বৃহস্পতিবার-১৮ই জুলাই, ২০১৯ ইং-৩রা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১২:৪২
বহু অপকর্মের হুতা পারভেজ বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ অবশেষে পুলিশ হাতে আটক  ৫৫ দিনেই মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ করায় ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী বন্যায় রাজধানীর সঙ্গে ৪ জেলার রেলযোগাযোগ বন্ধ কর্মকর্তাদের অসন্তোষে বড়পুকুরিয়া খনির এমডিকে অপসারণ পার্বতীপুরে সাংবাদিকের মেয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে চিরিরবন্দরে এইচএসসি পরীক্ষায় ফেল করায় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা রাণীরবন্দর তাঁত বোর্ডের পিয়নের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

চেনা ছন্দে বাফুফের ফুটবল

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: গত ৭ জুলাই বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছিল প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোকে। সেটা মূলত ২০১৮-১৯ মৌসুমের ফুটবল সূচি। সেখানে ২০ অক্টোবর ফেডারেশন কাপ দিয়ে মৌসুম শুরুর কথা উল্লেখ ছিল। এরপর ২৩ নভেম্বর থেকে প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ। গতকাল আবার সভায় বসতেই বদলে গেল সব। মৌসুম শুরু হবে ২২ অক্টোবর ফেডারেশন কাপ দিয়ে।

ক্রীড়া প্রতিবেদক : শুরু হবে নতুন ফুটবল মৌসুম। বাফুফের পেশাদার লিগ কমিটি আবার তার স্বাভাবিক ছন্দে। সূচি বদলানো আর খেলা পেছানোর ছন্দ! এই কর্মটুকু না করলে যেন তাদের নিজস্বতা থাকে না। সেই প্রথা বজায় রেখেই তারা কালকের সভায় মৌসুমের প্রথম টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপ পিছিয়ে ফর্ম ধরে রাখার ইঙ্গিত দিয়েছে। সঙ্গে ছয় ভেন্যুর নতুন ঘোষণা।

গত ৭ জুলাই বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি পাঠানো হয়েছিল প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলোকে। সেটা মূলত ২০১৮-১৯ মৌসুমের ফুটবল সূচি। সেখানে ২০ অক্টোবর ফেডারেশন কাপ দিয়ে মৌসুম শুরুর কথা উল্লেখ ছিল। এরপর ২৩ নভেম্বর থেকে প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ। চিঠির ভাষা অনুযায়ী ওসব ছিল গত ২১ মে অনুষ্ঠিত লিগ কমিটির সভার সিদ্ধান্ত। গতকাল আবার সভায় বসতেই বদলে গেল সব। মৌসুম শুরু হবে ২২ অক্টোবর ফেডারেশন কাপ দিয়ে। পরের সভায় সেটা বদলাবে না, এমন গ্যারান্টি কিন্তু দেওয়া যাবে না। তবে লিগ শুরুর খবর প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে না থাকলেও জানা গেছে ১৬ নভেম্বর শুরু হবে। এটা আবার এগিয়েছে। কোনো সিদ্ধান্তেই তারা অটল থাকে না, বাফুফে মতি-গতি সর্বদা পরিবর্তনশীল। লিগ শেষ করবে আগামী মে মাসের মধ্যে, সেই অনুযায়ী সূচিও নাকি হয়ে গেছে। খেলা চলবে জাতীয় নির্বাচনের সময়ও। এ ব্যাপারে পেশাদার লিগ কমিটির চেয়ারম্যান সালাম মুর্শেদী বলেছেন, ‘খেলাধুলা স্বাভাবিকভাবে চলতে কোনো বাধা নেই। আমরা সবাই তো এ দেশের মানুষ, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ক্লাবগুলোর সঙ্গে বসে সিদ্ধান্ত নেব আমরা।’

এবার লিগ হবে সপ্তাহে তিন দিন—শুক্র, শনি ও রবিবার। এএফসির কড়াকড়িতে দেশের শীর্ষ লিগটিকে আর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামকেন্দ্রিক করে রাখতে পারেনি। তাদের নির্দেশে ভেন্যু বাড়াতেই হয়েছে। ৯টি ভেন্যুর নাম জমা পড়েছিল বাফুফের টেবিলে। কালকের সভায় সেখান থেকে অনুমোদন করা হয়েছে ছয়টি ভেন্যু। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহের শহীদ রফিক উদ্দিন স্টেডিয়াম, গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়াম, নীলফামারীর শেখ কামাল স্টেডিয়াম ও নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম। এগুলোও যে একদম চূড়ান্ত তা বলা কঠিন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত। অর্থাত্ পরের সভায় বাফুফের চিরকালীন বৈশিষ্ট্য বজায় থাকলে বদলেও যেতে পারে।

সভায় আরেকটি বড় সিদ্ধান্ত হলো, বিদেশির সংখ্যা বাড়ছে মাঠে। গত মৌসুমে প্রত্যেক দলে দুই বিদেশি একসঙ্গে মাঠে থাকতে পারত। এই নিয়ম কাল বদলে চার বিদেশিতে গিয়ে ঠেকেছে, এর মধ্যে একজন অবশ্যই এশীয় বিদেশি হতে হবে। এখন চার বিদেশির রেজিস্ট্রেশন এবং একসঙ্গে খেলতে পারবে চারজনই। গতবার দুই বিদেশি খেলানোর কারণে কিন্তু খেলার সামগ্রিক মান পড়ে গিয়েছিল অনেকখানি। কমে গিয়েছিল গতিও। কারণ দেশে খেলোয়াড় সংকট চরমে, জাতীয় দলের অবস্থা দেখলেই সেটা স্পষ্ট হয়ে যায়। ক্লাবগুলোও খুঁজে পাচ্ছে না দেশি ভালো ফুটবলার। তাদের দাবির মুখে শেষ পর্যন্ত বিদেশির কোটা বাড়াতে বাধ্য হয়েছে বাফুফেকে। বাড়ানো হয়েছে দলবদলের সময়সীমাও। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত দেশি ফুটবলারদের দলবদল করা যাবে। বিদেশিদের বেলায়ও তাই। গতবার স্বাধীনতা কাপে শুধু দেশি ফুটবলাররা খেললেও এবার লিগসহ মৌসুমের প্রত্যেকটি টুর্নামেন্টে বিদেশিদের উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।সূত্র: কালের কণ্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ