বৃহস্পতিবার,১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং,৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১২:৪৮
অবকাঠামো ও জ্বালানি খাতে ফরাসি বিনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর পার্বতীপুরে শিক্ষক সমিতির ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল সম্পন্ন সৈয়দপুরে স্কুল মাঠে পাথড় ও পিচ গলানো হচ্ছে পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনির ৪৫ শ্রমিক পুরস্কৃত এবার হাইকোর্টে ক্ষমা চাইলেন লক্ষ্মীপুরের সেই এডিসি মগবাজারে গ্যাসের আগুনে দগ্ধ ৩ সেলুনকর্মী তাঁরা এলেন ‘ম্যাজিস্ট্রেট’ হয়ে, গেলেন আসামি হয়ে

সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি চরম অবনতিঃ বন্যার পানিতে নিখোঁজ শিশুসহ ৫ ঃ ৫ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি

মোঃ লাভলু শেখ, লালমনিরহাট থেকে ঃ ১৩ আগষ্ট
টানা বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলে লালমনিরহাটে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটেছে। লালমনিরহাট রেল বিভাগের মহেন্দ্রনগর-তিস্তা রেল ষ্টেশনের মাঝামাঝি স্থানে বন্যার পানিতে রেল লাইন ডুবে যাওয়ায় ৩টি রেল সেকশনে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে রাজধানীর সাথে লালমনিরহাট ও কুড়িগ্রাম জেলার সাথে রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। বন্যার পানির তোড়ে রাস্তা-ঘাট ও ব্রিজ-কালভাট ভেসে গেছে। ফলে লালমনিরহাট জেলা সদরের সাথে ৪২টি ইউনিয়নের যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে পড়ে। বন্যার পানির তোরে শিশু নাজিম (৮) সহ ৫জন নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজদের মধ্যে শিশু নাজিমসহ ২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ধরলা নদীর বাম তীর সংরক্ষন বাধের ২০ মিটার ধ্বসে যাওয়ায় সদর উপজেলার কুলাঘাট মোগলহাট ও বড়বাড়ী ইউনিয়নের সম্পুর্ন পানির নিচে রয়েছে। পাহাড়ি ঢলে তিস্তা নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় সদর উপজেলার গোকুন্ডা, রাজপুর ও খুনিয়াগাছ, আদিতমারী উপজেলার মহিষখোচা ও পলাশী ইউনিয়ন, কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা, তুষভান্ডার ও ভোটমারী, হাতীবান্ধা উপজেলার ডাউয়াবাড়ী, সিন্দুনা, পাাটিকাপাড়া, পারুলিয়া, সিংগীমারী ও পাটগ্রাম উপজেলার জগৎবেড়, শ্রীরামপুর, বুড়িমারী, দহগ্রাম আঙ্গরপোতাসহ জেলার ৪২টি ইউনিয়নের বন্যায় কবলিত হয়েছে। এসব ইউনিয়নে বানভাসী পরিবার গুলো চৌকির উপর এবং চাংড়া পেতে জীবন যাপন করছে। ওই সব পরিবারের মাঝে খাদ্য ও বিশুদ্ধ পানির অভাব দেখা দিয়েছে। অনেক বানভাসী পরিবার বাড়ী-ঘর ছেড়ে গাবদি পশু নিয়ে উচু স্থানে খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিয়েছে। লালমনিরহাট রেল বিভাগ সুত্র জানায়, রেল লাইনে বন্যার পানি উঠায় এ বিভাগের ৩টি সেকশনে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে রাজধানীর সাথে লালমনিরহাট-কুড়িগ্রাম দুটি জেলার সাথে রেল যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। অপরদিকে বন্যায় রোপা আমনের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে। রোপা আমনের ক্ষেত গুলো গত ৩ দিন ধরে পানির নিচে থাকায় অনেক ক্ষেতের রোপা আমনের চারা পচে যাওয়ার আংশকা দেখা দিয়েছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর জানায়, বন্যায় রোপা আমন ক্ষেত তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকদের বেশি ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। বীজ তলা গুলো নষ্ট হয়ে যাওয়ায়, নতুন করে বীজ তলার অভাবে বন্যা পরবর্তী রোপ আমন রোপন করা সম্ভব নয়। এছাড়া লালমনিরহাট জেলায় ৬ হাজার ৪শ পুকুরের মাছ বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। এতে প্রায় ৫ কোটি টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়। লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সফিউল আরিফ জানান, বন্যায় বানভাসী প্রায় ১ লক্ষ পরিবারকে জিআর হিসেবে ১ লক্ষ ৬০ হাজার মেক্ট্রিকটন চাল ও নগদ ৪ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। তবে এ জেলায় কত পরিবার বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তার সঠিক তথ্য দিতে পারেনি।

আপনার মতামত লিখুন

রাজশাহী,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ