বৃহস্পতিবার-২৩শে মে, ২০১৯ ইং-৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: দুপুর ১:৪৪
ঈদযাত্রায় ট্রেনের দ্বিতীয় দিনের টিকিট বিক্রি চলছে চালে চাপা ধান! কুষ্টিয়ায় মায়ের কবরের পাশে চিরশায়িত হবেন খালিদ হোসেন সম্পর্ক নিয়ে শঙ্কা নেই, ভারতের নতুন সরকারের নীতির দিকে দৃষ্টি ঢাকার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পরামর্শ করে বাজেট তৈরি করুন বিধ্বংসী জয়ে ফের ক্ষমতার পথে হিন্দুত্ববাদী বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল ও বিজেপির হাড্ডাহাড্ডি লড়াই

কাজের খোঁজে উত্তর থেকে দক্ষিণমুখী কৃষিশ্রমিকরা

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক : শরিফুল ইসলাম। ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার গঙ্গা বিএম কলেজের ছাত্র। লেখাপড়ার পাশাপাশি কৃষিকাজও করেন। অসচ্ছলতার কারণে গ্রামের ১৫ জন মজুরের সঙ্গে ধান কাটতে যাচ্ছেন দক্ষিণের যশোর জেলায়।

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার রানীরবন্দরের স্কুলছাত্র সাইফুল ইসলামের এসএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট এখনো প্রকাশ হয়নি। তিনিও এলাকার মজুর দলের সঙ্গে যাচ্ছেন সান্তাহার। রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার কৃষক আশরাফ আলী ১২ জনের দল নিয়ে ধান কাটতে চলছেন নওগাঁর উদ্দেশে। ধান পাকলেই গৃহকর্তা তাদের ফোন দেন। ওই এলাকায় মজুরি বেশি পাওয়া যায়। শুধু শরিফুল, সাইফুল ইসলাম ও আশরাফ আলী ননÑ উত্তরাঞ্চলের হাজার হাজার শ্রমিক-মজুর ধান কাটতে ছুটছেন দক্ষিণের পাঁচবিবি, জয়পুরহাট, আক্কেলপুর, তিলকপুর, সান্তাহার, আদমদীঘি, আত্রাই, নওগাঁ, নাটোর, খুলনা, যশোরসহ বিভিন্ন জেলায়। দেশ রুপান্তর

পার্বতীপুর রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, নীলফামারী অঞ্চলের কৃষিশ্রমিকদের জন্য সহজ মাধ্যম হচ্ছে রেলপথ। এসব শ্রমিক খুলনাগামী মেইল ট্রেন, ডাউন উত্তরা এক্সপ্রেস, আন্তঃনগর সীমান্ত, বরেন্দ্র ও রূপসা ট্রেনে ভ্রমণ করে থাকেন। সবার হাতে বাঁশের বাংকুয়া, মাথাল, কাস্তে আর ব্যাগ। উত্তরের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, নীলফামারী ও রংপুর থেকে আসা মজুররা ভিড় করছেন পার্বতীপুর রেল জংশন স্টেশনে। এদের দুঃখÑ ভাগ্যে জুটছে না ট্রেনের আসন। সিটবিহীন টিকিট কেটেই তাদের ট্রেনের ভেতরে ও ছাদে ঝুঁকি নিয়ে যেতে হচ্ছে। তবে মজুরদের টাকা ও মোবাইল ফোনসহ কোনো মালামাল যাতে খোয়া না যায় সে জন্য নজরদারি বাড়িয়েছে পার্বতীপুর রেলওয়ে থানা পুলিশ।

গতকাল রবিবার সকাল ৯টায় পার্বতীপুর রেলস্টেশনের ২ নম্বর প্ল্যাটফরমে কথা হয় নীলফামারী জেলার চিলাহাটি এলাকার রফিকুল আলমের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘পিতা-মাতা ও সন্তানের মুখ চেয়ে অর্থের আশায় রোজগার করতে যাচ্ছি। আমার পিতা-মাতা বৃদ্ধ। সে সঙ্গে আমার সন্তানকে লেখাপড়া শেখামু ভাই। তা ছাড়া এলাকায় কাজ না থাকায় তাই এ সময় হামরা দলবেঁধে উত্তরের কৃষি মজুররা ছুটে যাছি দক্ষিণত।’

পার্বতীপুর রেলওয়ে থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান জানান, স্টেশন এলাকা ও ট্রেনে কোনো শ্রমিক বা মজুরের যাতে টাকাপয়সা ও মালামাল খোয়া না যায় সে জন্য নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। পার্বতীপুর স্টেশন মাস্টার জিয়াউল আহসান বলেন, হাজার হাজার শ্রমিক এসেছে পার্বতীপুর স্টেশনে। কিন্তু পর্যাপ্ত আসন নেই। আসনবিহীন টিকিট কেটেই যাত্রা করছে শ্রমিকরা। বিষয়টি রেল কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। কিন্তু কোচ সংকটের কারণে অতিরিক্ত কোচ সংযোজন করা সম্ভব নয়।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ