শুক্রবার-২৪শে মে, ২০১৯ ইং-১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৪:৫২
মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়ছে দিনাজপুর রাজবাটি আদর্শ মানব কল্যান সংঘের গ্রাহক সমাবেশ ও ইফতার অনুষ্ঠিত শুল্ক বৃদ্ধির ফলে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানি বন্ধ মোদিকে অভিনন্দন শেখ হাসিনার অবশেষে কাল হচ্ছে প্রথম ধাপের প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ফ্লাইওভার ও আন্ডারপাস উদ্বোধনে উত্তরের ঈদযাত্রা নিরাপদ হবে : সেতুমন্ত্রী মাদকসহ কারারী ও জেল সুপারের ড্রাইভার আটক

টার্গেট নাগালে; দায়িত্ব এখন ব্যাটসম্যানদের

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: শাই হোপ আর রোস্টন চেইজ যেভাবে ব্যাটিং শুরু করেছিলেন, তাতে এক পর্যায়ে মনে হয়েছিল আরেকটি তিনশ ছাড়ানো স্কোর দেখতে যাচ্ছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অধিনায়ক মাশরাফি-সাইফউদ্দিনদের দাপটে সেটা হলো না। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ক্যারিবীয়রা থামল ৯ উইকেটে ২৬১ রানে। ৪৯ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সফলতম বোলার মাশরাফি। ২টি করে নিয়ছেন মুস্তাফিজ-সাইফ। আর একটি করে উইকেট শিকার করেছেন দুই স্পিনার সাকিব আর মিরাজ।

মঙ্গলবার ডাবলিনে টস জিতে বাংলাদেশকে ফিল্ডিংয়ে আমন্ত্রণ জানায় প্রথম ম্যাচে আইরিশদের বিপক্ষে বিশাল জয় পাওয়া উইন্ডিজ। ব্যাট হাতে ধীর শুরু করলেও একসময় হাত খুলতে শুরু করেন শাই হোপ আর সুনিল অ্যামব্রিস। রানের গতি মাঝারি থাকলেও তিন পেসার নিয়ে আক্রমণ নামা বাংলাদেশ সাফল্যের দেখা পাচ্ছিল না। পাঁচ বোলার ব্যবহার করে ফেলেছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা; কিন্তু কোনোভাবেই ভাঙা যাচ্ছিল না উইন্ডিজের ওপেনিং জুটি।

টানা দ্বিতীয় ম্যাচে তিন অংকের জুটির স্বপ্নে যখন ক্যারিবীয়রা বিভোর; তখনই আঘাত হানলেন মেহেদী মিরাজ। তরুণ স্পিনারের ঘূর্ণিতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের তালুবন্দি হয়েছেন ৫০ বলে ৩৮ রান করা সুনিল অ্যমব্রিস। ৮৯ রানে প্রথম উইকেট হারাল উইন্ডিজ। পরের ওভারে এসেই আঘাত হানেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তার দুর্দান্ত ঘূর্ণিতে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসে ধরা পড়েন ডোয়াইন ব্র্যাভো (১)।

পরপর দুই উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়া উইন্ডিজকে টেনে তোলেন আরেক ওপেনার শাই হোপ এবং রোস্টন চেইজ। ১২৬ বলে ১০ চার এবং ১ ছক্কায় ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন শাই হোপ। আগের ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষেও তিনি ১৭০ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। হোপের সেঞ্চুরির পরেই ধস নামে ক্যারিবীয় ব্যাটিং লাইনআপে। মাশরাফির বলে মুস্তাফিজের তালুবন্দি হন চেইজ (৫১)। ভাঙ্গে ১১৫ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি।

ফিরতি ওভারে এসেই আবারও আঘাত মাশরাফির। তার বলে মোহাম্মদ মিঠুনের হাতে ধরা পড়েন ১০৯ রান করা শাই হোপ। এক বল পরেই টাইগার অধিনায়কের শিকার হন উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার (৪)। সাইফউদ্দিনের বলে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফিরে যান শন ডারউইচ (৬)। ২ উইকেটে ২০৪ রান থেকে মুহূর্তেই ৬ উইকেটে ২১৯ হয়ে যায় উইন্ডিজের স্কোর।

ম্যাচজুড়ে প্রায় সাড়ে ৮ করে রান দেওয়া মুস্তাফিজের বলে জোনাথন কার্টার (১১) সাকিবের তালুবন্দি হলে সপ্তম উইকেটের পতন হয় ক্যারিবীয়দের। সাইফউদ্দিনের দ্বিতীয় শিকার কেমার রোচ (১)। শেষ ওভারে অ্যাশলে নার্সকে (১৯) সাব্বির রহমানের তালুবন্দি করেন মুস্তাফিজ। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৬১ রানে শেষ হয় উইন্ডিজের ইনিংস।

টাইগার একাদশ: মাশরাফি বিন মুর্তজা, মাহমুদউল্লাহ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ মিঠুন, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান, সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান।

উইন্ডিজ একাদশ: জেসন হোল্ডার (অধিনায়ক), ড্যারেন ব্রাভো, শাই হোপ, শেলডন কটরেল, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, কেমার রোচ, সুনিল আমব্রিস, অ্যাশলি নার্স, রোস্টন চেইস, শেন ডাওরিচ, জোনাথন কার্টার।

আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ