বৃহস্পতিবার-১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং-৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১২:০৯
অধিগ্রহণকৃত ২৯১ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আত্মীকরণের আদেশ দ্রুত জারি করা হবে রিফাত হত্যা : পলাতক ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মাদারীপুরে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২ প্রকাশ্যে আসছে আইয়ুব বাচ্চুর ‘রুপালি গিটার’ ফিলিপাইনে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ২০ দলের কেউ অন্যায় বা দুর্নীতি করলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা: কাদের মাহমুদল্লার ব্যাটে লড়াকু সংগ্রহ বাংলাদেশের

মুশফিক-মুমিনুলের বিদায়ে বিপর্যয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশ: রবিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৮:৩৪ অপরাহ্ণ , বিভাগ : খেলাধুলা,

এমএন২৪.কম ডেস্ক: চট্টগ্রাম টেস্ট জিততে হলে অসাধ্য সাধন করতে হবে বাংলাদেশকে। ইতিহাস গড়ে জিততে হবে তাদের। কারণ এর আগে এত রান তাড়া করে জেতার কীর্তি নেই টাইগারদের। সেই যাত্রায় পদে পদে ধাক্কা খাচ্ছেন তারা। কেউই মাজা সোজা করে ক্রিজে দাঁড়াতে পারছেন না। ইতোমধ্যে ৪ ব্যাটসম্যান ফিরে গেছেন প্যাভিলিয়নে। এ প্রতিবেদন লেখা অবধি ৮৬ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। উইকেটে আছেন সাদমান ইসলাম (৩৩) ও সাকিব আল হাসান (৪)। চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরুতে দুই ঘণ্টার বেশি খেলা বন্ধ ছিল বৃষ্টিতে। প্রথম সেশনের পরে ফের বৃষ্টি নামলে দেরি করে শুরু হয় দ্বিতীয় সেশনের খেলা। তবে শুরুটা ভালো হয়নি স্বাগতিকদের। সেশনের দ্বিতীয় ওভারে জহির খানের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে বিদায় নেন লিটন দাস। বড় ইনিংস উপহার না দিয়ে ৯ রানে ফেরেন তিনি। অবশ্য আগের বলেই রিভিউ নিয়ে বেঁচেছিলেন। আম্পায়ার আফগানদের কট বিহাইন্ডের আবেদনে সাড়া দিলে রিভিউ নেন লিটন। তাতে সফল ছিলেন তিনি।

ওপেনিংয়ের মতো ব্যাটিং অর্ডারে পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। বামহাতি-ডানহাতি কম্বিনেশন মেলাতে লিটন দাসকে নামানোর পর এবার নেমেছেন মোসাদ্দেক। সাদমানের সঙ্গী হয়েছেন তিনি। সেই কৌশলও কাজে আসেনি। সেই চায়নাম্যান স্পিনার জহির খানের বলে উড়িয়ে মেরে উইকেট বিলিয়ে দিয়েছেন মোসাদ্দেক। ফিরে গেছেন ১২ রানে। ডানহাতি কম্বিনেশন বজায় ছিল এরপরেও। তবে কম্বিনেশন পাল্টেও আফগান স্পিনারদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়া যায়নি। একপ্রান্তে রশিদ খান অপরপ্রান্তে জহির খান ঘূর্ণিজাল ফেলে বিপদে ফেলছেন স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের। সেই জালে ধরাশায়ী হন মুশফিকও। রশিদ খানের গুগলি গিয়ে লাগে তার প্যাডে। লেগ বিফোর হয়ে অভিজ্ঞ এই তারকা বিদায় নেন ২৩ রানে। মুশফিক রিভিউ নিয়েও রক্ষা পাননি। আগের ম্যাচে মুমিনুল ফিফটি করেছিলেন। বড় ইনিংসের প্রত্যাশা ছিল তার কাছ থেকে। সেই মুমিনুলও ধরাশয়াী হয়েছেন রশিদ খানের স্পিনে। তাকে বিদায় নিতে হয়েছে ৩ রানে। তবে অপরপ্রান্ত আগলে খেলছেন সাদমান। ব্যাট করছেন ৩৩ রানে।    তার আগে অবশ্য লিটন-সাদমানে প্রথম সেশনটা ভালো গেছে বাংলাদেশের। বিনা উইকেটে সংগ্রহ ছিল ৩০। সকালের প্রথম সেশনে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৯৭ রানের লিড পেয়ে আফগানিস্তান গুটিয়ে গেছে ২৬০ রানে। এই টেস্ট জিততে অগ্নিপরীক্ষার মুখোমুখি এখন বাংলাদেশ। রান তাড়া করে জিততে হলে রেকর্ড গড়তে হবে স্বাগতিকদের। ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ২১৫ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড আছে তাদের। তাই এই টেস্ট জিততে হলে নিজেদের রেকর্ডকে পেছনে ফেলে গড়তে হবে নতুন রেকর্ড।

আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ