মঙ্গলবার-১০ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং-২৫শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৪:৫৬, English Version
নারীরা এখন সর্বত্র দক্ষতার সঙ্গে কাজ করছে : প্রধানমন্ত্রী সৈয়দপুরে ইউএনডিপি’র আয়োজনে প্রান্তিক জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের ‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ পালন’ জলঢাকায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ২০২০ সালে ফাইভ জি জগতে পা দেবে বাংলাদেশ                   — মোস্তাফা জব্বার ঢাকা, ২৪ অগ্রহায়ণ (৯ ডিসেম্বর) : অধ্যাপক অজয় রায়ের মৃত্যুতে পরিবেশ মন্ত্রীর শোক পার্বতীপুর বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে নিহত দুই নির্মান শ্রমিককে ক্ষতিপূরনের চেক প্রদান ৫জনকে সেলাই মেশিন বিতরণ করলেন ফেরদৌসি ইসলাম জেসী ।

লালপুরে পদ্মা নদীর বাঁধে ধ্বস আতঙ্কে তীরবর্তী মানুষেরা!

প্রকাশ: সোমবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৯ , ৯:২৮ অপরাহ্ণ , বিভাগ : রাজশাহী,সারাদেশ,

মো. আশিকুর রহমান টুটুল, নাটোর প্রতিনিধি
পদ্মা নদীতে পানি কমতে শুরু করলে আকস্মিক বন্যার কারনে নাটোরের লালপুরে পদ্মা নদীর বামতীরের তিনটি স্থানে ধ্বস দেখা দিয়েছে এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে তীরবর্তী মানুষেরা।
রবিবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, আকছেদ মোড়ে ৮০ মিটার এবং নুরল্লাপুরে নতুন বাঁধ এলাকায় ১৫০ মিটার এলাকা জুড়ে তীর রক্ষা ব্লক ধ্বসে গেছে। সবচেয়ে বেশি ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে নুরুল্লাপুরে। এই স্থানে ৭৩মিটার এলাকা জুড়ে ভাঙ্গন শুরু হওয়ায় আতঙ্কে দিন কাটছে তীরবর্তী মানুষের।
স্থানীয়রা বলছে, পদ্মা নদীর আকসেদ এর মোড়ে গত তিন বছর আগে ব্লক ধ্বসে গেলেও আজ পর্যন্ত মেরামত করেনি পানি উন্নয়ন বোর্ড। এবারের বন্যায় নতুন করে আবারো বেশ কিছু অংশ নদীতে ধ্বসে গেছে। এতে বাঁধ ভাঙ্গার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসীরা।
আকছেদ মোড় এলাকার বাসিন্দা সাজদার খাঁ ও ফারুক আলম জানান, ‘আকসেদ মোড়ে সবচেয়ে বেশি ভাঙ্গছে, বাঁধ ভাঙ্গার আতঙ্ক নিয়ে দিন পার করতে হচ্ছে। দীর্ঘ দিন ধরে তীর সংরক্ষনের ব্লক ধ্বসে গেলেও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না।’
এছাড়ও নুরুল্লাপুরের দুটি স্থানে নতুন করে বাঁধ ভাঙ্গা শুরু হয়েছে। দীর্ঘ দিন ধরে ৭৩মিটার মাটির বাঁধ ভাঙ্গা শুরু হলেও এবার ভাঙ্গনের বেশি ভয়াবাহ দেখা দিয়েছে। বাঁধের ছোট বড় গাছ বিলিন হয়েগেছে নদী গর্ভে। এছাড়া দুইদিনে আকছেদ মোড়ে বাঁধের প্রায় ৩০ মিটার ধ্বসে গেছে।
নুরুল্লাপুর এলাকার মনিরুল ইসলাম ও বিপুল নামের দুইজন বাসিন্দা জানান, ‘গত পাঁচ বছর ধরে পদ্মা নদীর ঢেউ থেকে বাঁচানোর জন্য কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বারবার স্থানীয় এমপি, উপজেলা প্রশাসনকে জানিয়ে কোন কাজ হয়নি। আমরা চরম আতঙ্কের মধ্যে দিন পার করছি যে কোন সময় বাড়ি ঘর বিলিন হয়ে যেতে পারে।’
নাটোর পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশলী আল আসাদ জানান, ‘সম্প্রতি পদ্মা নদীর তিনটি ভাঙ্গন এলাকায় পরিদর্শন করেছি, আকসেদের মোড়ে ব্লক ধ্বসে যাওয়া ঠেকাতে ২৫০বস্তা জিও ব্যাগ ফেলা হয়েছে। এছাড়া নুরুল্লাহপুরে পদ্মা পানি নেমে গেলে নতুন করে প্রকল্প হাতে নেওয়া হবে। সামনে মৌসুমের আগেই প্রকল্পের কাজ শুরু হবে বলে জানান তিনি।’
অতিদ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন পদ্মার তীরবর্তী মানুষেরা।

আপনার মতামত লিখুন

রাজশাহী,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ