বৃহস্পতিবার,২১শে জুন, ২০১৮ ইং,৭ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১১:৪২
জাতীয় ফলদ বৃক্ষ রোপণ পক্ষ ও ফল প্রদর্শনী শুরু হচ্ছে কাল সরকার সিনেমা হল ডিজিটালাইজ করার প্রকল্প গ্রহণ করেছে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের নাম পরিবর্তন একনেক সভায় ১৫টি প্রকল্পের অনুমোদন কলকাতার গণমাধ্যমে নেই শাকিব সৈয়দপুরে আইকন কোচিং সেন্টারের পরিচালক মিলনের ইন্তেকাল নাটোরে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীসহ দুজনের মৃত্যুদন্ড

হানিমুনের রাতে বাঘের বিড়ম্বনা!

2_24462মুক্তিনিউজ ২৪.কম ডেস্ক :  মধুচন্দ্রিমার জন্য পছন্দের ডেস্টিনেশন হিসেবে ভারতের নৈনিতালকেই বেছে নিয়েছিলেন সুমিত রাঠোর। দাম্পত্যজীবনের প্রথম সফরে স্ত্রী শিবানিকে নিয়ে উঠেছিলেন হোটেলে। গত শনিবার মধু মাখা রাত কাটানোর পর যখন সুমিত ও তার স্ত্রী ঘুমে অচেতন ঠিক তখনই ঘটল সেই ঘটনা।

ঝননননন করে ভেঙে গেল কাচের জানালা। চমকে ঘুম ভেঙে যায় সুমিতের। চোখ খুলতেই চক্ষু চড়কগাছ। ওমা ,একি ! ঘরে ঘুরে বেড়াচ্ছে জ্বলজ্যান্ত চিতা! ভয়ে ঘেমে নেয়ে কম্বলের তলায় নতুন বৌকে নিয়ে লুকিয়ে পড়লেন সুমিত।

তবে ভাল খবর এই যে মধুচন্দ্রিমায় ব্যাঘ্রমশাই ব্যাঘাত ঘটালেও সেরকম কোনও ক্ষতি করেননি। ইতি উতি ঘুরে বেড়ানোর পর সোজা চলে গেছেন বাথরুমে। বোধহয় খানিকটা লজ্জা পেয়েছিলেন। এই সুযোগে বাথরুমের দরজা আটকে দেন সুমিত রাঠোর। হোটেল কর্তৃপক্ষকে খবর দেন। তারা খবর দেয় স্থানীয় বনদপ্তরে। পরে বনকর্মীরা এসে চিতার দিকে ঘুমপাড়ানি গুলি ছোঁড়ে। বেগতিক দেকে চিতাবাঘ বাথরুমের জানলা দিয়ে পালায়। ঘন্টাখানেক পরে বন কর্মীদের অন্য একটি দল এসে চিতাকে বাগে আনে। ঘুম-পাড়ানি গুলি খেয়ে বেহুঁশ চিতাকে পরে গভীর জঙ্গলে ছেড়ে দেয় তারা। দিনকয়েক আগে নৈনিতালের রাস্তায় একটি কালো ভল্লুককে দেখা গিয়েছিল। পরে সেই ভল্লুক নৈনি হ্রদে খানিক্ষণ মজা করে সাঁতার কেটে আবার জঙ্গলে ঢুকে যায়। এরপরেই হানা দিল চিতা। এটা ভল্লুকটার সভ্য নয়। সোজা ঢুকল কিনা নতুন বর-বউয়ের কামরায়!এবিনিউজ

আপনার মতামত লিখুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ