বৃহস্পতিবার-১৭ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং-২রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১০:০৫
বড়পুকুরিয়ার সাবেক ১ এমডিসহ ৩ কর্মকর্তা জেলহাজতে বড়পুকুরিয়া সাবেক এক এমডিসহ ৩ কর্মকর্তা জেল হাজতে আবরারের নামে হলের নাম! সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে আকস্মিক পরিদর্শনে নৌ মন্ত্রী ও নানক মেডিকেলে চান্স পেলো সৈয়দপুরের রাজমিস্ত্রির মেয়ে জাকিয়া সুলতানা বিজ্ঞান জাদুঘরে ভ্রাম্যমাণ বিজ্ঞান বাসের উদ্বোধন করলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় বিরামপুর থেকে আবরার হত্যা মামলার আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়ছে

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি ভাতা বাড়ানো হচ্ছে। আগামী ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটে এ ভাতার পরিমাণ ২ হাজার টাকা বাড়ানো হচ্ছে।

নতুন অর্থবছরের বাজেটে অস্বচ্ছল ও প্রতিবন্ধী ভাতাভোগীর সংখ্যা ১০ লাখ থেকে বাড়িয়ে ১১ লাখ করার প্রস্তাব করা হচ্ছে। এছাড়া, লিভার ও কিডনি রোগ এবং ক্যান্সারে আক্রান্ত ভাতাভোগীর সংখ্যা ১০ হাজার থেকে বাড়িয়ে ২০ হাজার করা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধারা মাসিক ১০ হাজার টাকা ভাতা পাচ্ছেন। আগামী বাজেটে তা বাড়িয়ে ১২ হাজার টাকা করা হচ্ছে। এজন্য সরকারের অতিরিক্ত ব্যয় হবে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা। বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাবদ বাজেট বরাদ্দ রয়েছে ৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। অর্থ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, ২০০৮-২০০৯ অর্থবছরে ১ লাখ মুক্তিযোদ্ধা এ ভাতা পেতেন। ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে ভাতার আওতায় আসেন ১ লাখ ৮৭ হাজার ২৯৩ জন মুক্তিযোদ্ধা। ২০০৯ সালে সম্মানি ভাতা ছিল ৯০০ টাকা। তা বাড়িয়ে সাধারণ মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ১০ হাজার টাকা করে সরকার। এর সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের দুটি উৎসবভাতাও দেওয়া হচ্ছে।

সূত্র জানায়, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি ভাতা ১০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১৫ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছিল। এজন্য বার্ষিক অতিরিক্ত ৫ হাজার কোটি টাকার প্রয়োজন হতো। কিন্তু বাজেটে অর্থ সংকুলান না থাকার কারণে এ প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়নি। তবে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি ভাতা ২ হাজার টাকা বাড়ানোর প্রস্তাব শেষ পর্যন্ত বাজেটে রাখা হয়েছে। এজন্য অতিরিক্ত আরো ৪৮০ কোটি টাকা বেশি প্রয়োজন হবে। মুক্তিযোদ্ধারা সম্মানি ভাতা ছাড়া আরো দুটি ভাতা পেয়ে থাকেন। এর একটি হচ্ছে বিজয় দিবস ভাতা এবং বৈশাখী ভাতা। এর মধ্যে বৈশাখী ভাতা হিসেবে পান ২ হাজার টাকা এবং বিজয় দিবসের ভাতা পান ৫ হাজার টাকা।

মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানি ভাতা বাড়ানো হলেও সামাজিক নিরাপত্তা খাতে অন্য কোনো ভাতা আগামী অর্থবছরে বাড়ানো হচ্ছে না বলে জানা গেছে। তবে সামাজিক নিরাপত্তা খাতের আওতা বাড়ানো হবে। বর্তমানে ১৬টি সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি চালু রয়েছে। এসব কর্মসূচি বার্ষিক বরাদ্দ রয়েছে ৩২ হাজার ৩১৮ কোটি টাকা।

 

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,মুক্তিযুদ্ধ,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ