সোমবার,১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং,৬ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, সময়: সকাল ৯:০১
নাটোরে অস্ত্রসহ দুই যুবক আটক উৎসবমূখর পরিবেশে শৈলকুপা প্রেসকাবের নির্বাচন সম্পন্ন লিটন সভাপতি ও শিহাব সম্পাদক নির্বাচিত সহযোগিতা করলে সীমান্তে মাদক চোরাচালান, নারী-শিশুপাচার ও সীমান্ত হত্যাবন্ধ হবে॥ -লে: কর্ণেল এসএম রেজাউর রহমান(পিএসসি) জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় ‘সদিচ্ছা’ প্রদর্শনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর হিলিতে সাংবাদিকদের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হারুনের মতবিনিময় অর্থ প্রাপ্তি সাপেক্ষে দুই হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি যুবককে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা যশোরে

শেবাচিমে মৃত রোগীর স্বজনের হামলায় এসআই আহত

মনির হোসেন,বরিশাল ॥ শেবাচিম হাসপাতাল থেকে বিনা অনুমতিতে মরদেহ নেয়ার চেষ্টাকালে বাঁধা প্রদান করায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাজমুল ইমলামসহ হাসপাতালের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী শাহাদাত হোসেন শান্তকে মারধর করেছে নিহতের স্বজনরা।
প্রত্যদর্শী ও হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত কর্মচারীরা জানান, জেলার উজিরপুর উপজেলার ধামুরার কাংশি এলাকার মৃত আজাহার আলী সরদারের পুত্র আবু আনসারের (৪০) ওপর গাছ ভেঙে পরায় গুরুত্বর আহত হন তিনি। পরে তাকে রবিবার সন্ধ্যায় শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আনসারকে মৃতবলে ঘোষণা করেন। পাশাপাশি দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যুর কারণে মরদেহটি হাসপাতাল কর্তৃপ মর্গে রাখার নির্দেশ দেন। হাসপাতালের কর্মচারী শান্ত মরদেহটি মর্গে নিয়ে যাওয়ার সময় নিহত ব্যক্তির স্বজনরা তাতে বাঁধা দেন। এ সময় শান্ত নিয়মানুযায়ী মরদেহটি নিয়ে যাওয়ার জন্য নিহতের স্বজনদের বিষয়টি বুঝিয়ে বলেন। এতে স্বজনরা প্তি হয়ে শান্তকে মারধর করে। এসময় হাসপাতালে দায়িত্বরত পুলিশের এসআই নাজমুল এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করা হয়। পরে জরুরি বিভাগে দায়িত্বরতরা পুলিশের সহায়তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে মরদেহটি হাসপাতালের মর্গে নিয়ে রাখেন।
শেবাচিম হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডাঃ আমিরুল ইসলাম জানান, রোগীকে মৃত্যু ঘোষণার সাথে সাথে তার স্বজনরা মরদেহ নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। হাসপাতাল কর্তৃপকে না জানিয়ে মরদেহটি নিয়ে যাওয়ার বাঁধা দেয়ায় হামলার ঘটনা ঘটেছে। আহত এসআই নাজমুল ইসলামের অভিযোগ, অনুমতি ছাড়া হাসপাতাল থেকে মরদেহ নিয়ে যাওয়ার চেষ্টাকালে ঘটনাস্থলে ছুটে গেলে নিহত ব্যক্তির এক স্বজনের হাতে থাকা পানির বোতল ছুড়ে মারলে তিনি চোখে আঘাতপ্রাপ্ত পান। কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আসাদুজ্জামান জানান, যেহেতু মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঘটনাটি ঘটেছে। তাই বিষয়টি মানবিক দিক থেকে বিবেচনা করে হামলাকারী কাউকে আটক করা হয়নি।

আপনার মতামত লিখুন

ঢাকা,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ