বৃহস্পতিবার-২৩শে মে, ২০১৯ ইং-৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১:০১
ঈদযাত্রায় ট্রেনের দ্বিতীয় দিনের টিকিট বিক্রি চলছে চালে চাপা ধান! কুষ্টিয়ায় মায়ের কবরের পাশে চিরশায়িত হবেন খালিদ হোসেন সম্পর্ক নিয়ে শঙ্কা নেই, ভারতের নতুন সরকারের নীতির দিকে দৃষ্টি ঢাকার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পরামর্শ করে বাজেট তৈরি করুন বিধ্বংসী জয়ে ফের ক্ষমতার পথে হিন্দুত্ববাদী বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল ও বিজেপির হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

মানসম্পন্ন শিল্পোৎপাদনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা।

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  আন্তর্জাতিক মান অনুসরণের মাধ্যমে আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর ও গুণগত মানসম্পন্ন শিল্পোৎপাদন করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ১৪ অক্টোবর, বিশ্ব মান দিবস উপলক্ষে দেওয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আন্তর্জাতিক মান অনুসরণের মাধ্যমে আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর ও গুণগত মানসম্পন্ন শিল্পোৎপাদন বাড়ালে বিশ্বের সকল দেশে বাণিজ্য সহজতর হবে এবং নতুন নতুন পণ্যের বাজার সৃষ্টির সম্ভাবনার পথও সুগম হবে। তিনি বিএসটিআই পণ্য ও সেবার জন্য সময়োপযোগী আন্তর্জাতিক মান বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে দেশের জনগণের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

বিশ্ব মান দিবস প্রতি বছর ১৪ অক্টোবর তারিখে আন্তর্জাতিকভাবে উদযাপিত একটি দিবস। পণ্য-সেবা প্রভৃতির মান উন্নয়নের লক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী কর্মরত বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের অবদানের প্রতি সম্মান জানানোর জন্যই এই দিনটির অবতারনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আশা করি, বিএসটিআই পণ্য ও সেবার জন্য সময়োপযোগী আন্তর্জাতিক মান বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের জনগণের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের মাধ্যমে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখবে।’ প্রধানমন্ত্রী আগামীকাল বিশ্ব মান দিবস উপলক্ষে আজ দেয়া এক বাণীতে এ প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেন।
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও জাতীয় মান সংস্থা বিএসটিআই এর উদ্যোগে আগামীকাল ৪৯তম ‘বিশ্ব মান দিবস’ পালন করা হচ্ছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য অর্থাৎ ‘চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের প্রেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক মান’।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বব্যাপী ইতিমধ্যে ৪র্থ শিল্পবিপ্লবের ছোঁয়া লেগেছে। শিল্পবিপ্লবের এ অগ্রযাত্রায় আন্তর্জাতিক মান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। বিশ্বব্যাপী অধিকতর উন্নত জীবনের চাহিদার প্রেক্ষিতে এ যুগ হবে অত্যন্ত প্রতিযোগিতামূলক। এই প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকতে হলে নতুন উদ্ভাবিত প্রযুক্তির পরিবর্তনগুলো গ্রহণ ও বাস্তবায়ন দ্রুততম সময়ের মধ্যে করতে হবে।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মান সংস্থাসমূহের তত্ত্বাবধানে বিশ্বের নেতৃস্থানীয় বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ ও বিশেষজ্ঞগণ তাঁদের গবেষণালব্ধ তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করে পণ্য সেবার আন্তর্জাতিক মান ও নীতিমালা প্রণয়ন করে যাচ্ছে, যা পণ্যের গুণগতমান, সঠিক স্বাস্থ্যসেবা, নিরাপদ পরিবেশ ও সামাজিক নিরাপত্তাসহ টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতকরণে অবদান রাখছে। সমাজ ও রাষ্ট্রের অধিকতর উন্নতির জন্য আন্তর্জাতিক মান অনুসরণীয় বিনির্দেশ হিসেবে কাজ করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমানে মানুষের শারীরিক পরিশ্রমের স্থানে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবট প্রতিস্থাপিত হচ্ছে। যথাযথ নিরাপত্তার মাধ্যমে হ্যাকারদের থেকে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ডাটাসমূহকে নিরাপদ রাখা যাচ্ছে। নাগরিকদের জন্য দ্রুততম ও আধুনিক পরিবহণ ব্যবস্থা হিসেবে ইলেকট্রিক মেট্রোরেল সংযোজিত হয়েছে, যা বাংলাদেশেও অচিরেই বাস্তবায়িত হবে। প্রধানমন্ত্রী ‘বিশ্ব মান দিবস’ উপলক্ষে গৃহীত সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

জাতীয়,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ