শনিবার-২৫শে মে, ২০১৯ ইং-১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৮:৫৫
কলেজে ভর্তির আবেদন এখনও করেননি আড়াই লাখ শিক্ষার্থী ডোমারে আওয়ামীলীগের ইফতার মাহফিল জলঢাকায় সড়কে ধান ও খড় শুকানোর ধুমপরেছে- চলাচলে জনগনের দূর্ভোগ বিপুল জয়ে মোদিকে বিএনপির অভিনন্দন বিপুল জয়ে মোদিকে বিশ্বনেতাদের অভিনন্দন ২৫ জেলায় চলছে প্রথম ধাপের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়ছে

জলঢাকার চাষীরা ধান ও সবজি চাষে বিপ্লব ঘটিয়েছে দাম নিয়ে দুঃচিন্তায়


এরশাদ আলম, জলঢাকা(নীলফামারী) প্রতিনিধি ঃ
নীলফামারীর জলঢাকা সহ ৬ টি উপজেলার চাষীরা খাদ্যশস্য উৎপাদনে এখন ব্যতিব্যস্ত। বাংলাদেশের আবহাওয়া ও পরিবেশ বোরো ও আমন মৌসুমে সুগন্ধি ধান চাষ করা সম্ভব করে দিয়েছে বর্তমান ডিজিটাল প্রযুক্তি। এ অঞ্চলের মানুষ দারিদ্রতাকে ডিঙ্গিয়ে ইচ্ছা শক্তি কাজে লাগিয়ে উচ্চ ফলনশীল প্রক্রিয়াজাতকরণের মাধ্যমে সুগন্ধি চাউল উৎপাদন করে এখন উত্তরের বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি করা হচ্ছে। ফুল আশা থেকে পরিপক্কতা পর্যন্ত যথাযথ সুগন্ধি শস্য দানার প্রয়োজন সামান্য আর্দ্রাতা, মৃদু বাতাস, শিতল রাত্রী এবং রৌদ্রজ্জ্বল দিন। সব ধরণের মাটিতে এ খাদ্যশস্য উৎপাদন করা যায়। কাঁদাময় বীজতলায় অঙ্কুরিত বীজ রোপন করতে হয়। কাঁদা বেশি হলে বীজ মাটিতে ডুবে যায়। বুধবার সরেজমিনে গেলে জলঢাকা উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবীদ শাহ মুহাম্মদ মাহফুজুল হক বলেন, এ ফসল মার্চ থেকে অক্টোবার মাসে উৎপাদিত হয়। বেশিরভাগ ক্ষতিকর পোকাড় আক্রমণ শুধু পোকামাড়ের কারণে প্রতি বছর গড়ে ২০% উৎপাদন ১৫% চিনি আহরণ হৃাস পায়। বাংলাদেশের বিপদাপন্ন জনগোষ্ঠির খাদ্য ও পুুষ্ঠির চাহিদা মেটাতে আয়-রোজগার বাড়াতে গবাদি প্রাণী ও হাঁস-মুরগি প্রতিপালনের গুরুত্ব অপরিসীম। নীলফামারী জেলা রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি মানিক লাল দত্ত বলেন, দারিদ্র জনগোষ্ঠির নাজুক অর্থনীতি এবং প্রাকৃতিক সম্পদের উপর অধিক নির্ভরতা পৃথিবীর জলবায়ুর পরিবর্তনের মূলে রয়েছে বৈশ্বিক তাপমাত্রা এ তামাত্রার উপর নির্ভর করে পানি, বরফ, তরল ও বাষ্পীয় অবস্থান করে ফলে বায়ু প্রবাহ অব্যাহত থাকে।

আপনার মতামত লিখুন

কৃষি,রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ