বৃহস্পতিবার-২৩শে মে, ২০১৯ ইং-৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১০:৪৩
মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়ছে দিনাজপুর রাজবাটি আদর্শ মানব কল্যান সংঘের গ্রাহক সমাবেশ ও ইফতার অনুষ্ঠিত শুল্ক বৃদ্ধির ফলে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানি বন্ধ মোদিকে অভিনন্দন শেখ হাসিনার অবশেষে কাল হচ্ছে প্রথম ধাপের প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ফ্লাইওভার ও আন্ডারপাস উদ্বোধনে উত্তরের ঈদযাত্রা নিরাপদ হবে : সেতুমন্ত্রী মাদকসহ কারারী ও জেল সুপারের ড্রাইভার আটক

ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞায় গ্রিন কার্ডধারীরাও

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: সিরিয়াসহ যে ৭টি মুসলিম প্রধান দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে, তার আওতায় গ্রিন কার্ডধারীরাও থাকছেন বলে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট জানিয়েছে। এক জ্যেষ্ঠ মার্কিন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে শনিবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।
ওই ডিপার্টমেন্টের একজন মুখপাত্র শনিবার ই-মেইলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, গ্রিন কার্ডধারীদেরও (যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে বসবাসের অনুমতি পাওয়া) এটা আটকাবে।
আগামী ৪ মাস যুক্তরাষ্ট্রে শরণার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে শুক্রবার একটি নির্বাহী আদেশে সই করেন ট্রাম্প। সিরিয়ার শরণার্থীদের জন্য অনির্দিষ্টকালের নিষেধাজ্ঞা দেয়ার পাশাপাশি মুসলিম প্রধান ৬টি দেশের নাগরিকদের জন্য ৩ মাসের কড়াকড়ি আরোপ করা হয় এতে।
এর ফলে সিরিয়া ছাড়াও ইরাক, ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান ও ইয়েমেন থেকে আগামী ৯০ দিন কেউ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি পাবে না।
পেন্টাগনে বসে এই আদেশে সই করে ট্রাম্প বলেন, উগ্র ইসলামউ সন্ত্রাসীদের যুক্তরাষ্ট্র থেকে দূরে রাখতে নতুন এই ভেটিং ব্যবস্থা আমি চালু করছি। আমরা শুধু তাদেরই আসতে দিতে পারি, যারা আমাদের দেশকে সমর্থন দেবে এবং আমাদের জনগণকে গভীরভাবে ভালোবাসবে।
শনিবার থেকেই বিশ্বজুড়ে ট্রাম্পের ওই আদেশের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে।
যুক্তরাষ্ট্রের বৈধ ইমিগ্রেশন ভিসা থাকার পরও এদিন মিহরের কায়রো বিমানবন্দরে ৫ ইরাকি ও এক ইয়েমেনিকে নিউইয়র্কগামী ফ্লাইটে উঠতে দেয়া হয়নি বলে রয়টার্স জানিয়েছে।
নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরে ১১ জন শরণার্থীকে আটকের খবর দিয়েছে বিবিসি। আটকদের মুক্তি দাবিতে ওই বিমানবন্দরে বিক্ষুব্ধদের জড়ো হওয়ারও খবর দিয়েছে তারা।
ট্রাম্পকে এই সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে শরণার্থীদের যুক্তরাষ্ট্রে পুনর্বাসনের সুযোগ অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) ও আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম)।
আপনার মতামত লিখুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ