বৃহস্পতিবার,২৩শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: সন্ধ্যা ৭:০১
পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনির ২৫ শ্রমিক পুরস্কৃত আক্রোশের বলি কোমলমতি পরীার্থীরা হবিগঞ্জে মাইক্রোবাস মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষে ৪ জন আহত তুচ্ছ ঘটনায় দিনাজপুরে ২টি বাসে আগুন ॥ সমঝোতা বৈঠক সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ ॥ অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট ॥ চরম দুর্ভোগে জনসাধারণ ফুলবাড়ীতে আন্ত : সম্পর্ক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে পুলিশের হাতে মাদক সহ ২ মহিলা আটক ॥ উন্মুক্ত হলো ঠাকুরগাঁও বিজিবি হাসপাতাল

৭০ লাখ টাকা গেল, গরু গেল, জেলেও যেতে হলো

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: নরসিংদীর রায়পুরা থানা পুলিশের একটি দলের বিরুদ্ধে গরুর বেপারিদের মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে, নগ্ন করে প্রায় ৭০ লাখ টাকা ও ২৫টি গরু লুট করার অভিযোগ উঠেছে। এরপর দুই নৌকায় থাকা ৬০ থেকে ৬৫ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এঁদের মধ্যে ৪৯ জনকে নাশকতা, বিস্ফোরণ, মারামারিসহ বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়। বাকিদের টাকা ফেরত না দিয়েই ছেড়ে দেয় পুলিশ।

এদিকে গরুর বেপারিদের বিশাল অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় রায়পুরার চারটি গ্রামজুড়ে চলছে শোক আর ঘৃণা। ঋণের টাকা খোয়া যাওয়ায় সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছে অনেক পরিবার।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন গরুর বেপারিদের টাকা লুট করার কথা অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, আটক গরুর বেপারিদের কাছ থেকে প্রায় নয় লাখ টাকা ও ২৫টি গরু জব্দ করা হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত গরুর বেপারি ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রায়পুরা উপজেলার নিলক্ষ্যা ইউনিয়নের হরিপুর, দরিপুর, শুঁটকিকান্দা ও গোপীনাথপুর গ্রামের দুই শতাধিক লোক গরু কেনাবেচার ব্যবসা করেন। গত ১২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার সকালে চারটি গ্রামের ৬০ থেকে ৬৫ জন গরু নিয়ে নৌকায় করে পাশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বাইশ মৌজা এলাকায় সাপ্তাহিক গরুর হাটে যান। বেচাকেনা শেষে বিকেল ৫টার দিকে অবিক্রীত ২৫টি গরু ও গরু বিক্রির টাকা নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তাঁরা। বেপারিদের দুটি নৌকা মেঘনা নদীর মাঝখানে এলে রায়পুরা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাখাওয়াত হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের ২০ জনের একটি দল তিনটি স্পিডবোট নিয়ে তাঁদের গতি রোধ করে। পরে মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে প্রত্যেককে নগ্ন করে গরু বিক্রির প্রায় ৭০ লাখ টাকা লুটে নেয়। এরপর দুই নৌকায় থাকা ৬০ থেকে ৬৫ জনকে থানায় নিয়ে যায়। এর মধ্যে ৪৯ জনকে নাশকতা, বিস্ফোরণসহ বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

গরুর বেপারিরা জানান, পুলিশ আবেদ আলী বেপারির ১০টি গরু বিক্রির পাঁচ লাখ টাকা, বাবুল বেপারির দুই লাখ ৭০ হাজার, ফেলু মিয়ার দুই লাখ ৬০ হাজার, করিম মিয়ার দুই লাখ ২০ হাজার, জলিল মিয়ার দুই লাখ ৪০ হাজার, কালু মিয়ার এক লাখ ৯০ হাজার, কাশেম মিয়ার এক লাখ ৬০ হাজার, খলিল মিয়ার এক লাখ ৯০ হাজার, আরেক কাশেম মিয়ার দুই লাখ, ইউসুফের কাছ থেকে এক লাখ ২৬ হাজার, শাজাহান মিয়ার এক লাখ পাঁচ হাজার ও ইসলাম উদ্দিনের ৭০ হাজার টাকা লুট করেছে। বাকিরা কারাগারে থাকায় তাঁদের পরিবারের লোকজন সঠিক পরিসংখ্যান দিতে পারেনি।

তবে রায়পুরা থানার ওসির দাবি, ৮০ থেকে ৯০ জন লোক ককটেল বিস্ফোরণ করে দাঙ্গা-হাঙ্গামার চেষ্টা চালাচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের আটক করে। ওই সময় তাদের কাছ থেকে ২১টি রডের টুকরো, ৩২টি ককটেল, ৪৪টি টেটা, নয় লাখ ছয় হাজার ১৫০ টাকা ও ২৫টি গরু জব্দ করে।
গরুর বেপারি ও অন্যরা যা বললেন
গরুর বেপারি ইউসুফ বলেন, ‘বাইশ মৌজা হাডেট থে (হাট থেকে) নৌকাডা ছাড়ার ১০ মিনিট পরে গাঙের মাঝামাঝি আইস্যা তিনডা স্পিডবোট আইয়া নৌকার সাথে লাগাইয়া দিসে। লাগাইয়া দিয়া নৌকার ওপর উইঠ্যা, নৌপুলিশগুলি উইঠ্যা বন্দুকগুলি কানকুটির ওপর লাগাইয়া টেকাগুলি ন্যাংটা করাইয়া, দেখছে জাইংগ্যা আছেনি, যার শর্টপ্যান্ট আছে, হের শর্টপ্যান্ট খোলাইছে। কমরচোমর হাতাইয়া টেকাগুলি সব নিয়া গেছে। আমার লগে আছিল এক লক্ষ ২৬ হাজার টাকা। এই টাকাও নিয়া গেছে।’

আরেক গরুর বেপারি মো. জাকারুল বলেন, ‘ওই জায়গা থেকে থানায় নেওয়ার পরে তারা বলতাছে যে তোমরা যদি জাওগা এমনে জাওগা। টাকা-পয়সা ফেরত দিমু না। যারা আসামি আছে তারা থাকুক। যারা আসামি না, তারা জাওগা। কিন্তু টাকা দেওয়া হইব না। এরা তো টাকার জন্য আসছে। এরা ডাকাতি করতাছে। এরা পুলিশ না, বুঝছেন। পুলিশ হইলে এভাবে সাধারণ জনগণের ওপর অত্যাচার করতে পারে না। বুঝছেন, এরা পুলিশ না, এরা ডাইরেক্ট ডাকাত। এরা ডাকাত না হইলে কীভাবে এরা আইয়া টাকা-পয়সা লুট করল।’

জাকারুল আরো বলেন, ‘আমাদের দুই নৌকার ওপর টাকা ছিল ৬০ থেকে ৭০ লাখ টাকা। আমাদের একটা গরুর কত দাম আছে বর্তমানে? ৮০ থেকে ৯০ হাজার টাকা দাম আছে একটা গরুর। প্রতিটা গরুর ৮০ থেকে ৯০ হাজার টাকা দাম আছে। তারা সব টাকা-পয়সা নিয়া গেছে। আমাদের বাইশ মৌজা বাজার হইছে আমাদের মেইন বাজার। সাপ্তাহিক একবার বাজার। সাপ্তাহে একবার আসি, একবার যাই। বিশাল বড় হাট। এই হাট থেকে আসার পথে, তাদের উদ্দেশ্যই ছিল টাকা। এসআই শাখাওয়াত হোসেন নিছে।’

নৌকার মাঝি নিজাম ও বশির বলেন, পুলিশের ভয়ে তাঁরা তিন বেপারীর প্রায় চার লাখ টাকা একটি ছেড়া কাথা দিয়ে নৌকার নিচে লুকিয়ে রাখেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। পুলিশ সেই টাকাও লুট করেছে।

কালু বেপারীর স্ত্রী আরিফা বলেন, ‘ঋণ নিয়া আমার স্বামী গরুর ব্যবসা করেন। পুলিশ আমার স্বামী ও ছেলের কাছ থেকে দুই লাখ টাকা নিয়া গেছে। আবার তাদের জেলে দিছে। এখন ঋণের টাকা কেমনে শোধ করমু?’

অপর গরুর বেপারি ভুট্টো মিয়া বলেন, ‘পুলিশ যা করছে তাতে পুলিশে আর ডাকাতের মধ্যে পার্থক্য রইল না।’

রায়পুরা থানা পুলিশের কাছ থেকে ছাড়া পাওয়া গরুর বেপারি ইসলাম উদ্দিন বলেন, ‘থানায় নেওয়ার পর টাকা ফেরত চাইলে পুলিশ সদস্যরা মামলায় ঢুকাইয়া দিব বইলা ভয় দেখায়। আর টাকা না চাইলে ছাইড়া দিব। পরে বাধ্য হইয়া গরু বিক্রির ৭০ হাজার টাকা ওগো কাছে রাইখ্যা ছাড়া পাইছি।’

পুলিশ কর্মকর্তারা যা বললেন
গরুর বেপারিদের টাকা লুটের ব্যাপারে রায়পুরা থানার এসআই মো. শাখাওয়াত হোসেনের সঙ্গে কথা বলতে গেলে তাঁকে পাওয়া যায়নি। ওই সময় তাঁর ব্যবহৃত মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

রায়পুরা থানার ওসি মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, বিস্ফোরণ করে দাঙ্গা-হাঙ্গামার চেষ্টা চালাচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে  ৪৯ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। এদের মধ্যে আটজন পরোয়ানাভুক্ত আসামি, সাত-আটজন ডিবি পুলিশের ওপর হামলা মামলার আসামি ও ১৬ জন টেটাযোদ্ধা।

৭০ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেওয়া প্রসঙ্গে ওসি বলেন, আসামিদের কাছ থেকে নয় লাখ ছয় হাজার ১৫০ টাকা ও ২৫টি গরু পাওয়া গেছে, যা জব্দ তালিকায় দেখানো হয়েছে।

দাঙ্গা-হাঙ্গামা করতে গেলে এত টাকা ও গরু নিয়ে যায় কি না জানতে চাইলে ওসি কোনো উত্তর দিতে পারেননি।

বেপারিদের টাকা ও গরু লুটের বিষয়ে জানতে চাইলে নরসিংদীর পুলিশ সুপার আমেনা বেগম বলেন, ‘আমার কাছে বেপারিরা কোনো অভিযোগ করেননি। তবে ঘটনাটি জানতে পেরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) হাসিবুল আলমকে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে গরুর ব্যবসায়ীরা কোনো পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যদি লিখিত অভিযোগ দেন, তখন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ