বৃহস্পতিবার,৩০শে মার্চ, ২০১৭ ইং,১৬ই চৈত্র, ১৪২৩ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৮:৪১
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে নিয়োগ ঝিনাইদহে ভিক্ষুকদের পুর্ণবাসন করার লক্ষ্যে উপকরণ বিতরণ লালপুরে দুদকের দুর্নীতি বিরোধী পোস্টার প্রদর্শনী ঝিনাইগাতীতে মহানাম যজ্ঞানুষ্ঠান ও অষ্টকালীন লীলা কীর্ত্তন অনুষ্ঠিত সন্ত্রাস জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে -প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরে আমাদের সময়ের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত সিংড়া পৌরসভার কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে সমন্বয় সভা

ব্রিটেনের ছায়া শিক্ষামন্ত্রী হলেন টিউলিপ

tulip_38152মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: ব্রিটেনের থেরেসা মে সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ছায়ামন্ত্রী হলেন বঙ্গবন্ধুর নাতনি টিউলিপ সিদ্দিক। তিনি দেশটির হ্যাম্পস্টেড ও কিলবার্ন এলাকার এমপি।

এর মাধ্যমে টিউলিপ সিদ্দিক লেবার লিডার জেরমি করবিনের ছায়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে যুক্ত হলেন।
ছায়া শিক্ষামন্ত্রী এঞ্জেলা রেইনার অধীনে আরো তিনজনের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবেন টিউলিপ। ‘শ্যাডো মিনিস্টার ফর আর্লি ইয়ার্স এডুকেশন’ হিসেবে কাজ করবেন শিশু কল্যাণ ও প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা নিয়ে।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতনি টিউলিপ এর আগে করবিনের প্রথম ছায়া মন্ত্রিসভার সংস্কৃতি, গণমাধ্যম ও ক্রীড়াবিষয়ক মন্ত্রী মাইকেল ডাগারের ব্যক্তিগত সচিব (পিপিএস) ছিলেন।
নতুন দায়িত্ব পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় টিউলিপ বলেন, এঞ্জেলা রেইনার নেতৃত্বাধীন চমৎকার একটি দলের সঙ্গে যোগদান করছি; সামনের সারি থেকে সরকারকে জবাবদিহিতার মুখোমুখি করার সুযোগ পাব বলে আমি আনন্দিত।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বোন শেখ রেহানার মেয়ে টিউলিপ যুক্তরাজ্য পার্লামেন্টের নারী ও সমতা বিষয়ক সিলেক্ট কমিটিরও সদস্য। গত বছর মে মাসে পার্লামেন্ট নির্বাচনে জয়ী হওয়ার আগে তিনি রিজেন্ট পার্ক এলাকার কাউন্সিলর ছিলেন।
নেতৃত্ব নির্বাচনে নতুন করে ভোটের পর লেবার পার্টির শীর্ষ নেতা জেরোমি করবিন তার ছায়া মন্ত্রিসভা ঢেলে সাজিয়েছেন; যেখানে টিউলিপকে নতুন দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে প্রথমবার লেবার পার্টির নেতা নির্বাচিত হন করবিন। সেবার ৫৯ দশমিক ৫ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন তিনি।
ঐতিহাসিক গণভোটে যুক্তরাজ্যের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত আসার পর দলের নেতৃত্ব থেকে করবিনের সরে যাওয়ার দাবি তুলেছিলেন ছায়া মন্ত্রিসভার অর্ধেকের বেশি সদস্য। যুক্তরাজ্যের প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির অধিকাংশ এমপিও গোপন ব্যালটে করবিনের বিরুদ্ধে অনাস্থা জানান।
এরপর নতুন করে নেতৃত্বের পরীক্ষা দিতে হয় করবিনকে। ওই পরীক্ষায় ওয়েন স্মিথকে হারিয়ে পার্টি সদস্যদের ৬২ শতাংশ ভোট পেয়ে নেতা নির্বাচিত হন করবিন।
এক বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বার দলের নেতা নির্বাচনের ভোটে টিউলিপ সমর্থন দিয়েছিলেন স্মিথকে। তবে ভোটের পর করবিনের নেতৃত্ব মেনে নেন তিনি। সূত্র-এবিনিউজ
আপনার মতামত লিখুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ