মঙ্গলবার-২১শে মে, ২০১৯ ইং-৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ২:৫৬
উচ্চ মাধ্যমিক পাসেই নিয়োগ দেবে বিমান বাংলাদেশ কৃষকদের ধান নিয়ে ছিনিমিনি নয়, ডিসিকে মাশরাফির ফোন ভাড়া করা নেতৃত্বে চলছে বিএনপি : তথ্যমন্ত্রী আমেরিকার সঙ্গে যুদ্ধ হলে ইরান ধ্বংস হবে : ট্রাম্প মাশরাফির নায়িকা হতে চাই: পূজা চেরি পার্বতীপুরে হার্ডওয়ার নেটওয়ার্ক প্রশিক্ষন পেল শিক্ষকরা গোবিন্দগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় ভ্যান চালকের মর্মান্তিক মৃত্যু

পার্বতীপুরের অদম্য সাকিব সাংবাদিক হতে চায়

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক : দুই হাতের কবজি পর্যন্ত নেই নাজমুস সাকিবের। নেই ডান পায়ের হাঁটুর নিচের অংশ। তার পরেও কোন বাঁধায়ই দমাতে পারেনি তাকে।

সাকিব এবার দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার মন্মথপুর কো-অপারেটিভ হাইস্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে জিপিএ ৪.৫৬ পয়েন্ট পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে।

সাকিবের বাড়ি উপজেলার মোমিনপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর সরদারপাড়া গ্রামে। বাবা একজন বর্গাচাষি। সাকিব উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করে একজন সাংবাদিক হতে চায়।

নাজমুস সাকিব বলেন, তারা তিন ভাই। বড় ভাই রোকনুজ্জামান হাজি দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি বিভাগে পড়াশোনা করে। মেজো ভাই দিনাজপুর সরকারী পলিটেকনিক্যাল কলেজে পড়ে। কিন্তু সে বড় হয়ে সাংবাদিকতা বিভাগে পড়াশোনা করে সাংবাদিক হতে চায়।

দু’হাতের কবজি পর্যন্ত না থাকার পরেও সে জেএসসিতে ৪.৪০ পয়েন্ট পেয়ে সে উত্তীর্ণ হয়েছে। এবার এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৪.৫৬ পয়েন্ট পেয়েছে।

আক্ষেপ করে সাকিব বলে, আমাকে প্রচলিত নিয়মের চেয়ে অতিরিক্ত সময় দেওয়া হলে সকল বিষয়ে জিপিএ-৫ পেতাম। আমাকে অতিরিক্ত সময় না দেওয়ায় লিখতে পারি নাই।

সাকিবের বাবা আজিম উদ্দীন বলেন, আমার মাত্র ৮ শতাংশ জমি আছে। অন্যের জমি বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করি। তিন ছেলের লেখাপড়ার খরচ চালানো আমার পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়েছে। স্থানীয় বেসরকারি সংস্থা কাম-টু-ওয়ার্ক এতো দিন প্রতিবন্ধি ছেলেটার লেখাপড়ার খরচ চালিয়েছে।

কাম-টু-ওয়ার্কের নির্বাহী পরিচালক মতিউর রহমান বলেন, সাকিব জন্ম থেকে প্রতিবন্ধী হলেও সে মেধাবী। আমরা সাকিব ছাড়াও ২৪০ জন প্রতিবন্ধীকে শিক্ষা সহায়তা দিয়ে আসছি।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ