বুধবার,২৯শে মার্চ, ২০১৭ ইং,১৫ই চৈত্র, ১৪২৩ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৭:১৮
সীমান্ত প্রয়াসে নিয়োগ সৈয়দপুরে হাজারীহাট স্কুল অ্যান্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া সিরিজ জিততে বাংলাদেশের প্রয়োজন ৩১২ রান বাসাইলে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত বাসাইলে দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির মানববন্ধন ও শপথবাক্য পাঠ লালপুরে বরণ, বিদায়, পুরস্কার বিতরণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ঝিনাইগাতীতে ইভটিজিং এর অভিযোগে যুবকের কারাদন্ড

এসএসসি, এইচএসসি পরীক্ষার নতুন মান বন্টন

download-1মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে এসএসসি, এইচএসসি এবং সমমানের পরীক্ষায় সৃজনশীল প্রশ্নে ১০ নম্বর বৃদ্ধি ও বহুনির্বাচনী প্রশ্নে ১০ নম্বর কমিয়েছে সরকার। পরিবর্তন করা হয়েছে পরীক্ষার সময় বন্টন।থাকছে না বহুনির্বাচনী ও সৃজনশীল পরীক্ষার মধ্যেকার বিরতি ।

এইচএসসি পরীক্ষায় নতুন মান বন্টনে উল্লেখ আছে ব্যবহারিক বিষয়সমূহে ৮ প্রশ্নের মধ্যে  ৫ টি সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। বহুনির্বাচনী প্রশ্ন থাকবে ২৫ টি।প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে ।

ব্যবহারিক অংশে থাকবে ২৫ নম্বর । এছাড়া যেসকল বিষয়ে ব্যবহারিক নেই সেইসকল বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্ন থাকবে ১১ টি, উত্তর দিতে হবে ৭ টি প্রশ্নের ।এবং বহুনির্বাচনী প্রশ্ন থাকবে ৩০ টি প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

পূর্বের মতোই থাকছে এসএসসি ও সমমানের ব্যবহারিক বিষয়ের মানবন্টন। অর্থাৎ সৃজনশীল ৫০, বহুনির্বাচনী ২৫ এবং ব্যবহারিক ২৫, সর্বোমোট ১০০ নম্বর।
নতুন নিয়মে এইচএসসি ও সমমানের ব্যবহারিক মানবন্টন এসএসসি ও সমমানের মতো-সৃজনশীল ৫০, বহুনির্বাচনী ২৫ এবং ব্যবহারিক ২৫, মোট ১০০ নম্বর।
এর আগে যা ছিল- সৃজনশীল ৪০, বহুনির্বাচনী ৩৫ এবং ব্যবহারিক ২৫। বহুনির্বাচনী থেকে ১০ কমিয়ে সৃজনশীল অংশে ১০ নম্বর বাড়ানো হয়েছে।
এইচএসসি ও সমমানে অপরিবর্তিত থাকছে-ইংরেজি প্রথম, দ্বিতীয় পত্র, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, প্রকৌশল অংকন ও ওয়ার্কশপ প্র্যাকটিস প্রথম, দ্বিতীয়পত্র, ক্রীড়া প্রথম, দ্বিতীয়পত্র, চারুকলা, নাট্যকলা, সময়বিদ্যা, আরবি, পালি, সংস্কৃত, লঘু ও উচ্চাঙ্গ সংগীত প্রথম ও দ্বিতীয়পত্রের মানবন্টন।
এর আগে ব্যবহারিক পরীক্ষাহীন বিষয়গুলোতে বহুনির্বাচনী অংশের নম্বর ছিল ৪০। যা এখন থেকে ৩০ এ কমিয়ে আনা হয়েছে। একই সাথে সৃজনশীল অংশের নম্বর ৬০ থেকে বাড়িয়ে ৭০ করা হয়েছে|
৩০ নম্বরের বহুনির্বাচনী অংশের জন্য ৩০ মিনিট, সৃজনশীল ৭০ নম্বরের জন্য ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিটি সময় ধার্য্য করা হয়েছে। ২৫ নম্বরের বহুনির্বাচনী অংশের জন্য ২৫ মিনিট এবং ৫০ নম্বরের সৃজনশীল অংশে প্রতি পরীক্ষার্থী পাবে ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট।
প্রশ্নপত্রে উল্লেখিত সময়ানুযায়ী বিরতিহীনভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বহুনির্বাচনী এবং সৃজনশীল পরীক্ষার মাঝে কোনো বিরতি থাকবে না বলে আন্ত:শিক্ষা বোর্ড পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক উপকমিটি সুত্রে জানা গেছে।
পরীক্ষার হলে নকল ঠেকাতে ২০১৬ থ্রিস্টাব্দে অনুষ্ঠেয় পরীক্ষায় বহু নির্বাচনী অংশের পরীক্ষা শুরুতে নেয়া হয়। এরপরে শিক্ষাবিদ ও শিক্ষাসংশ্লিষ্টদের পরামর্শে বহুনির্বাচনী অংশের নম্বর কমানোর প্রক্রিয়া শুরু করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। যা আগামী বছর থেকে কার্যকর হতে যাচ্ছে। দৈনিক শিক্ষা
আপনার মতামত লিখুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ