মঙ্গলবার,২১শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং,৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ৩:১৩
দিনাজপুর মহিলা পরিষদ এর উদ্যোগে আলোচনা সভা ‘এএসওসিআইও-২০১৭ ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীর সরকার সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে সর্বাত্মক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী পার্বতীপুরে প্রতিপক্ষের হাতে কৃষক নিহত॥ গ্রেফতার ৩ লালপুরে বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে শপথ গ্রহণ সালমান শাহ হত্যা মামলার তদন্ত চলছে লালপুরে গোসাইজীর আশ্রমে নবান্ন উৎসব

লাল-সবুজ ট্রেনের স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে না উত্তরের যাত্রীদের

0মো. জাকির হোসেন, নীলফামারী সংবাদদাতা: ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানি করা কোচগুলো দিয়ে ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-খুলনা পথে ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা নিচ্ছে রেলওয়ে কর্তৃপ। ফলে এবারও লাল-সবুজের নতুন ট্রেনে ওঠার স্বপ্ন অধরা থাকছে রংপুর বিভাগের যাত্রীদের। এর আগে ভারত থেকে আনা কোচ দিয়েও ওই সব পথে ট্রেন চালু করা হয়েছে। এতে বঞ্চিত হয়েছেন রংপুর বিভাগের রেলযাত্রীরা।
পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের সূত্র জানায়, সরকার উন্নত রেল যোগাযোগ স্থাপনের জন্য সম্প্রতি ভারত থেকে ১২০টি ব্রডগেজ লাইনের ৬০টি কোচ আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়। ভারতের ঋণে দেশটির পাঞ্জাব প্রদেশের কাপুরথালা রেলকোচ কারখানায় কোচগুলো নির্মাণ করা হয়। ইতিমধ্যে ভারত কোচগুলো সরবরাহ করেছে। সেগুলো দেশের বৃহত্তম সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় যান্ত্রিক নিরীণ (ডি-প্রসেসিং) করা হয়। পরে তা রেলওয়ে পরিবহন বিভাগকে হস্তান্তর করা হয়।
সূত্র আরও জানায়, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে ইন্দোনেশিয়া থেকে নতুন আরও ৫০টি লাল-সবুজ রঙের আধুনিক কোচ আমদানি করা হয়। এগুলো বর্তমানে সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ট্রায়ালরান চলছে।  এগুলো ঢাকা-রাজশাহী ও ঢাকা-খুলনা পথে চালানোর পরিকল্পনা নিচ্ছে কর্তৃপ।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ট্রেন পরিচালনার েেত্র রংপুর বিভাগকে কৌশলে বঞ্চিত করছেন রেলয়েরর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সম্প্রতি রাজশাহী-ঢাকা পথে নতুন কোচ দিয়ে তিনটি ট্রেন চালু করা হয়েছে। সেখানকার পুরোনো কোচগুলো দিয়ে দিনাজপুর-ঢাকা পথে একতা ও দ্রুতযান এক্সপ্রেস চালানো হচ্ছে। সম্প্রতি দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত মিটারগেজ (ছোট) লাইনের স্থলে রেলপথটি মিশ্র গেজে (ডুয়েল ও মিটারগেজ) রূপান্তর করা হয়। তখন থেকে এ লাইনে নতুন ট্রেন চালু করার দাবি করছেন এলাকাবাসী।
নীলফামারী-৪ আসনের সাংসদ ও বিরোধীদলীয় হুইপ শওকত চৌধুরী বলেন, নীলফামারীর চিলাহাটি-ঢাকা রুটে চলাচলকারী নীলসাগর ট্রেনটিকে নতুন কোচ দিয়ে সাজানোর ব্যাপারে রেল মন্ত্রণালয়কে চিঠি (ডিও লেটার) দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন রেলওয়ে কর্তৃপ ট্রেনগুলো অন্য পথে নিচ্ছে, তা বোধগম্য নয়।
রেলওয়ে শ্রমিক লীগের সৈয়দপুর কারখানা শাখার সম্পাদক মোখছেদুল মোমিন বলেন, ‘শুনেছি এবারও আমরা নতুন ট্রেন পাচ্ছি না। সব নিয়ে যাওয়া হচ্ছে রাজশাহী ও খুলনাতে। এমনটি হলে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। ইতিপূর্বে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানা পরিদর্শনে এসে বলেছিলেন, পর্যায়ক্রমে ঢাকা-দিনাজপুর, ঢাকা-চিলাহাটি পথে নতুন ট্রেন দেওয়াা হবে। নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে দ্বিতীয় বহর চালু হবে। তবু সে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হচ্ছে না।’
পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের  বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা শওকত জামিল বলেন, পর্যায়মে নীলসাগর, একতা ও দ্রুতযান ট্রেনে নতুন কোচ দেওয়া হবে। সৈয়দপুর-খুলনা পথে চলাচলকারী রূপসা ও সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনকেও নতুন কোচ দিয়ে সাজানো হবে। তবে এসব নিয়ে এখনো পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়নি বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ