শুক্রবার-১৯শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং-৬ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, সময়: রাত ১২:৪৫
কাল শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ঢাকায় পৌঁছেছেন ফেরদৌস রমজানে পণ্যের দাম বাড়বে না: বাণিজ্যমন্ত্রী পার্বতীপুরে স্কুল ফিডিং কার্যক্রম পরির্শনে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযোগ বক্স রাখার সুপারিশ তাইওয়ানে শক্তিশালী ভূমিকম্প নুসরাত হত্যাকারীদের শাস্তি দাবিতে গাইবান্ধায় মৌন প্রতিবাদ

লালমনিরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস দালালের মাধ্যম ছাড়া কাগজ প্রসেস হয়না

লাভলু শেখ,লালমনিরহাট(১৯ মার্চ ১৯ইং)ঃ
লালমনিরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস দালালের মাধ্যম ছাড়া কাগজ প্রসেস হয়না। ২৫০ জন প্রকৃত তথ্য গোপন রেখে মিথ্যা তথ্য দিয়ে পুনরায় পাসপোর্টের আবেদন করায় তাদের ওই সব আবেদন আটকা পড়েছে।
রহস্যজনক হলেও তারা মিথ্যা তথ্য দিয়ে আবেদন করার বিষয়টি খতিয়ে দেখার প্রয়োজন মনে করছে না কর্তৃপক্ষ ।অপরদিকে লালমনিরহাট আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসটি স্থানীয় দালাল শাহ আলম গং জিম্মিদশা করে রেখেছে।
পাসপোর্ট প্রার্থীরা আবেদন ফরম প্রসেস এর নামে হয়রানির শিকার হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারি নির্ধারিত ফি বাবদ ১ হাজার থেকে ১২শত টাকা অতিরিক্ত উৎকোচ দালালদের হাতে দিয়ে বাকী কাজ সম্পন্ন করতে হয় বলে জানা যায়। গত ২০১৮ থেকে ২০১৯ ইং ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত ৭ হাজার ১ শত ৯ জন পাসপোর্ট পেয়েছে বলে ওই অফিসের উপ সহকারী পরিচালক এ কে এম মোতাহার হোসেন সাংবাদিকদের জানান।
হয়রানির শিকার একাধিক ব্যাক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে গিয়ে পাসপোর্ট অফিসে দেখা যায়, মাসুদ নামের একজন কর্মচারীর সহযোগীতায় শাহ আলম গং পাসপোর্ট প্রার্থীদের নিকট ফরম সংগ্রহ ও যাবতীয় তথ্য পূরণ বাবদ অতিরিক্ত উৎকোচ আদায় করেছে।
সূত্র জানায়, মাসুদুর রহমান নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে কর্মরত থেকে কি ভাবে পাসপোর্ট প্রার্থীদের ফরম পূরন কিংবা সহযোগীতার নামে উৎকোচ নিতে পারে বলে প্রশ্ন সাধারন জনগনের?
এমন দুর্নীতি ও অনিয়মের বিষয়ে উপ সহকারী পরিচালক এ কে এম মোতাহার হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ওই অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখবো।
ভুক্তভোগীরা পাসপোর্ট অফিসটি দুর্নীতিমুক্ত হতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
আপনার মতামত লিখুন

রংপুর,সারাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ