বৃহস্পতিবার,২০শে জুলাই, ২০১৭ ইং,৫ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৮:২৬

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে শিশু শ্রম মুক্ত করা হবে ————-শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ৩৫তম বিসিএসে ক্যাডার পদে উত্তীর্ণ ১৫ প্রার্থীকে তলব জিমেইলে ভুলে পাঠানো বার্তা বাতিল করতে চান? সাইবার হয়রানি বেশি হয় ইনস্টাগ্রামে ‘নিউজ ফিড’ যুক্ত করছে গুগল কলাপাড়ায় ইয়াবাসহ দুই ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।। আসাদ-বিরোধী গেরিলাদের প্রতি সমর্থন বন্ধ করছেন ট্রাম্প

৩৬ হাজার কোটি টাকার ২ মেগা প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

 ch-pm_38880মুক্তিনিউজ24.কম ডেস্ক: বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামে ৩৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ২ মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ২ শীর্ষ নেতার মধ্যে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সফররত চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বন্দরনগরী চট্টগ্রামে কর্নফুলি নদীর তলদেশে টানেল এবং চীনের বিশেষ অর্থনৈতিক ও শিল্পাঞ্চলের এ ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন। প্রসঙ্গত ৩৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে দুটি বৃহদাকার প্রকল্পে চীন অর্থায়ন করছে। মোট টাকার মধ্যে কর্নফুলি নদীর নিচে টানেল নির্মাণে ব্যয় হবে ২০ হাজার কোটি টাকা, বিশেষায়িত অর্থনৈতিক ও শিল্পাঞ্চল নির্মাণে ১৬ হাজার কোটি টাকা। কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন ২০১৭ সালে প্রকল্পগুলোর কাজ শুরু হবে এবং ২০২০ সাল নাগাদ শেষ হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ২০১৪ সালে চীন সফরের সময় টানেল নির্মাণের লক্ষ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর হয়।
চীনের সাংহাই মহানগরীর ‘এক নগরী দুটি টানেল’ অনুসরণে চট্টগ্রামে দেশের প্রথম টানেলের নকশা করা হয়েছে। নদীর তলদেশ দিয়ে এই ‘মাল্টি লেন টানেল’-এর পথটির এক পাশে নৌবাহিনী কলেজ এবং অপর পাশে কোরিয়ান রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা (কেইউপিজেড) এবং কর্নফুলি সার কারখানা (কাফকো) রয়েছে। এ টানেলটি চট্টগ্রাম বন্দর এবং আনোয়ারা উপজেলাকে সংযুক্ত করবে এবং বন্দর নগরী ও কক্সবাজারের মধ্যে যোগাযোগ, বিশেষত কর্নফুলি নদীর ওপর দুটি সেতুতে যানবাহন চলাচল সহজ করবে।
বাংলাদেশী পণ্যের ক্রমবর্ধমান অভ্যন্তরীণ ও বৈশ্বিক চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে আনোয়ারা উপজেলায় ৭৭৪ একর জমিতে চীনের বিশেষ অর্থনৈতিক ও শিল্পাঞ্চল স্থাপন করা হবে। এ ছাড়াও শিল্প পার্কে ৩৭১টি শিল্প ইউনিট থাকবে। আনোয়ারা উপজেলায় চীনের বিশেষ অর্থনৈতিক ও শিল্পাঞ্চল (সিএসইআইজেড) নির্মাণের লক্ষ্যে বেপজা ইতোমধ্যে একটি চীনা কোম্পানীর সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে। প্রস্তাবিত এ জায়গাটি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৩৯ কিলোমিটার, চট্টগ্রাম নগরী থেকে ২৮ কিলোমিটার এবং শাহ আমানত বিমানবন্দর থেকে ৪৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।
আপনার মতামত লিখুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ