সোমবার-৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং-২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৪:৫৯, English Version
আর্চারিতে এবার সোনা জিতলেন সোমা বিজয়ীদের হাতে চলচ্চিত্র পুরস্কার তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী পলাশবাড়ীতে হানাদার মুক্ত দিবসে রণাঙ্গণে সম্মুখে যুদ্ধের স্মৃতিচারণে বীরমুক্তিযোদ্ধা মেজর (অব)তারেক বীর বিক্রম পি এস সি গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ ২০০ পিস ইয়াবা সহ গ্রেপ্তার-২ বীরগঞ্জ উপজেলায় অভিযানে ১২৬০ পিচ ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক॥ গাইবান্ধায় ইয়াবাসহ মাদক কারবারি আটক লালপুরে লোকালয়ে হঠাৎ দলছুট ‘হুনুমান’

ভালবাসায় হয়েছেন ৭ বারের সংসদ সদস্য

প্রকাশ: শনিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯ , ৪:৫০ অপরাহ্ণ , বিভাগ : জাতীয়,রংপুর,সারাদেশ,

মোস্তাকিম সরকার ঃ
এ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান এমপি, প্রত্যন্তঅঞ্চলে জন্ম গ্রহণ করলেও তিনি এখন গণমানুষের নেতা হয়েছেন। তার শৈশব কাল কেটেছে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার জামগ্রাম গ্রামে। তিনি কৃষক পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। সেই সূত্রে কৃষির সঙ্গে তার ছিল অকৃত্রিম ভালবাসা। লেখাপড়ার পাশাপাশি তিনি জমিতে হালচাষ করতেন। তার সদাসুলভ আচরনে এলাকায় গরীব দুখী মানুষকে তিনি সহজে আপন করে নেয়। বিশাল অর্থ বৃত্ত না থাকলেও ছিল মানুষের প্রতি অকৃত্রিম ভালবাসা। ভালবাসায় হয়েছেন জাতীয় সংসদ সদস্য। তিনি রাজনৈতিক পরিবারের সদস্য না হলেও মেধা, বুদ্ধি, গরীব দুখী মানুষের ভালবাসায় হয়েছেন ৭ বারের সংসদ সদস্য। তার যোগ্য নেতৃত্বের কারণে পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী আওয়ামীলীগের ঘাটি হিসাবে পরিচিত লাভ করেছে।
মোস্তাফিজুর রহমান জন্ম গ্রহণ করেন ১৯৫৩ সালের ২৯ নভেম্বর। বাংলাদেশের বৃহত্তর জেলা দিনাজপুর। ফুলবাড়ী উপজেলার জামগ্রাম গ্রামে। তার বাবা মোবারক হোসেন এবং মা শাহেদা খাতুন। তিনি ১৯৬৮ সালে সুজাপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং ১৯৭০ সালে ফুলবাডী় কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। পরবর্তীতে ১৯৭৩ সালে তিনি ফুলবাড়ী কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৭৭ সালে সমাজ বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৮৬ সালে আইন বিষয়েও স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে মুক্তিযোদ্ধা (এফ.এফ) হিসেবে তালিকাভুক্ত হন, এবং সেক্টর-৭ এর অধীনে যুদ্ধ করেন।
১৯৮৬ সালে প্রথমবার দিনাজপুর-৫ আসন (পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী) সংসদ সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হন। তিনি বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সফল মন্ত্রী ছিলেন।
১৯৭৭ সালে মোস্তাফিজুর রহমান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দিনাজপুর জেলা কমিটির সদস্য হন এবং ফুলবাডী থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকও নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে ১৯৮০ সালে তিনি দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং ১৯৯২ সাল পর্যন্ত উক্ত পদে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯২ সালে মোস্তাফিজুর রহমান দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০১৩ সালে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০০৪ সালে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৬, ১৯৯০, ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৮ ২০১৪এবং ২০১৮ সালেও তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০৯ সালে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন ও দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে ৩১ জুলাই ২০০৯ থেকে ২১ নভেম্বর ২০১৩ পর্যন্ত ভূমি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করে এবং ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ১৫ বছর যোগাযোগ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির এবং ১০ বছর পাবলিক অ্যাকাউন্টস্ কমিটির সদস্য ছিলেন। ২০০০ সালে তিনি ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন। ২০১৯ সালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রনালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি দুই কন্যা সন্তানের জনক। মেয়েরা হলেন- ফারজানা আক্তার, ফারহানা আক্তার।

আপনার মতামত লিখুন

জাতীয়,রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ