শুক্রবার-৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং-২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১২:৩৭, English Version
ভ্যাট দিবস ও ভ্যাট সপ্তাহ উদযাপন করবে এনবিআর সৌম্যর অর্ধশতকে এসএ গেমেসে টানা জয় টাইগারদের গোবিন্দঞ্জে অসুস্থ্য অজ্ঞাত যুবকের হাসপাতালে মুত্যু গাইবান্ধায় ৫ মাদকসেবীর আটক,৭দিনের জেল পার্বতীপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ পালিত পার্বতীপুরে শীতের পিঠা খাওয়ার ধুম নাচোলে মাঠে খেলাতে না দেয়ার কারণে ৭বছরের শিশু অভিযোগ ।

খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও শান্তিকালীন পদকপ্রাপ্ত সেনাসদস্যদের সংবর্ধনা

এমএন২৪.কম ডেস্ক : বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে ২৮৭ কিলোমিটার সীমান্ত সড়ক তৈরি হচ্ছে। এ সড়ক নির্মাণের জন্য সরকার অনুমোদন দিয়েছে। আজ সোমবার খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা সেনাসদস্য এবং ২০১৮-১৯ সালে শান্তিকালীন পদকপ্রাপ্ত সেনাসদস্যদের সংবর্ধনা ও পদক প্রদান অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

তিনি আরো জানান, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে উখিয়ার কুতুপালং ও টেকনাফের নয়াপাড়া বড় দুটি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করা হবে। এরই অংশ হিসেবে সেনানিবাসে খুঁটি তৈরির কাজ চলছে।

আজ সোমবার ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবস ২০১৯’ উপলক্ষে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ-এর পক্ষ থেকে ঢাকা সেনানিবাসস্থ ‘আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্স’-এ মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে অবদানের জন্য খেতাবপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর সদস্যদের এবং ২০১৮-১৯ সালের শান্তিকালীন পদকপ্রাপ্ত সেনাসদস্যদের সম্মানে এক সংবর্ধনা ও পদক প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় ।

আইএসপিআর জানায়, এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর ৩ জন বীরশ্রেষ্ঠের নিকটাত্নীয়, ৫ জন বীর উত্তম, ১২ জন বীর বিক্রম ও ৩০ জন বীরপ্রতীক এবং ২৫ জন্য অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাসহ সর্বমোট ৭৫ জন সেনাসদস্যকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এছাড়াও এ অনুষ্ঠানে ২০১৮-২০১৯ সালে শান্তিককালীন সময়ে বিভিন্ন প্রশংসনীয় ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ০৬ জন ‘অসামান্য সেবা পদক’ এবং ১৭ জন ‘বিশিষ্ট সেবা পদক’ (বিএসপি) প্রাপ্ত সেনাসদস্যকে সেনাবাহিনী প্রধান কর্তৃক পদকে ভূষিত করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা সেনাসদস্যদের মুক্তিযুদ্ধকালীন বীরত্বগাঁথা এবং শান্তিকালীন পদক প্রাপ্তদের প্রশংসনীয় কর্মকান্ডের সারসংক্ষেপ তুলে ধরা হয়। সেনাবাহিনী প্রধান খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা সেনাসদস্য, তাঁদের নিকটাত্নীয় এবং শান্তিকালীন পদক প্রাপ্তদের সঙ্গে কুশলাদি বিনিময় এবং তাঁদেরকে শুভেচ্ছা উপহার প্রদান করেন।

অনুষ্ঠানে সেনাসদরসহ ঢাকায় কর্মরত ঊর্দ্ধতন সেনাকর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সেনাসদরের পক্ষ থেকে প্রতিবছরই জাতির গর্ব-বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে এ ধরনের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,মুক্তিযুদ্ধ,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ