মঙ্গলবার-২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং-১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১:৪৩, English Version
নলছিটির রানাপাশা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এস.এসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংর্ধ্বনা হাকিমপুরে বৈদেশিক কর্ম সংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতায় প্রচার প্রেস ব্রিফিংও সেমিনার অনুষ্ঠিত শিবগঞ্জে হিজড়াদের মধ্যে শীত বস্ত্র বিতরণ ছাতকে সু-সেবা নেটওয়ার্কের ত্রৈমাসিক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত অবৈধ হট ফিল্মস বিক্রির অভিযোগে গ্রেপ্তার হোলসেলার ব্যবসায়ী। পরীমনি পুলিশে যোগদান করলেন পাঁচ বছরে যতটা নিচে নামলেন মোস্তাফিজ

‘সাত বিভাগীয় শহরে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা’

প্রকাশ: বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ২:৪৩ অপরাহ্ণ , বিভাগ : জাতীয়,সারাদেশ,

এমএন২৪.কম ডেস্ক:’সাতটি নার্সিং ইন্সটিটিউটকে কলেজে উন্নীত করে সেখানে বিএসসি কোর্স চালু করা হয়েছে। আরো ১৫টি কলেজ প্রতিষ্ঠা করার পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে। এরসঙ্গে সাতটি বিভাগীয় শহরে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছি।’

আজ বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) গাজীপুরের শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজের প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যখন প্রথম সরকার গঠন করি তখন থেকেই দেশের স্বাস্থ্য সেবার প্রতি সবচেয়ে বেশি মনোযোগ দিয়েছি। এজন্য ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় এসেই প্রান্তিক জনগোষ্ঠির মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার জন্য আমরা কমিউনিটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করি। সাতটি নার্সিং ইন্সটিটিউটকে কলেজে উন্নীত করে সেখানে বিএসসি কোর্স চালু করি। আরো ১৫টি কলেজ প্রতিষ্ঠা করার পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে। এরসঙ্গে সাতটি বিভাগীয় শহরে মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘নার্সিং হলো সবচেয়ে সম্মান জনক পেশা। একজন মানুষকে সেবা করার মাধ্যমে সুন্দর জীবনে ফিরিয়ে আনার মতো আনন্দ আর কি হতে পারে? এই মহৎ পেশায় যুক্ত হতে মানুষ যেন আগ্রহবোধ করে এজন্য আমাদের সরকার নার্সদের মর্যাদা বৃদ্ধি করেছে।’

তিনি বলেন, ‘১৯৯৬ সালে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করার পর ২০০১ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতায় এসে এই সেবা বন্ধ করে দেয়। এর যুক্তি হিসেবে তারা বলে, কমিউনিটি ক্লিনিকে মানুষ সেবা নিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে দিবে। অথচ প্রতি ছয় হাজার মানুষের জন্য চালু করা এই স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমটি খুব দরকারি। এখানে দরিদ্র মানুষেরা সহজেই সেবা পেয়ে থাকে। সবচেয়ে বেশি উপকৃত হয় প্রসূতি নারী ও শিশুরা।

আপনার মতামত লিখুন

জাতীয়,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ