রবিবার-২৬শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং-১৩ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৩:২২, English Version
রাজারহাটে পুড়িয়ে ফেলা হলো ১০টি ড্রেজার মেশিন হিলি সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফ একে অপরকে মিষ্টি উপহার দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছে হিলিতে আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস পালিত হিলি সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারকালে ৮৩ কেজি ইলিশ মাছ উদ্ধার ইশতেহার : সুস্থ সচল আধুনিক ঢাকা গড়ার প্রতিশ্রুতি আতিকুলের রান্না করুন পায়েস লাউ দিয়েই গ্রামের মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী কাজ করছেন : পরিকল্পনা মন্ত্রী

প্রতিহিংসার আগুনের পুড়ল দোকান

প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ , ৭:২৬ পূর্বাহ্ণ , বিভাগ : বরিশাল,সারাদেশ,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: ঝালকাঠির রাজাপুরে গোপাল বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তির দোকানে পেট্রল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। উপজেলার শুক্তাগড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে বুধবার রাত ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এতে দোকানের ভেতরে থাকা গোপাল ও তাঁর স্ত্রী মঞ্জুরানী বিশ্বাস আহত হয়েছেন।

উপজেলা সদর থেকে ৬ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে অবস্থিত অগ্নিকাণ্ডের স্থানে রাতেই ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ছুটে গেলেও তার আগেই দোকানের সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে স্থানীয় সিদ্দিক মিয়ার সাথে গোপাল বিশ্বাসের দ্বন্দ্ব। সেই দ্বন্দ্বের জেরে গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সময় (৪ মার্চ ২০১৪) গোপাল বিশ্বাসের বাড়িতে অবস্থিত একটি মন্দিরে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছিল। সেই ঘটনায় সিদ্দিক মিয়াসহ চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন গোপাল বিশ্বাসের ভাই উত্তম কুমার বিশ্বাস। বর্তমানে মামলার কার্যক্রম শেষের দিকে রয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সেই মামলার তারিখ নির্ধারিত ছিল। মামলায় আসামিদের সাজা হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হওয়ায় আসামিরা গোপালের ক্ষতি করতে পারে এমন আশঙ্কায় ছিলেন গোপাল ও তার পরিবার। তাই নিজের সম্পদ রক্ষায় গোপাল ও তাঁর স্ত্রী সম্প্রতি দোকানেই রাত্রিযাপন করতেন। পূর্ব শত্রুতার জেরেই আগুন দেওয়ার এ ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয় ও গোপালের স্বজনরা।

গোপাল বিশ্বাস জানায়, আমার ক্ষতি হতে পারে এমন আশঙ্কায় কিছুদিন ধরে আমি ও আমার স্ত্রী দুজনেই রাতে দোকানে ঘুমাতাম। বুধবার রাত ৩টার দিকে হঠাৎ আগুনের উত্তাপে ঘুম ভেঙে যায়। এ সময় পেট্রলের তীব্র গন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল। জীবন নিয়ে কোনোমতে আমরা দুজনে দোকান থেকে বের হতে পারলেও দোকানের কোনো কিছুই রক্ষা করতে পারিনি। আমার দোকান ও মালামালসহ অন্তত ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আয়ের একমাত্র উৎস দোকানটি সম্পূর্ণ পুড়ে যাওয়ায় এখন রোজগারের আর কোনো পথ নেই বলে জানান তিনি।

রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মতর্দা (ওসি) মো. জাহিদ হোসেন বলেন, রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে অভিযোগ করতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

বরিশাল,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ