শুক্রবার-১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং-৩০শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৪:২১
অবহেলায় বিলুপ্তির পথে স্থাপত্যকলার অনন্য নিদর্শন কয়ারপাড়া জামে মসজিদ গাইবান্ধার পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল নিয়ে প্রবেশ, সাত শিক্ষার্থী বহিষ্কার গোবিন্দগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় এসিল্যান্ড নিহত হওয়ার ঘটনায় পিবিআইর তদন্তের নির্দেশ শিবগঞ্জে সড়ক পরিবহন আইন ও সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনামূলক লিফলেট বিতরণ লালমনিরহাটে নতুন সড়ক আইন প্রচারণায় পুলিশের লিফলেট বিতরণ হিলিতে এইচআইভি এইডস প্রতিরোধে জনসচেতনতামুলক সভা অনুষ্ঠিত ঠাকুরগাঁওয়ে বাল্যবিবাহের চেষ্টা, কাজী ও বরকে কারাদণ্ড

রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুরের ছিলো বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র

প্রকাশ: সোমবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ , ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : রাজনীতি,

এমএন২৪.কম ডেস্ক: কক্সবাজারের টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে নিহত রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুর মোহাম্মদ নির্বাচন কমিশন থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র বা ‌স্মার্টকার্ড নিয়েছিলেন। ফলে তিনি একজন রোহিঙ্গা শরণার্থী হলেও আইনগতভাবে বাংলাদেশের নাগরিক ছিলেন। রোববার (০১ সেপ্টেম্বর) ইসি সূত্র জানায়, নূর মোহাম্মদের কাছে বাংলাদেশের একটি স্মার্টকার্ড আছে। যার নম্বর ৬০০৪৫৮৯৯৬৩। এই কার্ডের তথ্যানুযায়ী, তার নাম নূর আলম। বাবার নাম কালা মিয়া।

এবিষয়ে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক সাইদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, রোহিঙ্গা ডাকাত নুর মোহাম্মদ কীভাবে বাংলাদেশের নাগরিক হলেন সে প্রশ্ন আমাদেরও। একজন রোহিঙ্গা ডাকাত কীভাবে ভোটার হলেন? বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য দুই এক দিনের মধ্যেই তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। অপরাধীরা অবশ্যই শাস্তি পাবে। এর আগে রোববার ভোরে টেকনাফের হ্নীলা জাদিমোড়া ২৭নং ক্যাম্পের পাহাড়ি এলাকায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী সংগঠনের স্বঘোষিত নেতা, ইয়াবা গডফাদার ও রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুর মোহাম্মদ। টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাশেদ মাহমুদ আলী জানান, ১৯৯২ সালে মিয়ানমারের আকিয়াব এলাকা থেকে বাংলাদেশে আসেন নূর মোহাম্মদ। পরে হ্নীলা ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের জাদিমুরা এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকা শুরু করেন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় জমি কিনে বাড়ির মালিক হন। গড়ে তুলেন সন্ত্রাসী বাহিনী। আর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার বাড়াতে টেকনাফে রোহিঙ্গাদের প্রতিটি ক্যাম্পে বিয়ে করেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ