বুধবার-১৯শে জুন, ২০১৯ ইং-৫ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৬:৪১
সার্কাসের হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি, হাতি-মাহুত আটক, জরিমানা বাজেট বইতে উঠে এসেছে মনিকার এখন নিজের থাকার একটা আশ্রয় হয়েছে এটাই শান্তি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে চলছে ভোট আর দুই মামলায় জামিন হলেই খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন : মওদুদ মাশরাফিদের ফের অভিনন্দন প্রধানমন্ত্রীর, সাকিব-লিটনের প্রশংসা সোনার দাম কমছে নওগাঁয় ৯৩৩ কোটি টাকার আম উৎপাদন

বাকিতে সিগারেট না দেওয়ায় পিটিয়ে হত্যা!

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ইউপি সদস্যকে বাকিতে সিগারেট না দেওয়ার জের ধরে আলাল উদ্দিন (৩৮) নামে এক ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটে। গত রবিবার সন্ধ্যায় ময়মনসিংহে চিকিৎসারত অবস্থায় সেই ব্যবসায়ী মারা যান। ঘটনাটি ঘটে গত ৫ মে উপজেলার বারবাড়িয়া ইউনিয়নের পাকাটি বাজারে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারে হতাশা বিরাজ করছে।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বারবাড়িয়া ইউনিয়নের পাকাটি বাজারের মুদি ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেন গত ৫ মে রাতে বড় ভাই আলাল উদ্দিনকে দোকানে রেখে বাড়ি যান। রাত ১০টার দিকে স্থানীয় ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান ওরফে হিরো মেম্বার দোকানে এসে আলাল উদ্দিনের কাছে বাকিতে সিগারেট দিতে বলেন। কিন্তু আলাল উদ্দিন বাকিতে সিগারেট দিতে অস্বীকৃতি জানালে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় হিরো মেম্বার আলাল উদ্দিনকে হুমকি দিয়ে চলে যান। এর জের ধরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে হিরো মেম্বারের লোকজন দোকানের বারান্দায় ফেলে আলাল উদ্দিনকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। এতে আলাল উদ্দিন অজ্ঞান হয়ে গেলে বাজারের লোকজনের সহায়তায় স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরদিন কিছুটা সুস্থ হলে বিচার সালিসের আশ্বাস দিয়ে আলাল উদ্দিনকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু বাড়ি যাওয়ার পর আলাল উদ্দিন আবারো অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাকে পুনরায় ময়মনসিংহে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় রবিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে তিনি মারা যান। পরে নিহতের স্বজনরা লাশ বাড়িতে নিয়ে এলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

নিহতের ভাতিজা অপু রায়হান বলেন, বাকিতে সিগারেট না দেওয়ায় হিরো মেম্বার ও তার ছেলেরা আমার চাচাকে পিটিয়ে আহত করে। পরে তিনি চিকিৎসারত অবস্থায় তিনি মারা যান। আমরা এর সঠিক বিচার চাই। থানা পুলিশের কাছে বিচার পাব না তাই পরিবারের পক্ষ থেকে আমরা আদালতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান হিরোর কাছে জানতে চাইলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আলাল উদ্দিন অসুস্থতাজনিত কারণে মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল। পাকাটি বাজারে আমি আলাল উদ্দিনকে মশকরা করে বলেছিলাম ‘মামু তুমি কি পাগল হয়ে গেছ’। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সে আমাকে প্রচণ্ড জোরে ঘুষি মারলে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই। পরে আমার ছোট ছেলে আসাদুল এসে আলালকে ৩-৪টি ঘুষি দিয়েছে। এটুকুই ঘটনা। আলাল অসুস্থতাজনিত কারণে মারা গেছে। এখন আমাকে ফাঁসানোর জন্য একটি পক্ষ উঠেপড়ে লেগেছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম বলেন, নিহত আলাল উদ্দিন অসুস্থ ছিলেন। তাকে মারধর করাটাও ঠিক হয়নি। তবে মারধরে নাকি অসুস্থতাজনিত কারণে মারা গেছেন ময়নাতদন্ত ছাড়া বলা যাবে না।

গফরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছি। যেহেতু ময়মনসিংহে মারা গেছেন তাই লাশের ময়নাতদন্ত করাবেন কোতোয়ালি থানা পুলিশ। এরই মধ্যে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ও তদন্তের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ‘সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

ময়মনসিংহ,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ