রবিবার-২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং-৫ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১০:১৪
রাশিয়া ব্রাজিলসহ বিভিন্ন দেশের সাথে এফটিএ স্বাক্ষরের জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে —বাণিজ্যমন্ত্রী পাঠ্যবইয়ে মশাবাহিত রোগের সমস্যার সমাধান অর্ন্তভুক্ত করতে হবে   — এলজিআরডি মন্ত্রী সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের আহ্বান তথ্য প্রতিমন্ত্রীর গোবিন্দগঞ্জ হাইওয়ে থানা ২২ পিছ ফেনসিডিল সহ ১ মহিলা আটক ৫ দফা দাবীতে ফারিয়া গোবিন্দগঞ্জ শাখার মানববন্ধন অনুষ্ঠিত শৈলকুপায় দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ১০, আটক-৩ আইএফসি’র বিনিয়োগে বাংলাদেশে কর্মসংস্থান আরো বাড়বে    — অর্থমন্ত্রী

স্বরূপকাঠীতে রাস্তায় পচাঁ ইট ব্যবহার, ভোগান্তিতে জনগণ

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ , ৬:২২ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : বরিশাল,সারাদেশ,

সুমন খান বরিশাল স্বরূপকাঠি  প্রতিনিধিঃ নেছারাবাদ স্বরুপকাঠীতে সাংকাঠির বিষ্ণুকাঠিতে  ৷ বছর ধরে চলছে রাস্তার কাজ,প্রথমে পুরাতন রাস্তার পচাঁ ইট ব্যবহার সাথে নতুন করে যোগকরা হয় লাকি ব্রিকফিল্ড(এলবিএফ) থেকে আনা পচাঁ ইট। এলাকাবাসির ক্ষোভের মুখে কাজ বন্ধে বাধ্য হয় ঠিকাদার নব্য আওয়ামীলীগ সুমন। স্বরূপকাঠি এলজিইডির মধ্যস্ততায় পূনরায় শুরু হয় রাস্তার কাজ কিন্তু প্রায় এক বছরেও শেষ হয়নি স্বরূপকাঠির সারেংকাঠি ইউনিয়নের বিষ্ণুকাঠি গ্রামের রারী বাড়ি হয়ে করফা পর্যন্ত রাস্তাটির কাজ। এলাকাবাসীর অভিযোগ পুরাতন রাস্তার পচাঁ ইটের সাথে নতুন করে নিন্ম মানের ইট ব্যবহার করায় ক্ষোভের সৃস্টি হয় জনমনে এক পর্যায় বাধাঁর মুখে কাজ বন্ধ করে দেয়া হলে আওয়ামীলীগের ক্ষমতার অপব্যবহারের চেস্টা করে ঠিকাদার পক্ষের সুমন। এক পর্যায় স্বরূপকাঠি এজিইডির প্রকৌশলীর মধ্যস্ততায় পূনরায় কাজ শুরু হলেও সুমন নিম্নমানের ইট ভেঙ্গে গুড়ো করে ফেলে রেখেছে বিষ্ণুকাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের রাস্তায়। এতে বিদ্যালয়গামী শিক্ষক- শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। কোন যানবাহন চলাচল করতে পারছেনা, হেটে গেলেও ধুলায় পোশাক নোংরা হচ্ছে, বৃদ্ধ ও ছোটরা হোচট খেয়ে রক্তাক্ত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এব্যাপারে উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী কবির মিয়া বলেন, সুমন আগের থেকে কিছুটা ভাল কাজ করছে। এ রাস্তায় ব্যবহারের জন্য পচাঁ ইট সে এনেছিল যা আমি নৌকাসহ ফেরৎ পাঠিয়েছি। পুরাতন রাস্তার ইট ব্যবহার করা হয়েছে, নতুন করে খারাপ ইট ব্যবহৃত হয়েছে কি না সেটা দেখব। নাম না প্রকাশ সত্তে ঠিকাদার পক্ষের এক লোক জানায়,  সাইড ভিজিটে এক হাজার টাকা প্রতিদিন ঘুষ ও দুপুরের খাবার জন্য ১৫০টাকা এলজিইডির সহকারি প্রকৌশলীগণকে দিতে হয়। ইট সোলিংএর পরে কার্পেটিং এর অনুমির জন্য ল্যাবটেস্ট বাবদ ত্রিশ হাজার টাটাকা ঘুষ দদিতে হয় এলজিইডিকে। এমন প্রশ্নে তিনি প্রকৌশলী কবির মিয়া বলেন, আমরা তাদের বিল দেইনি তারা টাকা দেবে কোথা থেকে? ল্যাব টেস্টের নামে ত্রিশ হাজার টাকা ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগের ব্যপারে তিনি বলেন, রোলার ভাড়া নিতে হয় সেখানে হয়ত টাকা দেয় যা আমাদের ঘাড়ে চাপিয়ে দিচ্ছে ঠিকাদাররা। স্বরূপকাঠিতে এলজিইডির তত্বাবধানে চলমান এ কাজের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ডকুমেন্টরি কোন ধরণের তথ্য দিতে অস্বীকৃতি জানান। সরকারের উন্নয়ন কাজে দূর্নিতী বন্ধে এধরণের অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারীসহ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনেরর দাবী এলাবাসির।

আপনার মতামত লিখুন

বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ