শুক্রবার-৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং-২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ২:২৫, English Version
ডোমারে শীতকালীন সবজিতে ভরেগেছে পৌর কাঁচা বাজার। ঝালকাঠিতে যুবককে জবাই করে হত্যা নীলফামারীতে নেক্সট্ বাংলা আইটি’র উদ্যোগে ‘সহ¯্র রমনী’ বিনামূল্যে গ্রাফিক্স ডিজাইন প্রশিক্ষন কার্যক্রম শুরু ফুলবাড়ীতে পরিবার কল্যান সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে এক এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত॥ ছাতক মুক্ত দিবস ৬ ডিসেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ নাচোলে ১৭বোতল ফেনসিডিল সহ ২আটক নাটোরে জিংক সমৃদ্ধ ধানের বীজ বাজারজাত করনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

বরিশালে খোলা আকাশের নিচে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

প্রকাশ: বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ , ১০:৫৯ অপরাহ্ণ , বিভাগ : বরিশাল,সারাদেশ,

মনির হোসেন, বরিশাল ব্যুরো ॥ ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে বরিশালের ১০ উপজেলার ৫০টি প্রাথমিক, ১০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় আংশিক ও দুইটি মাদ্রাসা ভবন সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত হয়েছে। জেলা প্রশাসকের এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
সূত্রমতে, বুলবুলের তান্ডবে সম্পূর্ন বিধ্বস্ত হয়েছে জেলার গৌরনদী উপজেলার উত্তর দিয়াশুর পীর দুদু মিয়া স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসা ভবনটি। এতে হুমকির পরেছে মাদ্রাসার ২৫০জন শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন। তবে মাদ্রাসা ভবন বিধ্বস্ত হওয়ার পরেও খোলা আকাশের নিচে পাঠদান অব্যাহত রেখেছেন শিক্ষকরা।
জানা গেছে, ১৯৮৪ সালে উত্তর দিয়াশুর স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসাটি চালু হওয়ার পর থেকে ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি সাধারণ শিক্ষা দিয়ে আসছেন মাদ্রাসার দশজন শিক্ষক। মাদ্রাসাটি এলাকার মানুষের দান অনুদানে চললেও ঘূর্নিঝড় বুলবুলের তান্ডবে মাদ্রাসার টিন সেটের ভবনের ওপর বিশাল আকৃতির দুইটি গাছ উপরে পরে কক্ষগুলো সম্পূর্ন বিধ্বস্ত হয়েছে। ফলে মঙ্গলবার সকাল থেকে খোলা আকাশের নিচেই পাঠদান শুরু করেছে শিক্ষকরা। মাদ্রাসাটি চালু রাখতে এলাকার বিত্তবানদের প্রতি আহবান করেছেন এলাকাবাসী। ধর্মীয় ও সাধারণ শিক্ষা দেওয়া এ প্রতিষ্ঠানটি রক্ষায় মাদ্রাসা শিক্ষকরা স্থানীয় সংসদ সদস্য মন্ত্রী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র কাছে জোর দাবি করেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সদ্য এমপিওভূক্ত হওয়া একই উপজেলার ইল্লার গাইনেরপাড় এলাকার মাদ্রাসা ভবনও ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।
জেলা প্রশাসকের প্রতিবেদনে জানা গেছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বুলবুলের তান্ডবে ১২০ কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা ও ২২ কিলোমিটার নদীর বাঁধ, তিন হাজার ৫০টি বসতঘর ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তবে ঘূর্ণিঝড়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ফসলী জমি-গাছপালা এবং মৎস্য খামার। ঝড়ে এক লাখ ছয় হাজার হেক্টর ফসলী জমি, ছোট বড় বিভিন্ন প্রজাতের এক লাখ গাছ এবং ৪৩৫টি মৎস্য খামার, ঘের এবং পুকুরের মাছ বের হয়ে গেছে।
জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানার পরবর্তী ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। এ নিয়ে মাঠপর্যায়ে কর্মকর্তারা এখনও কাজ চলছে। তাই ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। তিনি আরও বলেন, আমরা ক্ষতিগ্রস্থ সকলকেই সহায়তা প্রদানের চেষ্টা করছি। যাদের ঘর-বাড়ি ভেঙে গেছে তাদেরকে ঘর নির্মানের জন্য ঢেউটিন, ত্রান সামগ্রী ও কম্বল বিতরণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন

বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ