বৃহস্পতিবার,১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং,২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ১০:৪১
“জলঢাকায় বিজয় দিবসকে নিয়ে ধৃষ্টতামূলক বক্তব্যের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও সড়ক অবরোধ” শহীদ মিনার থেকে নির্বাচনী প্রচার শুরু হচ্ছে আওয়ামী লীগের স্বাধীনতার শত্রুদের উচিত জবাব নৌকায় ভোট যতই ষড়যন্ত্র হোক আমি ভয় পাই না: প্রধানমন্ত্রী পলাশবাড়ীতে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত নৌকায় ভোট দিয়ে সন্ত্রাসীদের ক্ষমতায় আসার পথ বন্ধ করুন পলাশবাড়ীতে চাল ক্রয়ের উদ্বোধন

শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চার কাহিনিচিত্র

4 months ago , বিভাগ : বিনোদন,

মুক্তিনিউজ২৪.কম ডেস্ক: ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে ভিন্ন চারটি চ্যানেলে প্রচার হবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ডের ওপর নির্মিত চারটি কাহিনিচিত্র। সবগুলো কাহিনিচিত্রই সহিদ রাহমানের গল্প ‘মহামানবের দেশে’ অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে। কাহিনিচিত্র ‘কবি ও কবিতা’র চিত্রনাট্য লিখেছেন পান্থ শাহরিয়ার, পরিচালনা করেছেন রোকেয়া প্রাচী। এতে অভিনয় করেছেন আহমেদ রুবেল, এসএম মহসীন, লুসি তৃপ্তি গমেজ, শাহাদাৎ হোসেন নিপু ও একে আজাদ সেতু। এটি ১৫ আগস্ট চ্যানেল আইতে রাত ৮টায় প্রচারত হবে।

‘তখন পঁচাত্তর’ নামের কাহিনিচিত্রটির চিত্রনাট্য মিরন মহিউদ্দীনের। পরিচালনা করেছেন আবু হায়াত মাহমুদ। অভিনয়ে রাইসুল ইসলাম আসাদ, রুনা খান, এসএম মহসীন, শ্যামল মাওলা, উর্মিলা শ্রবন্তী কর, রাশেদ মামুন অপু, রামিজ রাজু ও হিন্দোল রায়। এটি আরটিভিতে রাত ৮টায় প্রচার হবে।

‘সেদিন শ্রাবণের মেঘ ছিল’র কাহিনি, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন সহিদ রাহমান। পরিচালনা করেছেন রাজিবুল ইসলাম রাজিব। অভিনয় করেছেন আজাদ আবুল কালাম, রওনক হাসান, হিমি ও মিজানুর রহমান। এই কাহিনিচিত্রটি একুশে টেলিভিশনে রাত ৯টায় প্রচার হবে। ‘জনক ১৯৭৫’ কাহিনিচিত্রের চিত্রনাট্য শাহীন রেজা রাসেলের। পরিচালক আজাদ কালাম। অভিনয়ে তারিক আনাম খান, তমালিকা কর্মকার, আরমান পারভেজ মুরাদ, শ্যামল মাওলা, মিজানুর রহমান ও নাফা। এটি এটিএন বাংলায় রাত ৯টায় প্রচার হবে।

বঙ্গবন্ধুর স্বপরিবারে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ১৯৭৫ সালে যতোটা প্রতিবাদ হওয়ার কথা ছিল সেভাবে হয়নি। তবে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে কিছু প্রতিবাদ হয়েছিল। যেমন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু ছাত্রনেতা ও এক কবি প্রতিবাদ মিছিল করেন। পরে তাদের জীবনে নেমে আসে ঘোর অনামিষা।

একটি সংবাদপত্রের সম্পাদক, গ্রামের একজন সাধারণ কৃষক, কিছু সাধারন ছাত্র-ছাত্রী যার যার অবস্থান থেকে মৃদু প্রতিবাদ জানায়। নোয়াখালির এক তরুণ মুক্তিযোদ্ধা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবেসে বাসর রাতে বউকে ছেড়ে আসেন গ্রামের স্কুল শিক্ষকের ডাকে। কিন্তু তার আর বাসর হয় না। সেনাবাহিনীর নির্যাতনে সংসারের রঙিন স্বপ্ন ভেঙে যায় নববধূর।

আরেকটি প্রতিবাদ গড়ে উঠেছিল ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা সীমান্ত অঞ্চলের আদিবাসী গারো সম্প্রদায়ের দ্বারা। প্রতিবাদের শাস্তিস্বরূপ নিরিহ গারোদের উপর সেনাবাহিনী অমানবিক নির্যাতন চালায়। এই চারটি ঘটনাই চারটি কাহিনিচিত্রের উপজীব্য।

আপনার মতামত লিখুন

বিনোদন বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ