বৃহস্পতিবার-১৭ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং-২রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৪:৪২
পার্বতীপুরে   চার ভিক্ষুক পেলেন দোকান ঘর “জলঢাকায় তথ্য আপার সেবা বিষয়ক উঠান বৈঠক” গাইবান্ধায় বিশ্ব খাদ্য দিবস পালিত গাইবান্ধায় বন্যার্তদের আর্থিক সহায়তা প্রদান প্রক্রিয়াজাত খাদ্য উৎপাদনে নারী উদ্যোক্তারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে — মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বিএসটিআই’র অভিযান- ছাতকে দু’ফিলিং ষ্টেশনে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রাজু’র খেলোয়াদের হাতে ফুটবল বিতরন

লালপুরে পদ্মা নদীর বাঁধে ধ্বস আতঙ্কে তীরবর্তী মানুষেরা!

প্রকাশ: সোমবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৯ , ৯:২৮ অপরাহ্ণ , বিভাগ : রাজশাহী,সারাদেশ,

মো. আশিকুর রহমান টুটুল, নাটোর প্রতিনিধি
পদ্মা নদীতে পানি কমতে শুরু করলে আকস্মিক বন্যার কারনে নাটোরের লালপুরে পদ্মা নদীর বামতীরের তিনটি স্থানে ধ্বস দেখা দিয়েছে এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে তীরবর্তী মানুষেরা।
রবিবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, আকছেদ মোড়ে ৮০ মিটার এবং নুরল্লাপুরে নতুন বাঁধ এলাকায় ১৫০ মিটার এলাকা জুড়ে তীর রক্ষা ব্লক ধ্বসে গেছে। সবচেয়ে বেশি ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে নুরুল্লাপুরে। এই স্থানে ৭৩মিটার এলাকা জুড়ে ভাঙ্গন শুরু হওয়ায় আতঙ্কে দিন কাটছে তীরবর্তী মানুষের।
স্থানীয়রা বলছে, পদ্মা নদীর আকসেদ এর মোড়ে গত তিন বছর আগে ব্লক ধ্বসে গেলেও আজ পর্যন্ত মেরামত করেনি পানি উন্নয়ন বোর্ড। এবারের বন্যায় নতুন করে আবারো বেশ কিছু অংশ নদীতে ধ্বসে গেছে। এতে বাঁধ ভাঙ্গার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসীরা।
আকছেদ মোড় এলাকার বাসিন্দা সাজদার খাঁ ও ফারুক আলম জানান, ‘আকসেদ মোড়ে সবচেয়ে বেশি ভাঙ্গছে, বাঁধ ভাঙ্গার আতঙ্ক নিয়ে দিন পার করতে হচ্ছে। দীর্ঘ দিন ধরে তীর সংরক্ষনের ব্লক ধ্বসে গেলেও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না।’
এছাড়ও নুরুল্লাপুরের দুটি স্থানে নতুন করে বাঁধ ভাঙ্গা শুরু হয়েছে। দীর্ঘ দিন ধরে ৭৩মিটার মাটির বাঁধ ভাঙ্গা শুরু হলেও এবার ভাঙ্গনের বেশি ভয়াবাহ দেখা দিয়েছে। বাঁধের ছোট বড় গাছ বিলিন হয়েগেছে নদী গর্ভে। এছাড়া দুইদিনে আকছেদ মোড়ে বাঁধের প্রায় ৩০ মিটার ধ্বসে গেছে।
নুরুল্লাপুর এলাকার মনিরুল ইসলাম ও বিপুল নামের দুইজন বাসিন্দা জানান, ‘গত পাঁচ বছর ধরে পদ্মা নদীর ঢেউ থেকে বাঁচানোর জন্য কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বারবার স্থানীয় এমপি, উপজেলা প্রশাসনকে জানিয়ে কোন কাজ হয়নি। আমরা চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন পার করছি যে কোন সময় বাড়ি ঘর বিলিন হয়ে যেতে পারে।’
নাটোর পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী আল আসাদ জানান, ‘সম্প্রতি পদ্মা নদীর তিনটি ভাঙ্গন এলাকায় পরিদর্শন করেছি, আকসেদের মোড়ে ব্লক ধ্বসে যাওয়া ঠেকাতে ২৫০বস্তা জিও ব্যাগ ফেলা হয়েছে। এছাড়া নুরুল্লাহপুরে পদ্মা পানি নেমে গেলে নতুন করে প্রকল্প হাতে নেওয়া হবে। সামনে মৌসুমের আগেই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে বলে জানান তিনি।’
অতিদ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন পদ্মার তীরবর্তী মানুষেরা।

আপনার মতামত লিখুন

রাজশাহী,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ