বুধবার-১লা এপ্রিল, ২০২০ ইং-১৮ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১:০১, English Version
সাধারণ ছুটি ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ল চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে খাবার তুলে দিলেন লেনিন প্রামাণিক চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাবেক এমপি আব্দুল ওদুদের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ পার্বতীপুরের পত্রিকা বিক্রেতাদের হাতে তুলেন দিলেন খাদ্য সামগ্রী- উপজেলা সমাজসেবা অফিসার পলাশবাড়ীতে পৌরসভার উদ্যোগে জিবানুনাশক স্প্রে কার্যক্রম শিবগঞ্জেমৃত ব্যক্তির করোনা ভাইরাস ছিলনা ১৫ বাড়ী লক ডাউন প্রত্যাহার পলাশবাড়ীতে কর্মহীন ভাসমান বেদে পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন

পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপো পরিদর্শন করলেন ভারতীয় হাই কমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাশ

প্রকাশ: শনিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯ , ৫:১৫ অপরাহ্ণ , বিভাগ : রংপুর,সারাদেশ,

সোহেল সানী: ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ পাইপলাইন (আইবিএফপিএল) প্রকল্পের অগ্রগতি জানার জন্য ভারতের হাই কমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাশ আজ শুক্রবার দুপুর ২টায় বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) এর আওতাধীন পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপো পরিদর্শন করেন। তিনি প্রায় ১ঘন্টা সময় অতিবাহিত করেন পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপোতে। এসময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম, জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহনাজ মিথুন মুন্নী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু তাহের মোহাম্মদ সামসুজ্জামান, পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েল কোম্পানী লিমিটেড এই তিন ডিপো ইনচার্জ আযম খান ও পার্বতীপুর মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোখলেছুর রহমান। তার পরিদর্শনের সময় বিপিসির পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপোতে কোন সংবাদকর্মীকে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। এছাড়াও হাই কমিশনার নিজেও সংবাদকর্মীর সামনে কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি।
২০১৮ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারতের নুমালীগড় রিফাইনারি লিমিটেড থেকে ডিজেল আমদানি করার জন্য ১৩০ কিলোমিটার ইন্ডয়া-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ পাইপলাইন এর নির্মাণ কাজের যৌথভাবে উদ্ধোধন করেন বাংলাদেশ সরকারের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধান মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী।
পাইপলাইনের মাধ্যমে ডিজেল আমদানি সংক্রান্ত ক্রয়-বিক্রয় চুক্তিটি স্বারিত হয় ২০১৭ সালের ২২ অক্টোবর এবং ২০১৮ সালের ৯ এপ্রিল সমঝোতা স্মারক স্বারিত হয়।
জানা যায়, ৫২০ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৩০ কিলোমিটার পাইপলাইন ও কাষ্টডি ফোমিটার স্থাপন, ডেসপাস টার্মিনাল, সেকশনিং ভাল্ব স্টেশন, পাম্পিং স্টেশন, রিসিভ টার্মিনাল নির্মাণসহ বিভিন্ন অবকাঠামো, কারিগরি ও পূর্তকাজ সম্পাদন, স্কাডা ও টেলিকমিউনিকেশন সিস্টেম স্থাপন কাজ রয়েছে এর মধ্যে। প্রকল্পটির পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড, ভারত। এর বাস্তবায়ন সংস্থা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) ও ভারতের নুমালীগড় রিফাইনারি লিমিটেড। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের সময়সীমা ধরা হয়েছে ৩০ মাস। ১৩০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য পাইপলাইন এর মধ্যে ভারতের অংশে ০৫ কিলোমিটার ও বাংলাদেশ অংশে ১২৫ কিলোমিটার। পাইপলাইনের ব্যাস থাকবে ১০ ইঞ্চি। এ পাইপলাইনের মাধ্যমে বার্ষিক ১০ লাখ মেঃটন ডিজেল আমদানি করা হবে।
বর্তমানে আমদানি করা তেল চট্রগ্রাম বন্দরে জাহাজ হতে খালাসের পর চট্রগ্রাম ডিপোতে সঞ্চয় করে রাখা হয়। পরে কোস্টাল ট্যাংকের মাধ্যমে খুলনার দৌলতপুর ডিপোতে নেয়া হয়। সেখানে আনলোডের পর আবার রেলের ওয়াগনে আপলোড করে পার্বতীপুর রেলহেড অয়েল ডিপোতে আনা হয়। এ প্রক্রিয়ায় চট্রগ্রাম থেকে পার্বতীপুর ডিপোতে জ্বালানি সরবরাহে সময় লাগে প্রায় ৭দিন।
অন্যদিকে, ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ পাইপলাইন (আইবিএফপিএল) প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে ভারতের নুমালীগড় রিফাইনারি লিমিটেড থেকে জ্বালানি তেল সরবরাহ পেতে সময় লাগবে মাত্র কয়েক ঘন্টা।
এদিকে, বিপিসির একটি সূত্রে জানা গেছে, ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশীপ পাইপলাইনের ভারতীয় অংশের নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ অংশের ভূমি অধিগ্রহন সম্পন্ন হয়েছে। তবে পাইপলাইন স্থাপনের কাজ এখনো শুরু হয়নি।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ