মঙ্গলবার-৭ই এপ্রিল, ২০২০ ইং-২৪শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১২:১২, English Version
প্রাথমিকসহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ৩০ মে পর্যন্ত! খানসামায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে ব্র্যাক নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে নিভে গেল গৃহবধূ নিশাত’র প্রাণ সিংড়া প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলকের উদ্যোগে আগুনের হাত থেকে বেচে গেল কয়েক টি পরিবার করোনাভাইরাসে মৃত ব্যক্তিকে নির্ভয়ে দাফন-কাফন করুন করোনাভাইরাস মোকাবিলার জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগের ১৬ কোটি টাকা অনুদান দেশের কোনো মানুষ না খেয়ে থাকবে না : হুইপ ইকবালুর রহিম

আমি নই, কর্মীরা হতাশ: নাছির

এমএন২৪.কম ডেস্ক : চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নগরপিতা পদে আবারও নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। নগর আওয়ামী লীগের এই সাধারণ সম্পাদক দল থেকে মনোনয়নও চেয়েছিলেন। কিন্তু পাননি। আর এই মনোনয়ন বঞ্চনার খবর ঢাকা থেকে বয়ে চট্টগ্রামে নিয়ে গিয়ে নাছির বলেছেন- তিনি হতাশ নন। তবে কর্মীদের মধ্যে কিছুটা ইমোশন আছে।

নাছির শনিবার ঢাকায় গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে সাক্ষাৎকার দেন। এ জন্য তিনি চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় আসেন। কিন্তু দল তাকে বাদ দিয়ে নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরীকে মেয়র পদে মনোনয়ন দেন।

এই খবরে স্বভাবতই হতাশা ও ক্ষোভ ভর করছে নাছির শিবিরে। একদিন ঢাকায় কাটিয়ে সোমবার বিকেলে চট্টগ্রামে ফিরে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি নগরীর নজির আহমদ চৌধুরী সড়কের বাড়িতে যান নাছির।সেখানে আগে থেকে নাছিরের কয়েকশ সমর্থক জড়ো হয়ে ছিলেন। নাছির মনোনয়ন না পাওয়ায় তাদের চোখেমুখে ছিল হতাশার ছাপ।আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘মেয়রের পদ বড় না, রাজনীতিটাই বড়। কেউ যদি বলত তিনি মেয়র হতে চান, আমি ছেড়ে দিতাম। কিন্তু আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে দলই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। শতভাগ মিথ্যাকে প্রতিষ্ঠিত করার কোনো মানে হয় না। মনে রাখতে হবে, আমরা অনেক আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে তৈরি হয়েছি। আরেকজন আ জ ম নাছির তৈরি করতে অনেক বছর সময় লাগবে।’মনোনয়ন না পাওয়ায় হতাশ কিনা- জানতে চাইলে মেয়র নাছির বলেন, ‘বিশ্বাস করেন, মেয়র পদ না পেয়ে আমি কোনোভাবে হতাশ, বিক্ষুব্ধ বা নিরাশ হয়নি। তবে একটি বিষয় আমাকে কষ্ট দিয়েছে। যে সংগঠনের জন্য জীবন-যৌবন দিয়েছি, তারাই আমাকে বঙ্গবন্ধুর খুনির দোসর বানাতে উঠেপড়ে লেগেছে। অথচ আমি প্রথম পরিকল্পনা করে বঙ্গবন্ধুর খুনি কর্নেল (অব.) রশিদের সভায় হামলা চালিয়েছিলাম। ফ্রিডম পার্টির নেতাকর্মীদের খুঁজে বের করে চট্টগ্রাম থেকে তাড়িয়ে ছিলাম। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে ৭৬ সালের জানুয়ারি মাসে সর্বপ্রথম আমরা ৫-৬ জন মিছিল করেছিলাম।’এসময় সমর্থকদের উদ্দেশে মেয়র নাছির বলেন, ‘দল যাকে মনোনয়ন দিয়েছে, আমি তার পক্ষে কাজ করব। রেজাউল করিমকে বিজয়ী করতে আমি আন্তরিকভাবে চেষ্টা করব। নিজে প্রার্থী হলে যেমন কাজ করতাম, তেমনি তার জন্যও কাজ করব।’এ সময় নাছিরের অনুসারীরা স্লোগান দিচ্ছিল- ‘নেতা তোমার ভয় নাই, রাজপথ ছাড়ি নাই’, ‘চলছে লড়াই চলবে’, ‘আমার সবাই নাছির সেনা, ভয় করি না বুলেট-বোমা’।নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মেয়র নাছির আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে জীবনবাজি রেখে যেভাবে কাজ করতে হয় সেভাবে করতে হবে।’

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিতরণের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজ দলের কর্মীরাই একটি ছবি প্রকাশ করেন। এই ছবি প্রকাশ করে প্রচারণা চালানো হয়, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত এক আসামির পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মেয়র নাছিরের দীর্ঘদিন ব্যবসায়িক ও ব্যক্তিগত সম্পর্ক আছে।

আপনার মতামত লিখুন

চট্রগ্রাম,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ