বুধবার-১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং-৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৭:৪২
শিবগঞ্জে গৃহ নির্মাণ শ্রমিক কল্যাণ উপ-পরিষদের নব-নির্বাচিতদের অভিষেক অনুষ্ঠিত বিএনপি’র রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে শিবগঞ্জ বিএনপি’র প্রস্তুতি সভা ছাতকে ইয়াবাসহ মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার আওয়ামী লীগ সম্পাদকমন্ডলীর সভা আগামীকাল বাংলাদেশ ইমার্জিং দল ওয়ানডে সিরিজ খেলতে ভারত গেল বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার ৩৭টি পদক লাভ একনেকে অনুমোদন পেল আট প্রকল্প

রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুরের ছিলো বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র

প্রকাশ: সোমবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : রাজনীতি,

এমএন২৪.কম ডেস্ক: কক্সবাজারের টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে নিহত রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুর মোহাম্মদ নির্বাচন কমিশন থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র বা ‌স্মার্টকার্ড নিয়েছিলেন। ফলে তিনি একজন রোহিঙ্গা শরণার্থী হলেও আইনগতভাবে বাংলাদেশের নাগরিক ছিলেন। রোববার (০১ সেপ্টেম্বর) ইসি সূত্র জানায়, নূর মোহাম্মদের কাছে বাংলাদেশের একটি স্মার্টকার্ড আছে। যার নম্বর ৬০০৪৫৮৯৯৬৩। এই কার্ডের তথ্যানুযায়ী, তার নাম নূর আলম। বাবার নাম কালা মিয়া।

এবিষয়ে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক সাইদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, রোহিঙ্গা ডাকাত নুর মোহাম্মদ কীভাবে বাংলাদেশের নাগরিক হলেন সে প্রশ্ন আমাদেরও। একজন রোহিঙ্গা ডাকাত কীভাবে ভোটার হলেন? বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য দুই এক দিনের মধ্যেই তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। অপরাধীরা অবশ্যই শাস্তি পাবে। এর আগে রোববার ভোরে টেকনাফের হ্নীলা জাদিমোড়া ২৭নং ক্যাম্পের পাহাড়ি এলাকায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠনের স্বঘোষিত নেতা, ইয়াবা গডফাদার ও রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুর মোহাম্মদ। টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী জানান, ১৯৯২ সালে মিয়ানমারের আকিয়াব এলাকা থেকে বাংলাদেশে আসেন নূর মোহাম্মদ। পরে হ্নীলা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের জাদিমুরা এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকা শুরু করেন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় জমি কিনে বাড়ির মালিক হন। গড়ে তুলেন সন্ত্রাসী বাহিনী। আর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার বাড়াতে টেকনাফে রোহিঙ্গাদের প্রতিটি ক্যাম্পে বিয়ে করেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ