শনিবার-২০শে জুলাই, ২০১৯ ইং-৫ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: বিকাল ৫:৫৭
দিনাজপুর দোকান কর্মচারী ইউনিয়নের বিশেষ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে নবরূপী’র মাসিক সাহিত্য বাসর অনুষ্ঠিত শীঘ্রই পাইপ লাইনে গ্যাস আসছে দিনাজপুর বাসীর প্রত্যাশা -হুইপ ইকবালুর রহিম (এমপি) প্রিয়ার বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহী, শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে : সেতুমন্ত্রী “জলঢাকায় ফ্রিতে চিকিৎসা সেবা পেল ‘আলোর কণা’র শিক্ষার্থীরা”  শিবগঞ্জের গুজিয়ায় মরহুম নাজিম উদ্দীন স্মৃতি ফুটবল টুর্ণামেন্টের শুভ উদ্বোধন এইচএসসিতে উপজেলার সেরা রেজাল্ট নন-এমপিও কলেজ

অ্যান্ডারসনের ৬০০ দেখছেন ম্যাকগ্রা

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক:  ৫৬৩ উইকেট নিয়ে পাঁচে থাকা গ্লেন ম্যাকগ্রা মনে করেন অ্যান্ডারসন এগিয়ে যাবেন আরো বহুদূর। ইংলিশ এই পেসার অন্তত ৬০০ উইকেট পেতে পারেন বলে অনুমান তাঁর, ‘অভিনন্দন অ্যান্ডারসনকে আমার রেকর্ড ভাঙার জন্য। আমার বিশ্বাস অন্তত ৬০০ টেস্ট উইকেট নেবে ও। কুম্বলের ৬১৯ উইকেটের মাইলফলকও বেশি দূরে নয়।’ অ্যালিস্টার কুকের বিদায়ী টেস্ট বলে চাপা পড়ে গিয়েছিল জেমস অ্যান্ডারসনের কীর্তি। ফাস্ট বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৫৬৪ টেস্ট উইকেটের রেকর্ড এখন তাঁরই। গত পরশু ওভাল টেস্টের শেষ দিন মোহাম্মদ সামিকে বোল্ড করে ছাড়িয়ে যান গ্লেন ম্যাকগ্রার ৫৬৩ উইকেটের রেকর্ড। বিদায়ী টেস্টে কুক উপহার পান ১১৮ রানের জয়। আর ইংল্যান্ড সিরিজ জেতে ৪-১ ব্যবধানে।

নিজের বিদায়ী টেস্টে সেঞ্চুরি করে অনন্য চূড়াতেই বসেছেন কুক। ১২ হাজারের বেশি রান করায় ইংল্যান্ডের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটার ভাবা হয় তাঁকে। তবে কুক নিজে সেই সম্মান দিচ্ছেন প্রিয় বন্ধু জেমস অ্যান্ডারসনকে, ‘আমার মনে হয় ইংল্যান্ডের সর্বকালের সেরা ও। অ্যান্ডারসনের সঙ্গে খেলতে পারাটা সম্মানের। শেষ সেশনে যেকোনো ফল হতে পারত। এর চেয়ে ভালো টেস্ট আর কী হতে পারে। জিমিকে দেখলাম ম্যাকগ্রাকে ছাড়িয়ে যেতে। এমন স্মরণীয় বিদায় চেয়েছিলাম আমি।’

৮০০ টেস্ট উইকেট নিয়ে চূড়ায় মুত্তিয়া মুরালিধরন। শেন ওয়ানের্র ৭০৮, অনিল কুম্বলের ৬১৯ উইকেটের পরই ৫৬৪ শিকার নিয়ে চার নম্বরে অ্যান্ডারসন। ৫৬৩ উইকেট নিয়ে পাঁচে থাকা গ্লেন ম্যাকগ্রা মনে করেন অ্যান্ডারসন এগিয়ে যাবেন আরো বহুদূর। ইংলিশ এই পেসার অন্তত ৬০০ উইকেট পেতে পারেন বলে অনুমান তাঁর, ‘অভিনন্দন অ্যান্ডারসনকে আমার রেকর্ড ভাঙার জন্য। আমার বিশ্বাস অন্তত ৬০০ টেস্ট উইকেট নেবে ও। কুম্বলের ৬১৯ উইকেটের মাইলফলকও বেশি দূরে নয়। অ্যান্ডারসনের যা ফিটনেস তাতে আরো অনেক দূর যাওয়া সম্ভব।’

অ্যান্ডারসন নিজে অবশ্য এত দূরের পথ নিয়ে ভাবছেন না। তিনি খুশি প্রিয় বন্ধু কুকের বিদায়ী ম্যাচে দলের জয়ে অবদান রাখতে পেরে, ‘ভারত যখন বড় জুটি গড়ছিল তখন মনে হচ্ছিল এগিয়ে যাচ্ছে লক্ষ্যের দিকে। ওদের থামানো দরকার ছিল। ছন্দে ছিলাম বলে নতুন বলটা আমাকে দেয় রুট। কুকের শেষ টেস্টে রেকর্ডটা করতে পেরে ভালো লাগছে। ও খুব ভালো বন্ধু আমার। কুকের অভাব অনুভব করব খুব বেশি।’

কুকের শেষ ম্যাচে জয়ই উপহার দিলেন ইংল্যান্ডের সতীর্থরা। লোকেশ রাহুল ও ঋশভ পান্টের সেঞ্চুরিতে একটা সময় ম্যাচে ফিরেছিল ভারত। লক্ষ্য ৪৬৪ রানের পাহাড় হলেও তাতে চাপা না পড়ে লড়ছিল সমান তালে। তবে জেমস অ্যান্ডারসন ৩ আর ২টি করে উইকেট নিয়ে স্যাম কুরান ও আদিল রশিদ ভারতকে গুটিয়ে দেন ৩৪৫ রানে। ১১৮ রানের জয়ে ইংল্যান্ড সিরিজ জেতে ৪-১ ব্যবধানে। অথচ ইংল্যান্ডে আসার আগে বলা হচ্ছিল ভারত গত ১৫ বছরের মধ্যে সেরা দল। এ নিয়ে এক সাংবাদিক খোঁচা দিলে মেজাজ হারান কোহলি, ‘আপনি তবে নিশ্চিত নন আমরা গত ১৫ বছরের সেরা দল কি না? এটা আপনার মতামত, ধন্যবাদ। আমাদের খেলার ফল স্কোরে প্রতিফলিত হয়নি। সিরিজজুড়ে লড়াই করেছি আমরা।’সূত্র: কালের কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ