শুক্রবার-৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং-২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ২:৩৭, English Version
ডোমারে শীতকালীন সবজিতে ভরেগেছে পৌর কাঁচা বাজার। ঝালকাঠিতে যুবককে জবাই করে হত্যা নীলফামারীতে নেক্সট্ বাংলা আইটি’র উদ্যোগে ‘সহ¯্র রমনী’ বিনামূল্যে গ্রাফিক্স ডিজাইন প্রশিক্ষন কার্যক্রম শুরু ফুলবাড়ীতে পরিবার কল্যান সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে এক এ্যাডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত॥ ছাতক মুক্ত দিবস ৬ ডিসেম্বর চাঁপাইনবাবগঞ্জ নাচোলে ১৭বোতল ফেনসিডিল সহ ২আটক নাটোরে জিংক সমৃদ্ধ ধানের বীজ বাজারজাত করনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

প্রশিক্ষণধারী শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির সুপারিশ

প্রকাশ: বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ , ৮:৫৬ অপরাহ্ণ , বিভাগ : ঢাকা,শিক্ষা,সারাদেশ,

এমএন২৪.কম ডেস্ক: হাইকোর্টের রায় অনুসারে সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক/সমমান এবং সরকার অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান থেকে কম্পিউটার বিষয়ে ছয় মাসের প্রশিক্ষণধারীদের নিয়োগে এমপিওভুক্তির জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। এটা শুধুমাত্র ২০১৬ সালের নিয়োগপ্রার্থীদের জন্য প্রযোজ্য হবে। বুধবার (১৩ নভেম্বর) মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক জান্নাতুন নাহার সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে একটি পরিপত্র জারি হয়। ওই পরিপত্রের মাধ্যমে দেশের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এন্ট্রি লেভেলের শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশের দায়িত্ব এনটিআরসিএ-কে দেয়া হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৬ সালে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) এর শূন্য পদের চাহিদা অনলাইনে (e-Requisition) প্রদান করা হয়।

চাহিদাকৃত পদের জন্য প্রার্থী সুপারিশ কার্যক্রম ২০১৬ সালে সম্পন্ন হওয়ার কথা থাকলেও হাইকোর্টে মামলার কারণে এ কার্যক্রম যথাসময়ে সম্পন্ন হয়নি। কিন্তু পরবর্তীতে মামলার নিষ্পত্তি হলে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ) শিক্ষক-কর্মচারিদের বেতন ভাতা প্রদান করা হয়। এছাড়াও জনবলকাঠামো সম্পর্কিত নির্দেশিকা (৪ ফেব্রুয়ারি ২০১০ এ প্রণীত, মার্চ পর্যন্ত সংশোধিত) অনুযায়ী সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) পদের ফলাফল চূড়ান্ত করা হয়।

এমতাবস্তায় রায়ের আদেশ অনুযায়ী কেবলমাত্র ২০১৬ সালের সুপারিশপ্রাপ্তদের ছয় মাসের প্রশিক্ষণের পূর্বের নীতি অনুসরণ করে অধীনস্থ অফিসসমূহকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের অনুরোধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের জুলাই মাসে স্নাতক ডিগ্রিসহ ছয় মাসের কম্পিউটার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নিবন্ধন সনদধারীদের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে আবেদন বৈধ বলে রায় দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

এর আগে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) ২০১৬ সালের ১৪ জুলাই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। ওই বিজ্ঞপ্তিতে কম্পিউটার শিক্ষক পদে তিন বছরের ডিপ্লোমা কোর্স ও স্নাতক ডিগ্রিসহ ছয় মাসের কম্পিউটার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নিবন্ধন সনদধারীদের কম্পিউটার শিক্ষক পদে আবেদনের সুযোগ দেয়া হয়। একই দিনে ওই বিজ্ঞপ্তি সংশোধন করে বলা হয়, স্নাতক ডিগ্রিসহ ছয় মাসের কম্পিউটার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নিবন্ধন সনদধারীরা শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে আবেদনের সুযোগ পাবে না। বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে সংক্ষুব্ধ কাজী মো. সাইফুদ্দিনসহ ১৮ জন আবেদনকারী হাইকোর্টে রিট আবেদন দায়ের করেন।

প্রাথমিক শুনানি শেষে ২০১৬ সালের ৮ আগস্ট হাইকোর্ট সংশোধনী বিজ্ঞপ্তি বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতি রুল জারি করেন এবং স্নাতক ডিগ্রিসহ ছয় মাসের কম্পিউটার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নিবন্ধন সনদধারীদের শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে আবেদনের সুযোগ দিতে নির্দেশ দেন। সে আলোকে ‘এনটিআরসিএ’ ২০১৬ সালের ১০ আগস্ট এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে স্নাতক ডিগ্রিসহ ছয় মাসের কম্পিউটার প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নিবন্ধন সনদধারীদের শিক্ষক (কম্পিউটার) পদে আবেদনের সুযোগ দেয়।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,শিক্ষা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ