বুধবার,২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং,১১ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: সন্ধ্যা ৬:২৫
অনার্স ভর্তির মেধা তালিকা প্রকাশ কাল রায়ের দিন চায় দুদক সাকিব ছাড়াই মাঠে নামছে বাংলাদেশ দেশের সকল নাগরিকের সুবিচার পাওয়ার অধিকার আছে —-জেলা ও দায়রা জজ দিনাজপুর নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর বদলানো যাবে ১ অক্টোবর থেকে সালমানের হাত ধরে সেই আফগান শিশুটি এখন নায়িকা! ভারতকে ২৫৩ রানের চ্যালেঞ্জ আফগানিস্তানের

শ্রীপুরে নেশাগ্রস্ত ছেলে মা’কে পিটালো!

আলফাজ সরকার আকাশ,শ্রীপুর,গাজীপুরঃ
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের ডুমবাড়ি চালা নেশার টাকা না পেয়ে মাকে কে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে নেশাগ্রস্ত ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২১)এর বিরোদ্ধে। এসময় গুরুতর অবস্থায় মা মনোয়ারা বেগম (৬০) কে জৈনা বাজার স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তার ডান হাতে কব্জির পার্শ্বে উপরে আঘাতে গভীর তের সৃষ্টি হওয়ায় সেলাই দেওয়া হয়েছে।
১২নভেম্বর বুধবার সন্ধায় এঘটনা ঘটেছে। মনোয়ারা বেগম জানান, বুধবার দুপুরে নেশার জন্য সাদ্দাম আমার টাকা চায়। আমার কাছে টাকা ছিলনা। টাকা না দেওয়ায় সাদ্দাম হোসেন আমার ডান হাতে গাছের কাঁঠ দিয়ে মাথায় আঘাত করে, সে আঘাত ফিরাতে গিয়ে ডান হাতের কোবজি ভেঙ্গে রক্তাত্ব হয়। এ সময় আমার মেয়ে খাদিজা আক্তার (১৭) আহত হয়েছে। প্রতিবেশীরা এসে সাদ্দাম কে বাঁধা দিলে সুলতান মিয়ার ছেলে সাজাহান মিয়া (৩৩) আহত হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ মনোয়ারা বেগম তার ছেলে মেয়েসহ শহিদুল্লাহর ছেলে দেলোয়ার হোসেনের জমি দেখা শোনার জন্য কেয়ারটেকার হিসাবে বসবাস করে আসছেন। তাদের মা ছেলের মধ্যে প্রায় সময় ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকতো। ছেলে সাদ্দাম নেশা করে এবং বিক্রি করে এসব নিয়েই মা ছেলের ঝগড়া হয় প্রায় সময়।
এ ব্যাপারে ছেলে সাদ্দাম হোসেন বর্তমানে সে নেশা করে না বলে দাবী করে জানায়, মা টাকার জন্য নেশা বিক্রেতার সাথে দিয়ে ছিল অনেক আগে।মাকে আমি টাকা না দিতে পারায় আমার সাথে ইচ্ছা করে ঝগড়া করেন। আমাকে সময় মতো খেতে দেয়না মা। বুধবারে আমার বোন খাদিজার সাথে দুপুরের খাবার নিয়ে ঝগড়া হয়েছে। মা আমাকে দেখতে পারেনা। মাকে মারিনি আমি। খাদিজা আমাকে মারতে গেলে মায়ের হাতে আঘাত লাগে।

জৈনাবাজার এক ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন বলেন, মনোয়ারাকে আমার জমি দেখা শোনার জন্য কেয়ারটেকার হিসাবে জায়গা দিয়েছি। এখানে থেকে মনোয়ারা ও তার মেয়ে খাদিজা স্থানীয় আকবর কর্টন কারখানায় চাকরী করে। মনোয়ারার ছেলে সাদ্দাম আমার গরু মহিষ জমি দেখা শোনা করে। কিন্তু সাদ্দাম নেশার সাথে জরিত কিনা তা আমার জানা নেই।

তেলিহাটি ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড সদস্য তারেক হাসান (বাচ্চু) জানান, নেশার টাকার জন্য মাকে মারার ঘটনা খুবই দুঃখজনক । মনোয়ারা বেগমের ছেলে সাদ্দাম দীর্ঘ দিন যাবৎ মাদক সেবন করেন এবং মাদক ব্যবসার সাথে জরিত রয়েছে বলে এলাকায় অনেকে বলে। কয়েকদিন আগেও সাদ্দামের এক সহযোগিকে আটক করেছে পুলিশ।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ