মঙ্গলবার-১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং-৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৯:২৮, English Version
পার্বতীপুরে অতিরিক্ত দামে লবন বিক্রির অভিযোগে ৩০ হাজার ৫শত টাকা জরিমানা দুমকিতে লবণের মূল্য বৃদ্ধির আতংকে ক্রেতারা ! চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গায় হতদরিদ্রদের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির বরিশালে পেঁয়াজের ঝাঁঝ না কাটতেই দাম বড়ারার গুজবে লবণ বিক্রির হিড়িক মাঠে ধানের নাচন দেখে কৃষকের মুখে হাসি- ছাতকে আমন ধানের বাম্পার ফলন ছাতকে সিংচাপইড় ইউপির ৩ নং ওয়ার্ড আ’লীগের কমিটি গঠন : সভাপতি জলিল, সম্পাদক সমরাজ লবণের দাম বৃদ্ধির গুজবে ছাতকের সিরাজগঞ্জ বাজারে লঙ্কাকান্ড!

বরিশালে আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি

তৃণমূলের জনপ্রিয়তা যাচাই করতে ভোটের মাধ্যমে কমিটি গঠণের দাবি

প্রকাশ: বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯ , ৬:২১ অপরাহ্ণ , বিভাগ : বরিশাল,সারাদেশ,


মনির হোসেন,বরিশাল ব্যুরো ॥ আওয়ামী লীগের তৃণমূলে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে নভেম্বর মাস থেকে। বিজয়ের মাস ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে এ অভিযান। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের প্রতিটি জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে চিঠিও পাঠিয়েছেন। চিঠিতে জেলা সম্মেলনের মধ্যদিয়ে গঠণ করা নতুন কমিটিতে বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীরা যেন প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়ে সতর্ক থাকার তাগিদ দেওয়া হয়েছে।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের আগে সহযোগী সংগঠনগুলোর জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। পরীতি ও ত্যাগী নেতারাই ওইসব সংগঠনের নেতৃত্বে আসবেন। বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীদের কোনো জায়গা হবেনা। তাই আওয়ামী লীগের তৃণমূল পর্যায়ে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে। আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হবে আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন। ওই সম্মেলনের আগে মেয়াদোত্তীর্ণ সব সাংগঠনিক জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা, পৌরসভা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড সম্মেলন সফল করার জন্য তৃণমূল পর্যায়ে কাজ শুরু করা হয়েছে।
ইতোমধ্যে বরিশাল বিভাগের চার জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। এ সম্মেলন প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে দুর্নীতিবাজ, বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীদের বাদ দেওয়া হবে। কেন্দ্রের নির্দেশনার পর পরই গত অক্টোবর মাস থেকে বরিশাল জেলার বিভিন্ন উপজেলা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড পর্যায়ে শুরু হয়েছে সম্মেলন আয়োজনের তোড়জোড়। তবে তৃণমূল পর্যায়ে এবারও বির্তকিত ও অনুপ্রবেশকারীরা কৌশলে দলীয় পদ-পদবী বাগিয়ে নিতে তাদের আশ্রয়দাতা (বর্তমানে উপজেলা ও পৌর এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত) কতিপয় নেতৃবৃন্দের মাধ্যমে শীর্ষ নেতাদের কাছে লবিং ও তদবির শুরু করেছেন। এজন্য আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী এবং সমর্থকরা সঠিক নেতৃত্ব পেতে তৃণমূলের জনপ্রিয়তায় ভোটের মাধ্যমে কমিটি গঠণের জোর দাবি করেছেন।
কারণ হিসেবে তৃণমূল পর্যায়ের ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মীরা বলেন, অতীতে যারা অনুপ্রবেশকারীদের দলে ঢুকিয়েছেন, দুর্নীতির মাধ্যমে যারা অর্থের পাহাড় গড়েছেন, যাদের টেন্ডারবাজি, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, জুয়া ও মাদক ব্যবসার কারণে দল প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে, তাদের মধ্যে কতিপয় ব্যক্তি এখনও তৃণমূলের পদ-পদবী দখল করে রেখেছেন। এসব বিতর্কিতদের মধ্যে কতিপয় জনপ্রতিনিধিও রয়েছেন। তারাই এখন সম্মেলনকে ঘিরে পূর্ণরায় দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়েছেন। তাদের ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না। অথচ তৃণমূল পর্যায়ে জনপ্রিয়তায় তারা শূণ্যের কোঠায়। তাই শুদ্ধি অভিযান সফল করতে হলে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা যাচাই করে নতুন কমিটি গঠণের কোন বিকল্প নেই।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০০১ সালের নির্বাচন পরবর্তী সময়ে নদী বেষ্টিত মুলাদী উপজেলা ছিলো আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব শূণ্য। তৎকালীন সময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মোস্তাক আহমেদ সেন্টুর (২১ আস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত) নেতৃত্বে তৎকালীন ছাত্রলীগ নেতা রাজিব হোসেন রাজু ভূঁইয়াসহ যারা দলীয় সব কর্মসূচি পালন করেছেন তারাই দলের টানা তিনবারের ক্ষমতার আমলে অনুপ্রবেশকারীদের কারণে কোনঠাসা হয়ে রয়েছেন। এ সুযোগে দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন ইউনিয়নের বির্তকিত ব্যক্তিরা দলের পদ-পদবী আকরে রেখে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড পরিচালনার মাধ্যমে দলকে প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছেন। যা তৃণমূল পর্যায়ের চলমান শুদ্ধি অভিযানের মাধ্যমে সংশোধন করা হবে।
ভোটের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের জন্য তৃণমূল পর্যায়ের আসন্ন সম্মেলনকে সামনে রেখে মুলাদীর চরকালেখা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থী আলম মৃধা, মোশাররফ বেপারী, নাসির সরদার, সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রার্থী মোঃ নুরুল হক খান, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী জয়নাল আবেদীন ও দিদার তালুকদার জানান, ওই ইউনিয়নের বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দীর্ঘদিন দলের পদ-পদবী আকরে রেখে নানা আপত্তিকর কর্মকান্ডের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে দলকে চরম প্রশ্নবিদ্ধ করেছেন। তাদের হাত ধরেই অনুপ্রবেশকারীরা দলে প্রবেশ করে প্রকৃত নেতাকর্মী ও সমর্থকদের কোনঠাসা করে রেখেছেন। তাদের (বর্তমান কমিটির) আশ্রয়ে থাকা অনুপ্রবেশকারীদের আধিপত্যের কারণে অসংখ্য নেতাকর্মী ও সমর্থকরা রাজনৈতিক মাঠ থেকে নিজেদের আড়াল করে রেখেছেন। কিন্তু চলমান শুদ্ধি অভিযানের ফলে দলের ক্রান্তিলগ্নের নেতাকর্মীরা জনপ্রিয়তা যাচাই করে নতুন মুখের সৎ ও শিতি লোকের নেতৃত্বের দাবিতে ভোটের মাধ্যমে সম্মেলণ সফল করার জন্য উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের কাছে জোর দাবি করেছেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলমান শুদ্ধি অভিযানকে সফল করার জন্য ইতোমধ্যে দলের সুনাম ক্ষুন্ন করার অভিযোগে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য, বানারীপাড়া উপজেলার সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম ফারুককে দল থেকে সাময়িক বহিঃস্কার করা হয়েছে। এখনও যেসব জনপ্রতিনিধি ও দলের পদ-পদবীতে থাকা নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে একক আধিপত্য বিস্তার, দুর্নীতি ও অনুপ্রবেশকারীদের আশ্রয় দিয়ে কমিটিতে অর্ন্তভূক্ত করাসহ দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ রয়েছে তাদের তালিকাও জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের কাছে রয়েছেন। দলকে ঢেলে সাজাতে ও শুদ্ধি অভিযান সফল করতে অভিযোগ ওঠা ওইসব কতিপয় নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিকে সম্মেলনের মাধ্যমে বাদ দিয়ে নতুন নেতৃত্বের দাবি করেছেন তৃণমূল পর্যায়ের ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মীরা।
বিশেষ বর্ধিত সভা ॥ আগামী ২৯ নভেম্বর আগৈলঝাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে বুধবার (৩০ অক্টোবর) সকালে বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ত্রী আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ এমপি বলেছেন, উপজেলার সকল কমিটিতে হাইব্রিড, অনুপ্রবেশকারী ও বিতর্কিত মুক্ত কমিটি গঠণ করতে হবে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুনীল কুমার বাড়ৈর সভাপতিত্বে ওই সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মোঃ লিটন প্রমুখ। সভায় উপজেলার পাঁচ ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে মঙ্গলবার গৌরনদী উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট তালুকদার মোঃ ইউনুস জানান, আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন সফল করার লক্ষ্যে অনুপ্রবেশকারী ও বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়ে ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মীদের সম্মন্ময়ে আগামী ২০ নভেম্বর বানারীপাড়া, ২১ নভেম্বর বাবুগঞ্জ, ২২ নভেম্বর উজিরপুর, ২৪ নভেম্বর মুলাদী, ২৫ নভেম্বর বাকেরগঞ্জ, ২৭ নভেম্বর হিজলা, ২৮ নভেম্বর গৌরনদী, ২৯ নভেম্বর আগৈলঝাড়া ও ৩০ নভেম্বর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে।
বরিশাল বিভাগ: ঝালকাঠি ও ভোলা ছাড়া বরিশাল বিভাগের আওতাধীন পাঁচ সাংগঠনিক জেলার সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১ ডিসেম্বর বরগুনা, ২ ডিসেম্বর পটুয়াখালী, ৩ ডিসেম্বর পিরোজপুর, ৭ ডিসেম্বর বরিশাল মহানগর এবং ৮ ডিসেম্বর বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

আপনার মতামত লিখুন

বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ