শনিবার-২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং-৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সন্ধ্যা ৬:১২
দিনাজপুর দোকান কর্মচারী ইউনিয়নের বিশেষ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে নবরূপী’র মাসিক সাহিত্য বাসর অনুষ্ঠিত শীঘ্রই পাইপ লাইনে গ্যাস আসছে দিনাজপুর বাসীর প্রত্যাশা -হুইপ ইকবালুর রহিম (এমপি) প্রিয়ার বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহী, শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে : সেতুমন্ত্রী “জলঢাকায় ফ্রিতে চিকিৎসা সেবা পেল ‘আলোর কণা’র শিক্ষার্থীরা”  শিবগঞ্জের গুজিয়ায় মরহুম নাজিম উদ্দীন স্মৃতি ফুটবল টুর্ণামেন্টের শুভ উদ্বোধন এইচএসসিতে উপজেলার সেরা রেজাল্ট নন-এমপিও কলেজ

লালমনিরহাটে নদী ভাঙ্গনে বসতবাড়ী ও ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলিন

edf

মোঃ লাভলু শেখ, লালমনিরহাট থেকে, ১৩ সেপ্টেম্বর।
পাহাড়ী ঢলে নেমে আসা তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে তিস্তা ও ধরলা নদীর ভাঙ্গন ভয়াবহ অবস্থায় গত কয়েকদিনে লালমনিরহাট সদর উপজেলার, খুনিয়াগাছ, তিস্তা, মোগলহাটের, মেঘারাম থেকে শিবিরকুটি পর্যন্ত, হাতীবান্ধার ধুবনী ও আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা এলাকা মিলে ৩ উপজেলায় শতাধিক বাড়ী ঘর ও ফসলি জমি নদী ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে গেছে। ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধগুলো। নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকার বাসিন্দা নজরুল, সোলেমান, আতোয়ার জানান বাড়ীর লোকজন পালাক্রমে ঘুমাচ্ছেন। কখন করাল গ্রাসী তিস্তা ও ধরলায় ভেঙ্গে যায় বসতবাড়ী ও ফসলি জমি এ আতঙ্কে কাটছে তাদের দিন। স্থানীয়রা দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের দাবী জানালেও কোন কাজে আসেনি। ফলে ৩ উপজেলায় ব্যাপক ক্ষতি হবে বলে স্থানীয়দের দাবি। গত কয়েকদিনে পাহাড়ী ঢলে নেমে আসা তিস্তা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেলেও তা কমে ২০ সে.মি. এর নিচে প্রবাহিত হচ্ছে এবং ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে ৬২ সে.মি. নিচে প্রবাহিত হচ্ছে বলে পা.উ.বো. নিশ্চিত করেছেন। বৃহ:স্পতিবার ১৩ সেপ্টেম্বর লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুল্লাহ আল – মামুনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ভাঙ্গনের কথা স্বীকার করে বলেন সংস্লিস্ট কর্তৃপক্ষের নিকট প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। তবে অনুমোদন পেলে ভাঙ্গন প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তবে মোগলহাট ইউনিয়নে ধরলার ভয়াবহ নদী ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে তিনি দাবী করেন। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ শফিউল আরিফ জানান, ঝুকিপূর্ন বাঁধগুলোতে কাজ চলমান রয়েছে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। বাঁধ রক্ষায় জরুরী ভাবে কোথায়ও প্রয়োজন পড়লে তার জন্য প্রস্তুত রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এসব দূর্গত এলাকা প্রতিনিয়ত স্ব -স্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা ও জন প্রতিনিধিদের মাধ্যমে নদী পাড়ের খোজ খবর নিয়ে সে অনুযায়ী উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হচ্ছে বলে জেলা প্রশাসক জানান।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ