রবিবার-২১শে জুলাই, ২০১৯ ইং-৬ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: ভোর ৫:৫৫
পঞ্চগড়ে মাদক বিরোধী শোভাযাত্রা পাঁচবিবিতে চাচাতো ভাইয়ের লাঠির আঘাতে ভাইয়ের মৃত্যু পঞ্চগড়ে ১০ দিনব্যাপী বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন পর্যায়ক্রমে সব অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হবে -হবিগঞ্জে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জলঢকায় ফলদ বৃক্ষমেলার সমাপ্ত ও বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরন ডোমারের সন্তান বন্ধন জেনেটিকস্ লিঃ এর পরিচালক আনোয়ারের সাথে থাইল্যান্ড কোম্পানী সমঝোতা ও বানিজ্য চুক্তি স্বাক্ষর। মোকামতলায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য উদ্ধার, আটক ৩

প্রকৃতিতে বসন্তের আগমন ধব্বনি তরুনীরা সাজবে বাসন্তী সাজে

মো.জহিরুল ইসলাম. স্টাফ রিপোর্টার  মৌলভীবাজার:: প্রকৃতি আজ দক্ষিণা দুয়ার খুলে দিয়েছে। সে দুয়ারে বইছে ফালগুনের হাওয়া।বসন্তের আগমনে কোকিল গাইছে গান। ভ্রমরও করছে খেলা। গাছে গাছে পলাশ আর শিমুলের মেলা। আজ পহেলা ফালগুন।
আর এই ফালগুনের হাত ধরেই বাংলার প্রকৃতিতে আগমন ঘটেছে ঋতুরাজ বসন্তের।বসন্তের আগমনে যেমন প্রকৃতি নানা রূপে, ফুলে-ফলে,পাতায়-পাতায় মেতে ওঠে। কোকিলের কুহুতান, দখিণা হাওয়া, ঝরা পাতার শুকনো নুপরের নিক্কন, প্রকৃতির মিলন সবই এ বসন্তেই দেখা মেলে। আর তাই ঋতুরাজকে স্বাগত জানাতে প্রকৃতির পাশাপাশি রঙ্গিন সাজে বর্ণিল উৎসবে মেতে উঠে তরুণ-তরুণীরা। এই দিনের সাজপোশাকেও তাই প্রাধান্য পায় ফুল। লাল, হলুদ,বেগুনি নানান ফুলের সমাহার। চারিদিকে শুধু ফুলের মৌ মৌ সুগন্ধ। তাইতো কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের ভাষায়, ‘ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক/ আজ বসন্ত’
বসন্তের প্রথম সকালে বাসন্তী রং শাড়ি,কপালে টিপ,হাতে চুড়ি,পায়ে নূপুর,খোঁপায় ফুল জড়িয়ে বেরিয়ে পড়বে তরুণীর দল। পাঞ্জাবি, ফতুয়া পরা ছেলেরাও সঙ্গী হবে বসন্তবরণের বিভিন্ন আয়োজনের।
বঙ্গাব্দ ১৪০১ থেকে বাংলাদেশে প্রথম ‘বসন্ত উৎসব’ উদযাপন করার রীতি চালু হয়। আর সেই থেকে জাতীয়’বসন্ত উৎসব উদযাপন পরিষদ’ বসন্ত উৎসব আয়োজন করে আসছে।
বসন্তের প্রথম দিনে অসংখ্য রমণী বাসন্তী রঙে নিজেকে রাঙিয়ে তোলে।সুশোভিত করা হয় রাজধানীর রাজপথ,পার্ক,বইমেলা,বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ চত্বরসহ পুরো নগরীজুড়ে।এ পূর্ণতার বসন্তের দোলা ছড়িয়ে পড়ে বাংলাদেশের সর্বত্র এবং সারা পৃথিবীর সব বাঙালির ঘরে ঘরে।তবে বাস্তবতার পাথরচাপা হৃদয়ে সবুজ বিবর্ণ হওয়া চোখে প্রকৃতি দেখার সুযোগ পান না নগরবাসী। কোকিলের ডাক,রঙিন কৃষ্ণচূড়া আর আমের মুকুলের কথা বইয়ের পাতায় পড়ে থাকলেও একালের তরুণ-তরুণীরা কিন্তু বসে থাকতে রাজি নন।গায়ে হলুদ আর বাসন্তী রঙের শাড়ি জড়িয়ে তরুণী ও পাঞ্জাবি পরা তরুণরাও এদিন নিজেদের রঙিন সাজে সাজাতে কম যান না।
সেই থেকে জাতীয় বসন্ত উৎসব উদযাপন পরিষদ বসন্ত উৎসব আয়োজন করে আসছে। দেশের বিভিন্ন জায়গায় আজ দিনভর চলবে তরুণ-তরুণীদের বসন্তের উচ্ছ্বাস প্রকাশ।ফোন,ফেসবুক,টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলবে শুভেচ্ছা বিনিময়।আজ নানা আয়োজনে বসন্তকে বরণ করবে বাঙালি।
বসন্তের প্রথম সকালে বাসন্তি রঙা শাড়ি,কপালে টিপ,হাতে চুড়ি,পায়ে নূপুর,খোঁপায় গাঁদা ফুল জড়িয়ে বেরিয়ে পড়বে তরুণী-বধূরা।বাসন্তি পাঞ্জাবি,ফতুয়া পরা হাজারো ছেলে-বুড়োর ঢল নামবে বসন্ত বরণের নানা আয়োজনে।
বসন্তের আমোদনে ফাগুনের ঝিরিঝিরি হাওয়া,রক্তিম পলাশ,শিমুল,কা ন পারিজাত,মাধবী,গামারী আর মৃদু গাঁদার ছোট ছোট ফুলের বর্ণিল রূপে চোখ জুড়াবে।বসন্ত তারুণ্যেরই ঋতু,তাই সবারই মনে বেজে ওঠে, কবির এ বাণী- ‘বসন্ত ছুঁয়েছে আমাকে।ঘুমন্ত মন তাই জেগেছে, পয়লা ফালগুন আনন্দের দিনে’।
বসন্তের উৎসব বাঙালির প্রাণের উৎসব।বর্ষবরণ,নবান্ন উৎসব,পৌষমেলা-এসবের মতো বসন্ত উৎসবও বাঙালি চেতনার অবিচ্ছেদ্য অংশ। যার মাধ্যমে সৃষ্টি হয় পারস্পরিক বিশ্বাস ও সহনশীলতা।দৃঢ়তর হয় মৈত্রীর বন্ধন। শুধু রাজধানীতে নয়,দেশজুড়ে বসন্তের আবাহনে আয়োজন করা হয় নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে আজ। বিশেষ করে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুনীরা সাজবে বাসন্তী সাজে। সেই সাজে প্রিয় মনের মানুষের সাথে সময় কাটাবে একান্ত মনে।প্রকৃতি আর মানুষের এই মিলনমেলা গোটা দেশকে মাতিয়ে তোলে আনন্দ।
গাছের পাতা ঝরতে শুরু করেছে আরও কয়েকদিন আগেই। ইট-পাথরের রাজধানীতেও শোনা যাচ্ছিল কোকিলের কুহুতান।আর শীতের খোলস পাল্টে প্রকৃতি তার রূপ বদলাতে শুরু করেছে তারও আগে।
আজ বসন্তের প্রথম দিন। অমর একুশে গ্রন্থমেলায়ও এর দোলা লাগবে।আজ মেলায় থাকবে বাসন্তী রঙের উৎসব। তরুণীরা এ রংয়ের পোশাক আর গাঁদা ফুলে নিজেদের সাজিয়ে মেলায় আসবেন।তরুণরা পরবেন বাসন্তী রংয়ের পাঞ্জাবি-ফতুয়া। আর ফাল্গুনের দ্বিতীয় দিন অর্থাৎ বুধবার মেলায় থাকবে ভালোবাসার পরশ।কারণ,দিনটি ভালোবাসার মানে ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’।প্রেমিক যুগল হাতে হাত ধরে শহরে নানা জায়গায় ঘোরাঘুরি শেষে আসবেন বই মেলায়।মনের মানুষটিকে লাল গোলাপের সঙ্গে উপহার দেবেন প্রিয় লেখকের বই। আজ মেলা রাঙাবে লাল রংয়ে। দু’দিনই মেলায় থাকবে বসন্ত উৎসবের আমেজ।
আজ পহেলা ফালগুন হলেও মেলায় বসন্তের আমেজ শুরু হয়ে গেছে গতকাল মঙ্গলবার থেকেই। শীতের শেষ বেলায় মেলায় আসা বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষের পোশাক সাজ-সজ্জায় থাকবে বসন্তের আবহ। বাসন্তী রংয়ের শাড়ি পরে ঘোরবে তরুনীর দল।প্রকৃতির মতো তাদের মনে বসন্ত আরও আগেই চলে এসেছে।তাই বন্ধুরা মিলে ঘোরতে বের হবে।
আপনার মতামত লিখুন

সারাদেশ,সিলেট বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ